Home /News /business /
Credit Cards: ভারতে কত ধরনের ক্রেডিট কার্ড পাওয়া যায় এবং সেগুলি কী কী?

Credit Cards: ভারতে কত ধরনের ক্রেডিট কার্ড পাওয়া যায় এবং সেগুলি কী কী?

Credit Cards: নোটের বান্ডিল নয়, পকেটে থাকে ক্রেডিট কার্ড। জেন ওয়াই-এর এটাই স্টাইল স্টেটমেন্ট।

  • Share this:

    #কলকাতা: আজ নগদ কাল ধার, ধারের পায়ে নমস্কার’। অনেক দোকানেই এমন লেখা চোখে পড়ে আজকাল। কিন্তু পকেট থেকে ক্রেডিট কার্ডটি বার করলে আলাদাই কদর। আসল ব্যাপার হল, রাস্তাঘাটে আর কত টাকা নিয়েই বা বেরোনো যায়! নিরাপত্তা বলেও তো একটা ব্যাপার আছে! পকেটের দিকে পকেটমারের সুনজর পড়লেই চিত্তির! তাই নোটের বান্ডিল নয়, পকেটে থাকে ক্রেডিট কার্ড। জেন ওয়াই-এর এটাই স্টাইল স্টেটমেন্ট।

    আরও পড়ুন: আরও বাড়ল পেট্রোল-ডিজেলের দাম, দেখে নিন কলকাতা-সহ অন্যান্য শহরে কত হল

    তবে আরও একটা ব্যাপার আছে। ধরা যাক, কেউ শপিং মলে ১০ হাজার টাকার বাজার করে ক্রেডিট কার্ডে পেমেন্ট করলেন। কারণ বেতন আসতে এখনও কিছু দিন বাকি। এ দিকে বাজার করতেই হবে। কিন্তু হাতে যেটুকু নগদ টাকা রয়েছে, সেটা খরচ করলে কিছুই যে থাকবে না! এ রকম অবস্থায় ক্রেডিট কার্ডের মহিমায় ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে একটা টাকাও গেল না এবং পুরো টাকাটাই ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি দিয়ে দিল। অবশ্য খরচ করা টাকা ব্যাঙ্কে পরিশোধ করার সময় সুদ দিতে হবে। কিন্তু যদি ইন্টারেস্ট ফ্রি সময়ে এই কেনাকাটা করা হয়, তা হলে শুধু মূল্য ধরে দিলেই কেল্লা ফতে।

    নোট বাতিলের পর থেকে ভারতে ক্রেডিট কার্ডের বিপুল চাহিদা বেড়েছে। অজস্র রকমের ক্রেডিট কার্ডও রয়েছে বাজারে। এ বার দেখে নেওয়া যাক, সেই সব কার্ডের ধরন বা রকমফের।

    আরও পড়ুন: এডুকেশন লোনের জন্য কী ভাবে আবেদন করতে হবে? প্রক্রিয়াগুলি দেখে নিন একনজরে--

    সাধারণ উদ্দেশ্য:

    বিভিন্ন ক্রেডিট কার্ড সংস্থা যেমন-- ভিসা, মাস্টারকার্ড ইত্যাদি সংস্থার ট্রেডমার্ক ব্যবহার করে এই কার্ড ইস্যু করে ব্যাঙ্কগুলি। নাম থেকেই পরিষ্কার যে, এগুলো বিভিন্ন শপিং মল, দোকান, রেস্তরাঁ, ওয়েবসাইট বা অনলাইন কেনাকাটার জন্য ব্যবহার করা যায়। আর এই কার্ডের গ্রহণযোগ্যতাও ব্যাপক।

    প্রাইভেট লেবেল:

    এই ধরনের কার্ড সবাই নেয় না। নির্দিষ্ট একটা অথবা দু’টো শপিং মল কিংবা ডিপার্মেন্টাল স্টোরেই কেনাকাটা করা যাবে। ফলে এই ধরনের কার্ডের খুব একটা জনপ্রিয়তা বা চাহিদা নেই।

    প্ল্যাটিনাম-ক্লাসিক-সিগনেচার:

    মাস্টারকার্ড, ভিসা ইত্যাদি যে সব সংস্থার কার্ড ব্যাঙ্কগুলি ইস্যু করে, তারও আবার রকমফের আছে। যেমন-- প্ল্যাটিনাম, ক্লাসিক, সিগনেচার। এক-একটা কার্ডে ঋণের ঊর্ধবসীমা এক-এক রকম। যিনি কার্ডে কেনাকাটায় বেশি খরচ করেন, তাঁর জন্য সিগনেচার কার্ড ভালো। আবার যাঁর খরচ কম, তিনি হয়তো প্ল্যাটিনাম ব্যবহার করে থাকেন। 

    আরও পড়ুন: মাত্র ৫টি স্টেপে করিয়ে নিন e-KYC, না হলে মিলবে না যোজনার টাকা

    কো-ব্র্যান্ডেড ক্রেডিট কার্ড:

    অনেক সময় কোনও কর্পোরেট বা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে জোট বেঁধে কার্ড আনে ব্যাঙ্ক। সাধারণত এই ধরনের কার্ড ব্যবহার করলে বিভিন্ন রকম পয়েন্ট পাওয়া যায়। ওই সব সংস্থার পণ্য কিনলে অথবা পরিষেবা ব্যবহার করলেও বিশেষ ছাড় পাওয়া যায়। তবে এই ধরনের কার্ডের জন্য কড়া গাইডলাইন এনেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। যা মেনে চলতে হয় সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কগুলিকে।

    কর্পোরেট ক্রেডিট কার্ড:

    বেশির ভাগ সময়েই ব্যাঙ্কের বিভিন্ন কর্পোরেট গ্রাহক থাকে। যেমন-- কোনও সংস্থার কর্মীদের বেতন হয় কোনও নির্দিষ্ট ব্যাঙ্কে। এমন ক্ষেত্রে ওই সংস্থার কর্মীদের কার্ড দেয় ওই ব্যাঙ্ক। এটাই কর্পোরেট ক্রেডিট কার্ড নামে পরিচিত।

    অ্যাড-অন কার্ড:

    এই ধরনের ক্রেডিট কার্ড ঋণের ঊর্ধবসীমা ভাগ হয়ে যায়। ধরা যাক, রামবাবুর একটি কার্ড আছে। তিনি স্ত্রীর জন্য অ্যাড-অন কার্ডের আবেদন করলেন। এখন, নিজের কার্ডের পাশাপাশি স্ত্রীর কার্ডের টাকাও রামবাবুকেই মেটাতে হবে। অর্থাৎ অ্যাড-অন কার্ড যাঁর কাছেই থাকুক না-কেন, ধার মেটানোর দায়িত্ব মূল কার্ড মালিকের। একই সঙ্গে দুটো কার্ড হয়েছে বলে ঋণের ঊর্ধবসীমা বাড়বে না বরং ভাগ হয়ে যাবে। অর্থাৎ রামবাবুর ক্রেডিট কার্ডে যদি শোধ না-করে কেনার সীমা থাকে ২ লক্ষ টাকা, তা হলে স্ত্রীর নামে অ্যাড-অন কার্ড নেওয়ার পর তা ৪ লক্ষ হবে না। বরং স্ত্রী যদি অ্যাড-অন কার্ডে ৫০ হাজার টাকার কেনাকাটা করে থাকেন, তা হলে রামবাবুর কার্ডে পড়ে থাকবে দেড় লক্ষ টাকা।           

    ইদানীং ভারতে শপিং ক্রেডিট কার্ড, লাফস্টাইল ক্রেডিট কার্ড, ফুয়েল ক্রেডিট কার্ড, রিওয়ার্ডস ক্রেডিট কার্ড, ক্যাশব্যাক ক্রেডিট কার্ড, ট্রাভেল ক্রেডিট কার্ডের মতো বিভিন্ন ক্যাটেগরির কার্ড জনপ্রিয় হয়েছে। এখানে তেমনই জেন ওয়াইয়ের সব থেকে পছন্দের ১০টি ক্রেডিট কার্ড এবং তার ক্যাটেগরির একটি তালিকা দেওয়া হল।

    ক্রেডিট কার্ডক্যাটেগরি
    ফিন বুস্টার: ইয়েস ব্যাঙ্ক রিওয়ার্ড পয়েন্ট
    ইন্ডাসইন্ড প্ল্যাটিনাম কার্ড ফি ওয়েভার
    ইন্ডাসইন্ড প্ল্যাটিনাম অরা এজ কার্ডলাইফস্টাইল
    সিটি ক্যাশব্যাক কার্ড ক্যাশব্যাক
    সিটি রিওয়ার্ডস কার্ড রিওয়ার্ড
    ইন্ডিয়ান অয়েল সিটি ক্রেডিট কার্ডজ্বালানি
    এইচডিএফসি ডাইনার্স ক্লাব মাইলস কার্ডলাউঞ্জ অ্যাকসেস
    এইচডিএফসি ফ্রিডম কার্ডরিওয়ার্ড পয়েন্ট
    অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক নিও ক্রেডিট কার্ডকেনাকাটা এবং সিনেমা
    এইচএসবিসি প্ল্যাটিনাম ক্রেডিট কার্ডবেড়ানো এবং খাওয়া দাওয়া
    কোটাক পিভিআর গোল্ড ক্রেডিট কার্ড

    সিনেমা

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published:

    Tags: Credit Cards, Credit Cards Benefits

    পরবর্তী খবর