Oxygen Crisis in Kolkata: বিনা চিকিৎসায় ১৬ ঘণ্টা বাড়িতেই পড়ে রইলেন করোনা আক্রান্ত, অক্সিজেনের অভাবে মর্মান্তিক মৃত্যু

Oxygen Crisis in Kolkata: বিনা চিকিৎসায় ১৬ ঘণ্টা বাড়িতেই পড়ে রইলেন করোনা আক্রান্ত, অক্সিজেনের অভাবে মর্মান্তিক মৃত্যু

করোনা আক্রান্তের অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু। প্রতীকী ছবি।

হাসপাতালে মেলেনি বেড, অক্সিজেনের অভাবে করোনা রোগীর (COVID 19 Positive) মৃত্যু, ১৬ ঘণ্টা ধরে বাড়িতে পড়ে দেহ।

  • Share this:

    #কলকাতাঃ  হাসপাতালে বেড না পেয়ে কার্যত বিনা চিকিৎসায় বাড়িতেই করোনা রোগীর (Corona Positive) মৃত্যুর (COVID 19 Death) অভিযোগ। মৃত্যুর পরে ১৩ ঘণ্টারও বেশি সময় কেটে গেলেও উদ্ধার হয়নি দেহ। এ দিকে বাড়িতে তিন বছরের একটি শিশু-সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা রয়েছেন। ফলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কায় তাঁরা। পরিবারের সদস্যদের দাবি, বার বার পুরসভায় খবর দিয়েও কোনও লাভ হয়নি। এমনকি লাভ হয়নি লেকটাউন থানায় জানানোর পরেও।

    বিধানসভা নির্বাচনের সপ্তম দফা ভোটের (West Bengal Assembly Election 2021 Phase 7) দিন মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে লেকটাউনের (Laketown)  শ্রীপল্লীতে। মৃত রোগীর নাম সুদিন মুখোপাধ্যায় (৭৩)। দক্ষিণ দমদম পুরসভার ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মুখোপাধ্যায় পরিবারের দাবি, শনিবার ৭৩ বছরের ওই রোগীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তারপর বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু গতকাল শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় বিভিন্ন হাসপাতালে ঘুরেও বেড মেলেনি। ফলে অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু হয় বৃদ্ধের।

    এ দিকে, এলাকায় করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হওয়ায় গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, গতকাল রাত দুটো নাগাদ বাড়িতেই তার মৃত্যু হয় পরিবারের কর্তার। প্রায় ১৬ ঘণ্টা অতিক্রম হয়ে গেলেও মৃতদেহ নিয়ে যায়নি পুরসভা। লেকটাউন থানায় খবর দেওয়া হলেও পুলিশ ঘটনাস্থল ঘুরে গিয়েছে ঠিকই, কিন্তু জানিয়েছে যারা মৃতদেহ তোলে, তারা নাকি ১৫,০০০ টাকা চেয়েছে। বর্তমানে  বৃদ্ধের বাড়িতে বর্তমানে তাঁর স্ত্রী এবং মেয়ে রয়েছেন, তারা দুজনেই করোনা পজেটিভ। এ ছাড়াও বাড়িতে তিন বছরের ছোট একটি বাচ্চা রয়েছে। ফলে দিশেহারা পরিবার। পুলিশ ও পুরসভার বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা।

    অন্যদিকে, করোনা রিপোর্ট না আসায় ৩ দিন ধরে রোগিণীর মৃতদেহ পড়ে থাকার অভিযোগ উঠল কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের হাসপাতালে। শুক্রবার পোর্ট ট্রাস্টের হাসপাতালে ভর্তি হন এন্টালির বাসিন্দা ৪৩ বছরের প্রিয়ঙ্কা দে। পাশাপাশি, বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে করোনা রোগীর অস্বাভাবিক মৃত্যু। হাসপাতালের ওয়ার্ডের শৌচাগার থেকে উদ্ধার হয় এক করোনা আক্রান্তের ঝুলন্ত দেহ। বছর পঁচাত্তরের ওই রোগীর নাম কালাচাঁদ দাস। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান আত্মহত্যা করেছেন ওই ব্যক্তি।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: