Corona in Kolkata: 'একটু অক্সিজেন দিলেই মাকে বাঁচান যেত', বেলেঘাটা আইডি-র বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন করোনা আক্রান্তের একমাত্র ছেলে

Corona in Kolkata: 'একটু অক্সিজেন দিলেই মাকে বাঁচান যেত', বেলেঘাটা আইডি-র বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন করোনা আক্রান্তের একমাত্র ছেলে

হাসপাতালের বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন মৃতার ছেলে।

প্রায় বিনা চিকিৎসায় এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদাসীন আচরণের জন্য এক করোনা আক্রান্তের (Corona Positive Patients Death) মৃত্যুর অভিযোগ উঠল রাজ্যের প্রথম বিশেষ করোনা চিকিৎসার কেন্দ্র বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে।

  • Share this:

#কলকাতাঃ গোটা দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পশ্চিমবঙ্গেও প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের (Coronavirus in Bengal) সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। কলকাতা (Kolkata) ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের বেশির ভাগ সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমে করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীর জন্য একটা বেড পাওয়াই দুষ্কর হয়ে দাঁড়াচ্ছে, এরই মধ্যে প্রায় বিনা চিকিৎসায় এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদাসীন আচরণের জন্য এক করোনা আক্রান্তের (Corona Positive Patients Death) মৃত্যুর অভিযোগ উঠল রাজ্যের প্রথম বিশেষ করোনা চিকিৎসার কেন্দ্র বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে।

বেহালা পর্ণশ্রী এলাকার বাসিন্দা ইলা সরকারের (৭৫) হঠাৎ করেই গত ৯ এপ্রিল থেকে শরীর খারাপ করতে শুরু করে। প্রথমে অল্প জ্বর, গা-হাত- পা-মাথাব্যথা। এরপরই বহু চেষ্টা করে অবশেষে গত ১৫ এপ্রিল, নববর্ষের (Poila Baishakh 2021) দিনে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে (Beleghata Id Hospital) ভর্তি করা হয় ইলা দেবীকে। ভর্তির দু-দিন পর থেকেই অভিযোগ উঠতে থাকে পরিবারের তরফে। ইলাদেবীর একমাত্র পুত্র অভিজ্ঞান সরকার জানান, 'মা হাসপাতালে খাবার খেতে পারছিলেন না, রাইলস টিউবের সাহায্যে মাকে খেতে দেওয়ার কথা বার বার বললেও কেউ শোনেনি। এমনকি ভর্তির দু-দিন পরেই আইসিইউ-তে (ICU) স্থানান্তরিত করা হয় মাকে। আবার হটাৎ করেই দু-দিন আগে আইসিইউ থেকে জেনারেল বেডে (General Bed) স্থানান্তরিত করা হয়। বারবার করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বলেছিলাম, "মায়ের অক্সিজেনের (Oxygen) প্রয়োজন। ভিডিও কলে মা কাকুতি-মিনতি করছিল অক্সিজেনের জন্য। কিন্তু কোথায় কী! অক্সিজেন তো দূর অস্ত, উল্টে একপ্রকার বিনা চিকিৎসায় (Negligence) ফেলে রাখা হয়েছিল মাকে।"

বুধবার দুপুরে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের তরফ থেকে বাড়িতে ফোন করে বলা হয় ইলাদেবীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। ছেলে অভিজ্ঞান হাসপাতালে এসে নায়ের মৃত্যু সংবাদ জানতে পারেন। হাসপাতাল চত্বরে কান্নায় ভেঙে পড়ে অভিজ্ঞান বলেন, 'বিনা চিকিৎসায় মাকে মেরে ফেলল হাসপাতাল।' যদিও বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের অধ্যক্ষা অনিমা হালদার জানান, রোগীর পরিবারের অভিযোগের কোনও ভিত্তি নেই। ইলাদেবীর চিকিৎসায় কোনওরকম গাফিলতি হয়নি। চিকিৎসকরা সমস্ত রকম চেষ্টা করা সত্ত্বেও শারিরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল,ফলে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।'

ABHIJIT CHANDA

Published by:Shubhagata Dey
First published:

লেটেস্ট খবর