প্রযুক্তি

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

ক্লোনিং করে ভারতে এতদিন চলছিল এই ৪৭টি ব্যান অ্যাপ! কিভাবে কাজ করে এই অ্যাপগুলো জেনে নিন

ক্লোনিং করে ভারতে এতদিন চলছিল এই ৪৭টি ব্যান অ্যাপ! কিভাবে কাজ করে এই অ্যাপগুলো জেনে নিন

ফের ভারতের ডিজিটাল স্ট্রাইক, ৫৯টি ব্যান অ্যাপের ৪৭টি ক্লোন অ্যাপ নিষিদ্ধ করল সরকার

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আগেই ৫৯টি ব্যান হয়েছিল, আজ সোমবার আরও ৪৭টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করল সরকার। এই ৪৭টি চিনা অ্যাপের সুরক্ষা ও গোপনীয়তা যাচাই করার পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে টেলিকম মন্ত্রক। বিভিন্ন রিপোর্ট অনুযায়ী, আগে নিষিদ্ধ হওয়া ৫৯টি অ্যাপের ক্লোন হিসাবে কাজ করছিল এই ৪৭টি অ্যাপ। আগের বারের মতই তথ্য সুরক্ষা আইনের ধারা 69A প্রয়োগ করে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত-চিন সেনার সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনার শহিদ হওয়ার ঘটনায় উত্তপ্ত আবহে গত ২৯ জুন টিকটক UC Browser, CamScanner-সহ ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে ছিল ভারত সরকার। সিদ্ধান্তটি ঘোষণার পরপরই সরকার ওই সমস্ত অ্যাপ এবং সম্পর্কিত ওয়েবসাইটগুলিতে অ্যাক্সেস বন্ধ করে দেয়। কয়েকদিন পরেই অ্যাপল অ্যাপ স্টোর এবং গুগল প্লে স্টোর থেকে নিষিদ্ধ অ্যাপ্লিকেশনগুলি অপসারণ করা হয়।

নিষিদ্ধ হওয়ার পরেও, এই অ্যাপগুলির মধ্যে ৪৭টি অ্যাপ ক্লোনিংয়ের পথটি গ্রহণ করে ভারতে চলছিল। টিকটকের বদলে চলছিল TikTok Lite, ক্যামস্ক্যানারের জায়গায় চলছিল Camscanner Advance। এছাড়াও এই তালিকায় রয়েছে Helo Lite, Shareit Lite, Bigo LIVE lite, VFY lite-এর মতো অ্যাপ। এতদিনএই অ্যাপগুলি ব্যবহার করতে পারছিলেন ভারতীয়রা কিন্তু নিষিদ্ধ হওয়ার পর আর পারবেন না।

কিছুদিন আগেই তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক থেকে জানানো হয়ে ছিল যে, যদি সরাসরি অথবা অন্য কোনও ভাবে এই ধরনের কোনও অ্যাপ ভারতে চালানো সম্ভব হয়, তাহলে সেই অ্যাপের বিরুদ্ধে টেকনোলজি আইন এবং অন্যান্য আইনে মামলা রুজু করা হবে। সেই অ্যাপের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে ভারত সরকার। তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক প্রত্যেকটি কোম্পানিগুলিকে চিঠি লিখে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়ে ছিল যে এই তালিকায় থাকা কোনও অ্যাপ যদি ভারত সরকারের এই রায় লঙ্ঘন করার চেষ্টা করে, তাহলে সেই অ্যাপ্লিকেশনের বিরুদ্ধে কড়া আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ভারত সরকার।

কী এই ক্লোনিং অ্যাপ ?

ক্লোন অ্যাপ দেখতে একদম ওরিজিনাল অ্যাপের মতোই দেখতে, আর এদের ফাংশনও ওরিজিনাল অ্যাপের মতো কাজ করে। অনেকবার কোম্পানি অফিসিয়ালি নিজের অ্যাপের লাইট ভার্সন লঞ্চ করে থাকে। যা ফোনের স্টোরেজের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়। বেশির ব্যাগ সময় এই অ্যাপগুলির সাইজ কম হয় আর ওরিজিনাল অ্যাপের থেকে কিছু ফিচার কম থাকে। কিন্তু দেখতে আর ব্যবহারের ক্ষেত্রে অ্যাপগুলি একদম ওরিজিনাল অ্যাপের মতো।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: July 27, 2020, 9:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर