Home /News /business /
RBI may increase Repo rate: মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ফের রেপো রেট বাড়াতে পারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক! জনসাধারণের উপরে কী প্রভাব?

RBI may increase Repo rate: মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ফের রেপো রেট বাড়াতে পারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক! জনসাধারণের উপরে কী প্রভাব?

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

গত মে মাসেও রেপো রেট ০.৪০ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৪.৪০ শতাংশ করেছিল আরবিআই।

  • Share this:

#মুম্বই: আগামী সপ্তাহেই অনুষ্ঠিত হতে চলা আর্থিক সমীক্ষায় রেপো রেট ০.৪০ শতাংশ বৃদ্ধি করতে পারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া বা আরবিআই (RBI)। বিদেশি ব্রোকারেজ কোম্পানি ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা সিকিউরিটিজের তরফ থেকে শুক্রবার এই কথা জানানো হয়েছে। গত মে মাসেও রেপো রেট ০.৪০ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৪.৪০ শতাংশ করেছিল আরবিআই। আসলে ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করার জন্যই নীতিগত হার বাড়িয়েছিল আরবিআই। শুক্রবার ব্রোকারেজ কোম্পানিটি একটি রিপোর্টে জানিয়েছে যে, মে মাসের মুদ্রাস্ফীতির পরিসংখ্যান ৭ শতাংশ থাকবে বলেি অনুমান করা হচ্ছে। তাই এটি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্কের তরফ থেকে আরও কিছু পদক্ষেপ করা হবে বলে আশা।

ভবিষ্যতে আরও হার বৃদ্ধি হওয়ায় অনুমান: রিপোর্ট অনুযায়ী, আগামী সপ্তাহেও রেপো রেট আরও ০.৪০ শতাংশ বাড়াতে পারে আরবিআই। এছাড়া অগাস্টের পর্যালোচনাতেও রেপো রেট আরও ০.৩৫ শতাংশ বাড়ানো হতে পারে। যদি এমনটা না-হয়, তাহলে আরবিআই আগামী সপ্তাহেই ০.৫০ শতাংশ এবং অগাস্ট মাসে ০.২৫ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত পারে। সম্প্রতি RBI গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের বক্তব্য, মুদ্রাস্ফীতি ৬ শতাংশের সন্তোষজনক স্তরের আওতায় নিয়ে আসার চাপের কথা মাথায় রেখে নীতিগত হারে আরও বৃদ্ধি সেরকম কোনও বড় ব্যাপার নয়।

আরও পড়ুন: কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য সুখবর, ১ জুলাই থেকে ৫ শতাংশ বাড়তে পারে DA

খাদ্য অথবা জ্বালানীর মুদ্রাস্ফীতির উপর হার বৃদ্ধির প্রভাব: শেয়ার বাজার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই হার বৃদ্ধি খাদ্য বা জ্বালানি মুদ্রাস্ফীতি কমাতে সেরকম কার্যকর হবে না। তবে সামান্য মুদ্রাস্ফীতিকে আরও বৃদ্ধি পাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে এটি সহায়ক হতে পারে। মুদ্রাস্ফীতির বৃদ্ধি বিপজ্জনক হতে পারে। নতুন অর্থবর্ষের সূচনা আরও ভীতিদায়ক হতে পারে। তাই অনুমান করা হচ্ছে, চলতি অর্থবর্ষে আরও ১ শতাংশ হার বাড়তে পারে।

আগামী সপ্তাহে যদি আরবিআই রেপো রেট বৃদ্ধি করে, তাহলে এর প্রভাব সাধারণ মানুষের জীবনেও পড়তে পারে। কারণ এই বৃদ্ধির ফলে আবার বাড়তে পারে ইএমআই (EMI)। এমনকী হোম লোনের ইএমআই (EMI)-ও আগামী মাস থেকেই বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

First published:

Tags: Inflation, RBI, Repo Rate, Share Market

পরবর্তী খবর