হোম /খবর /ব্যবসা-বাণিজ্য /
অ্যামাজনে যেতে বসেছে প্রায় ২০ হাজার কর্মীর চাকরি, বাদ যাবেন না ম্যানেজাররাও!

বছরের শুরুতেই ছাঁটাই! অ্যামাজনে যেতে বসেছে প্রায় ২০ হাজার কর্মীর চাকরি, বাদ যাবেন না ম্যানেজাররাও!

ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টার কর্মী, টেকনিক্যাল কর্মী, কর্পোরেট একজিকিউটিভ-সহ সমস্ত ক্ষেত্রে ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করে ফেলেছে। বাদ যাবেন না ম্যানেজাররাও।

  • Share this:

#কলকাতা: নতুন বছরের শুরুতেই কি খারাপ খবর আসতে চলেছে! অন্তত তেমনই ইঙ্গিত মিলেছে বিশ্বের অন্যতম বড় বাণিজ্যিক সংস্থার তরফে। জানা গিয়েছে আগামী মাসে প্রায় ২০ হাজার কর্মীর ছাঁটাইয়ের পথে হাঁটতে চলেছে অ্যামাজন। কোভিড অতিমারীর সময় ব্যাপক কর্মী নিয়োগ করেছিল এই রিটেল এবং ক্লাউড কম্পিউটিং সংস্থা। কিন্তু এরই মধ্যে তারা তাদের ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টার কর্মী, টেকনিক্যাল কর্মী, কর্পোরেট একজিকিউটিভ-সহ সমস্ত ক্ষেত্রে ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করে ফেলেছে। বাদ যাবেন না ম্যানেজাররাও।

জানা গিয়েছে, লেভেল ১ থেকে লেভেল ৭ পর্যন্ত স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রায় সমস্ত স্তরের কর্মীরাই এই ছাঁটাইয়ে প্রভাবিত হতে চলেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কিছু কর্মী এই বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: বদলাতে চলেছে হোম লোনের নিয়ম; এক নজরে দেখে নিন সমস্ত খুঁটিনাটি!

এর আগে নভেম্বরের মাঝামাঝি জানা গিয়েছিল, অ্যামাজন ব্যাপক ছাঁটাই করতে চাইছে। সেই প্রথম এ ধরনের খবর প্রকাশ্যে আসে। সে বার মনে করা হয়েছিল কম বেশি ১০ হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করতে পারে অ্যামাজন।

তবে সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত কয়েকদিন ধরে সংস্থার পরিচালকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কর্মীদের কাজের ধরন ও পারফরমেন্সের উপর নজর রাখতে। এই প্রক্রিয়া আসলে প্রায় ২০ হাজার জন কর্মীকে ছাঁটাই করার প্রচেষ্টার অংশ বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: কর্মীদের জন্য বিশাল খবর আসছে নতুন বছরে, পেনশন ও বেতনে বাম্পার বৃদ্ধি!

এই বিশ হাজার কর্মচারী আসলে কর্পোরেট কর্মীদের প্রায় ৬ শতাংশ। অ্যামাজনের মোট ১.৫ মিলিয়ন কর্মীর প্রায় ১.৩ শতাংশ। এর মধ্যে রয়েছেন সারা বিশ্বের ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টারের কর্মীরা এবং চুক্তিভিত্তির কর্মীরাও৷

কর্পোরেট কর্মীদের বলা হয়েছে, কর্মচারীরা তাদের কোম্পানির চুক্তি অনুসারে ২৪ ঘন্টার নোটিশ এবং নির্দিষ্ট বেতন পাবেন। এ ধরনের খবর প্রকাশ পাওয়া পরই সংস্থার কর্মীদের মধ্যে আতঙ্কের বাতাবরণ তৈরি হয়েছে।

সংস্থার ইতিহাসে এই প্রথম এত বড় কর্মী ছাঁটাই—

সূত্রের খবর, এই ছাঁটাই সংক্রান্ত বিষয়ে কোনও নির্দিষ্ট বিভাগ বা কোনও নির্দিষ্ট স্থানের উল্লেখ করা হয়নি; এটা সামগ্রিক ভাবে ব্যবসা জুড়ে করা হবে। সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি বলেন, ‘আমাদের বলা হয়েছে, অতিমারী চলাকালীন অতিরিক্ত নিয়োগ এবং কোম্পানির আর্থিক লাভ কমার প্রবণতার কারণেই খরচ কমানোর দিকে জোর দেওয়া হচ্ছে।’

গত ১৭ নভেম্বর অ্যামাজনের সিইও অ্যান্ডি জ্যাসি, কর্মচারীদের কাছে এক খোলা চিঠি পাঠিয়ে জানিয়েছন, ছাঁটাই হচ্ছেই। যদিও সেখানে তিনি নির্দিষ্ট সংখ্যক কর্মচারীকে ছাঁটাই করার কথা উল্লেখ করেননি।

জ্যাসি লিখেছিলেন, ‘আমাদের বার্ষিক পরিকল্পনার প্রক্রিয়াটি নতুন বছরে প্রসারিত হবে। যার অর্থ আরও কিছু ক্ষেত্রে ছাঁটাই হবে, সেটার সামঞ্জস্য বজায় রাখতে হবে। সেই সিদ্ধান্তগুলি ২০২৩ সালের শুরুর দিকে কর্মচারী এবং সংস্থাকে জানান হবে।’

জ্যাসি উল্লেখ করেছেন, সংস্থা ইতিমধ্যেই ডিভাইস এবং বই ব্যবসায় ছাঁটাই করেছে। পিপল, এক্সপেরিয়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (পিএক্সটি) সংস্থার কিছু কর্মচারীকে স্বেচ্ছাবসরের প্রস্তাব দেওয়া হতে পারে। এ দিকে জানা গিয়েছে যে অ্যামাজনের রোবোটিক্স বিভাগের কর্মীদের ইতিমধ্যেই ছাঁটাই করা হয়েছে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Amazon, Employees Layoff