• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • RIL AGM 2021: রিলায়েন্সের উদ্যোগে দেশে ২ হাজারের বেশি কোভিড বেড, ‘মিশন অক্সিজেন’ সাহায্যের জন্য চিকিৎসকদের ধন্যবাদ: নীতা

RIL AGM 2021: রিলায়েন্সের উদ্যোগে দেশে ২ হাজারের বেশি কোভিড বেড, ‘মিশন অক্সিজেন’ সাহায্যের জন্য চিকিৎসকদের ধন্যবাদ: নীতা

Photo: Twitter

Photo: Twitter

Nita Ambani- RIL AGM 2021: রিলায়েন্সের ‘মিশন অক্সিজেনে’ সাহায্যের জন্য চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন নীতা আম্বানি ৷

  • Share this:

    মুম্বই: রিলায়েন্সের ৪৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (AGM) বক্তব্য রাখতে গিয়ে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান নীতা আম্বানি বলেন,  ‘‘কর্মীদের টিকাকরণই এখন RIL-এর প্রধান লক্ষ্য ৷ সংস্থার উদ্যোগে বিনামূল্যে ১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে  দেশের ১১৬টি টিকাকেন্দ্রে ৷

    করোনায় মৃত সংস্থার কর্মীর পরিবারকে আজীবন চিকিৎসার খরচ দেওয়ার কথা আগেই ঘোষণা করেছে রিলায়েন্স ৷ করোনায় মৃত কর্মীর সন্তানদের স্নাতক পর্যন্ত পড়াশোনার খরচ দেবে সংস্থা ৷ করোনায় কর্মীর মৃত্যু হলে পরিবারকে ৫ বছর পর্যন্ত বেতন দেওয়া হবে ৷ অভুক্তদের খাবার পৌঁছে দিতে করোনাকালে ‘অন্ন সেবা’ প্রকল্প চালু করেছে রিলায়েন্স ৷ এ ছাড়া RIL-এর উদ্যোগে দেশে ২ হাজারের বেশি কোভিড বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে ৷ ‘মিশন অক্সিজেনে’ সাহায্যের জন্য চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন নীতা আম্বানি ৷

    কোভিড রোগীদের জন্য সংস্থার পক্ষ থেকে বিনামূল্যে অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান নীতা আম্বানি ৷ তিনি বলেন, ‘‘দেশের ১১% অক্সিজেন উৎপাদন করে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৷ করোনাকালে RIL-এর উদ্যোগে ‘মিশন অক্সিজেন’-এর উদ্যোগ নেওয়া হয় ৷ শেষ ১৫ মাসে আমাদের লক্ষ্য ছিল দেশকে যে ভাবেই হোক সাহায্য করা ৷’’

    পাশাপাশি নারীশক্তির বিকাশে নয়া অ্যাপ ‘হার সার্কেল’ এবং জিও ইনস্টিটিউটে দ্রুত ক্লাস শুরু হবে বলেও এদিন জানান নীতা আম্বানি ৷

    করোনা নিয়ন্ত্রণ সংস্থার প্রধান উদ্দেশ্য হলেও একই সঙ্গে দেশে উন্নয়নমূলক কাজ যতটা করা সম্ভব সেই চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছে রিলায়েন্স। তিনি আরও বলেন দেশের পরিস্থিতি যতই কঠিন হোক, খেলাধুলা এবং শিক্ষাব্যবস্থা প্রতিদিন উন্নত হয়েছে। থমকে যাওয়া সময়, ঘর বন্দী জীবন কিছুটা হলেও আশার আলো দেখতে পেয়েছে খেলার মাঠে এবং শিক্ষা ব্যবস্থায়। দেশ তৈরির ক্ষেত্রে খেলাধুলা এবং শিক্ষাব্যবস্থা বরাবর রিলায়েন্স সংস্থার অন্যতম প্রধান গুরুত্বের জায়গা পরিষ্কার করে দিয়েছেন তিনি।

    নীতা আম্বানি এদিন মনে করিয়ে দিয়েছেন আইএসএল টুর্নামেন্টের কথা। যেভাবে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হয়েছিল তা দেশের ইতিহাসে বিরল। গোয়ার মাটিতে প্রায় চার মাসের কাছাকাছি ধরে চলেছিল টুর্নামেন্ট। এমন পরিস্থিতিতে আইএসএল ছিল দেশের সবচেয়ে বড় এবং দীর্ঘ সময় ধরে চলা স্পোর্টিং ইভেন্ট।

    মোট ১৬০০ কর্মীর নিরলস পরিশ্রম, ১৮টি জৈব সুরক্ষা বলয় এবং গোয়ায় ১৪ টি বিভিন্ন জায়গায় মিলিয়ে সম্পন্ন হয়েছিল টুর্নামেন্ট। মুম্বই সিটি এফসি চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল প্রথমবারের জন্য এটিকে মোহনবাগানকে হারিয়ে। কিন্তু নীতা আম্বানি জানিয়েছেন হারা বা জেতার থেকেও অনেক বড় পরীক্ষা ছিল টুর্নামেন্ট সফলভাবে শেষ করা এবং মানুষকে আনন্দ দেওয়া। খেলোয়াড়, কোচ এবং কোচিং স্টাফদের সুরক্ষার দিকে পুরো নজর দেওয়া হয়েছিল।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: