করোনা আবহে অসুস্থ শিশুদের সম্পূর্ণ বিনামূল্য পরিষেবা দিচ্ছেন বীরভূমের ডাক্তারবাবু, ফোন নম্বর থাকছে ফেসবুকে

Doctor treats without fees

উল্লেখ্য ডাঃ অরণ্য দত্ত করোনার প্রথম ঢেউ থেকেই এমনভাবেই পাশে আছেন৷

  • Share this:

#বীরভূম: করোনা দ্বিতীয় ঢেউ,  এই পরিস্থিতিতে শিশুরোগীদের পাশে বীরভূমের সিউড়ির শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ অরণ্য দত্ত। কোন টাকা ছাড়াই দিচ্ছেন টেলি মেডিসিন (Tele Medicine) পরিষেবা। পরিসেবা পাচ্ছেন বীরভূম জেলা তো বটেই, রাজ্যের বিভিন্ন জায়গার শিশু রোগীরাও (Child Specialist)। বর্তমানে এই পরিস্থিতিতে অসুস্থ হচ্ছেন অনেকেই। অভিভাবকরাও নজর রাখছেন শিশুদের দিকে। সন্তান একটু অসুস্থ মনে হলেই দিশেহারা হচ্ছেন তারা। চাইছেন ডাক্তারের পরামর্শ। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতিতে বেশীরভাগ ডাক্তারের চেম্বার বন্ধ (Doctor chamber close)। আর এই আতঙ্কই। আবার অনেক ডাক্তার এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে মানুষের সেবায় প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন বিভিন্ন জায়গায়। তো আবার কেউ কেউ নিজে কোভিড আক্রান্ত হয়ে নিজেকে করছেন ঘরবন্দি। ফলে সবসময় ডাক্তারবাবুদের ও দেখা মিলছে না।

এরই মাঝে এগিয়ে আসছেন বেশ কিছু ডাক্তার । তারা অনলাইনের (Online Medical consultation) মাধ্যমে বিভিন্ন উপায়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন । বীরভূমের সিউড়ি সুপার স্পেসিলিটি হসপিটালের চিকিৎসক ডাক্তার অরণ্য দত্ত এমনই এক উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছেন । নিজে তো বটেই, বাড়ির লোক কয়েকদিন আগে পর্যন্ত ছিল কোভিড পজিটিভ। অসুস্থতা পৌঁছেছিল চরম পর্যায়ে। তখনও ঘরে বসে অনেকের সেবা করেছেন এবং নিজে সুস্থ হয়েও এই করোনা কালে শিশুদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে নিজের ফোন নম্বর 9609502445 দিয়ে একটি ফেসবুক পোস্ট করেন তিনি। সকালে সাড়ে ৮ টা থেকে ১১ টা ও বিকেল সাড়ে ৫ টা থেকে সন্ধ্যে ৬টা পর্যন্ত এই নির্দিষ্ট সময় সূচি দিয়ে নির্দ্বিধায় বিভিন্ন সমস্যায় তাঁর সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। তিনি আরও জানান যে তিনি কোনও হাসপাতালের ডিউটিতে  ব্যস্ত থাকলে পরে তাঁর সাথে যোগাযোগ করতে।

উল্লেখ্য ডাঃ অরণ্য দত্ত করোনার প্রথম ঢেউ থেকেই এমনভাবেই পাশে আছেন । তিনি প্রথম থেকেই নিজের ব্যক্তিগত উদ্যোগে এমন পরিষেবা চালু করেছেন । তারপর করোনা পরিস্থিতি স্থিতিশীল হতে না হতেই আবার আছড়ে পড়েছে করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ । আর এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে দিনের পর দিন যেন আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে। আর এই পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে চুপ বসতে পারেননি ডাক্তার অরণ্য দত্ত। তিনি তাঁর ব্যক্তিগত উদ্যোগে পুণরায় চালু করেন এই পরিষেবা। এই পরিষেবা পাওয়ায় আপপ্লুত বাচ্চাদের অভিভাবকরা। তাঁরা ডাক্তার বাবুকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানান।

Published by:Pooja Basu
First published: