Dilip Ghosh : ‘রাজ্যে ভ্যাকসিন সিন্ডিকেট চলছে’, ভুয়ো করোনা টিকাকরণ নিয়ে কটাক্ষ দিলীপের

দিলীপের ভ্যাকসিন তোপ Photo : PTI

ভুয়ো টিকাকরণ (Vaccination) ইস্যুতে এবার মুখ খুলে রাজ্য সরকারকেই কার্যত বিঁধলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তিনি বলেন, ভ্যাকসিন সিন্ডিকেট চলছে আর সঙ্গে যুক্ত সবাই।

  • Share this:

    #কলকাতা : টিকাকরণ (Corona Vaccination) শিবির খুলে জালিয়াতির অভিযোগ নিয়ে সরগরম কলকাতা। ওই শিবির থেকে টিকা নিয়েছেন খোদ যাদবপুরের সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও (Mimi Chakraborty)। অনেকেই বলছেন, তার ফলে জালিয়াতি (Fake Vaccine Centre) যে আরও কয়েকগুণ বেশি গুরুত্ব পেয়েছে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। সেই ভুয়ো টিকাকরণ (Vaccination) ইস্যুতে এবার মুখ খুলে রাজ্য সরকারকেই (Mamata Banerjee Govt) কার্যত বিঁধলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তিনি বলেন, ভ্যাকসিন সিন্ডিকেট চলছে আর সঙ্গে যুক্ত সবাই। ইতিমধ্যেই তৃণমূল সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরত জাহান প্রসঙ্গে মন্তব্য করে বঙ্গ রাজনীতির উত্তাপ বাড়িয়েছেন দিলীপ ঘোষ। এবার ভ্যাকসিন নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসকে কার্যত একহাত নিলেন তিনি।

    বৃহস্পতিবার সকালে ইকো পার্কে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন দিলীপ ঘোষ। ভ্যাকসিন (Vaccine) প্রতারণা কাণ্ড নিয়ে সেখানেই মুখ খোলেন দিলীপ। বিজেপি রাজ্য সভাপতির অভিযোগ, “রাজ্যে চলছে ভ্যাকসিন সিন্ডিকেট। যুক্ত সবাই।” মিমি চক্রবর্তী একজন সাংসদ হওয়া সত্ত্বেও কী ভাবে ভুয়ো ভ্যাকসিনেশন সেন্টার থেকে টিকা নিলেন, সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি। ভুয়ো টিকাকরণ শিবির থেকে টিকা নিয়ে বহু মানুষের জীবন সংশয় হতে পারে বলেও আশঙ্কাপ্রকাশ করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

    মঙ্গলবার কসবার ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডে একটি টিকাকরণ শিবির চলছিল। সেখান থেকেই টিকা নেন যাদবপুরের তারকা তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। তবে ফোনে মেসেজ না আসায় সন্দেহ হয় তাঁর। সেই সূত্র ধরেই সামনে এসে পরে টিকাকরণ শিবিরের উদ্যোক্তা দেবাঞ্জন দেবের নাম। জানা যায় সে নিজেকে আইএএস (IAS) বলে পরিচয় দেয়। এছাড়াও নীল বাতি লাগানো কলকাতা পুরসভার গাড়িও ব্যবহার করত দেবাঞ্জন। কলকাতা পুরসভার লোগো লাগানো মাস্ক এবং স্যানিটাইজারও ওই টিকাকরণ শিবির থেকে বিলি করা হয়।

    এরপরে মঙ্গলবার আটক করে রাতভর জেরা করা হয় তাকে। তারপরই পুলিশ জানতে পারে, দেবাঞ্জন ভুয়ো পরিচয় দিয়ে টিকাকরণ শিবিরের আয়োজন করেছে। জালিয়াতির প্রমাণ প্রকাশ্যে আসাতে সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগ এই ঘটনার তদন্তভার নিয়েছে। টিকাকরণ শিবির থেকে গড়ে কমপক্ষে কয়েকশো মানুষ টিকা নিয়েছেন। তাঁরা আদৌ করোনার টিকা নিয়েছিলেন কিনা, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই শোরগোল শুরু হয়েছে রাজ্য জুড়ে। তাতেই এবার রাজনৈতিক রং ঢুকিয়ে দিল দিলীপ ঘোষের আজকের মন্তব্য।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: