করোনা সতর্কতায় স্কুলগুলিতে সাবান, স্যানিটাইজার পাঠানোর নির্দেশ স্বাস্থ্য দফতরের

করোনা সতর্কতায় স্কুলগুলিতে সাবান, স্যানিটাইজার পাঠানোর নির্দেশ স্বাস্থ্য দফতরের

নির্দেশ ইতিমধ্যেই জেলাশাসকদের কাছে পাঠিয়ে অবিলম্বে তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে স্কুলগুলিতে সাবান পাঠানোর নির্দেশ দিল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। মিড ডে মিল প্রকল্পের টাকার ওই সাবান কিনে স্কুলগুলিতে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই নির্দেশ ইতিমধ্যেই জেলাশাসকদের কাছে পাঠিয়ে অবিলম্বে তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। মিড ডে মিল ফান্ডে স্যানিটাইজার বা সাবান কেনার টাকা না থাকলে অন্য কোনও ফান্ড থেকে তা কিনে দ্রুত স্কুলগুলিতে পাঠানোর জন্য জেলাগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। যে কোনও ভাইরাসে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। স্কুলে একসঙ্গে শিশু ও কিশোর, কিশোরীরা থাকে। একজনের দেহে সংক্রমণ দেখা দিলে তা দ্রুত বাকিদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ার আশংকা থাকে। সেজন্যই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এই বাড়তি সতর্কতা নিয়েছে রাজ্য সরকার। ওই নির্দেশে প্রতিটি জেলাকে স্যানিটাইজার কিনে স্কুলগুলিতে পাঠাতে বলা হয়েছে। নিদেন পক্ষে সাবান কিনে স্কুলে পাঠাতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক পদস্থ আধিকারিক এই প্রসঙ্গে বলেন, 'শুধু সাবান কিনে পাঠিয়ে দিলেই হবে না। তার সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করাও জরুরি। মিড ডে মিল খাবার আগে প্রতিটি পড়ুয়া সাবান দিয়ে যথাযথভাবে ধুচ্ছে কিনা তাও দেখতে হবে। হাতে একটু সাবান লাগিয়ে জলে ধুয়ে ফেললে কাজ হবে না। দু হাতের তালুতে সাবান ভাল করে নিয়ে তা দু হাত দিয়ে কিছুক্ষণ ডলতে হবে। এরপর হাতের প্রতিটি আঙুলের ভাঁজ ভাল করে ডলতে হবে। একই ভাবে হাতের তালুর ঠিক বিপরীত অংশেও ভালোভাবে সাবান দিয়ে ঘষতে হবে। সব মিলিয়ে কব্জির আগে পর্যন্ত ভালোভাবে সাবান দিয়ে ঘষে পরিষ্কার জীবানু মুক্ত জলে সে হাত ভালোভাবে ধুয়ে তবেই খাবার খেতে হবে।'

চিকিৎসকরা বলছেন, শুধু করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর জন্যেই নয় যে কোন রোগ প্রতিরোধে প্রত্যেককে প্রতিবার হাত দিয়ে খাবার খাওয়ার আগে ভালোভাবে হাত ধোয়া জরুরি। তাতে সব রকম রোগ থেকেই রক্ষা পাওয়া যায়। পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক বিজয় ভারতী বলেন, 'ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের স্যানিটাইজার বা সাবান কিনে স্কুলগুলিতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আজ কালের মধ্যেই তা পৌঁছে যাবে'। জেলা শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিক বলেন, 'পড়ুয়ারা কীভাবে হাত ধোবেন তা শিক্ষক শিক্ষিকাদের বুঝিয়ে দেওয়া হবে। তা তাঁরা পড়ুয়াদের বুঝিয়ে দেবেন'। স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা বলছেন, অসুস্থ দেহে ভাইরাস সংক্রমণ দ্রুত হয়। তাই সবাইকে সুস্থ রাখতেই এই পদক্ষেপ। একই সঙ্গে পড়ুয়ারা যাতে নিয়মিত নখ কাটে তাও দেখতে হবে। নখের তলার ময়লা খাবারের সঙ্গে পেটে গিয়ে অসুস্থতা বাড়ায়। সাবান পাঠাতে বলা হয়েছে বলে আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। বাড়তি সতর্কতা হিসেবেই এই পদক্ষেপ।

Saradindu Ghosh

First published: March 7, 2020, 2:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर