• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS SANIA MIRZA PARTNERING ANKITA RAINA CONFIDENT OF PUTTING ON A GOOD SHOW IN TOKYO OLYMPICS RRC

প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে চারটে অলিম্পিকস খেলবেন সানিয়া মির্জা

অঙ্কিতাকে নিয়ে টোকিওতে পদক জয় অসম্ভব নয় বলছেন সানিয়া

সানিয়া মনে করছেন সেটা খুব একটা বড় সমস্যা হবে না। কারণ নিজের অ্যাকাডেমিতে অঙ্কিতাকে নিয়ে গত কয়েকদিন অনুশীলন করেছেন। শক্তি এবং দুর্বলতা বোঝার চেষ্টা করেছেন

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: এই মুহূর্তে শারীরিক এবং মানসিক দিক থেকে নিজেকে সম্পূর্ণ ফিট মনে করছেন সানিয়া মির্জা। ভারতের টেনিস কুইন টোকিওতে অংশগ্রহণ করবেন শারীরিক সক্ষমতার তুঙ্গে থেকে। ডাবলস পার্টনার হিসেবে থাকবেন অঙ্কিতা রায়না। দুজনেই কয়েকদিন আগে উইম্বলডন খেলেছেন, কিন্তু আলাদা পার্টনার নিয়ে। সানিয়া মনে করছেন সেটা খুব একটা বড় সমস্যা হবে না। কারণ নিজের অ্যাকাডেমিতে অঙ্কিতাকে নিয়ে গত কয়েকদিন অনুশীলন করেছেন। শক্তি এবং দুর্বলতা বোঝার চেষ্টা করেছেন।

    দুজনে প্রতিমুহূর্তে আলোচনা করে গেমপ্ল্যান এবং স্ট্র্যাটিজি চূড়ান্ত করেছেন। সানিয়া ভারতের ইতিহাসে প্রথম মহিলা অ্যাথলিট যিনি চারটি অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করতে চলেছেন। বয়স এই মুহূর্তে ৩৪। তবে পরিষ্কার জানিয়েছেন যদি সেরকম বুঝতেন নিজেই অংশ নিতেন না। কারণ শুধু নাম দেওয়ার জন্য তিনি অলিম্পিকসে যাচ্ছেন না। পদক জয় আসল লক্ষ্য।

    পাঁচ বছর আগে রিওতে মিক্সড ডাবলস পার্টনার রোহন বোপান্নাকে সঙ্গে নিয়ে অল্পের জন্য পদক হাতছাড়া করেছিলেন। সেই আক্ষেপ আজও রয়ে গিয়েছে। টেনিস সুন্দরী মনে করেন টোকিওতে নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে পদক জয় অসম্ভব নয়। অঙ্কিতা ডাবলস পার্টনার হিসেবে যথেষ্ট ভাল। তালিকায় ৯৫ নম্বরে রয়েছেন। সানিয়ার নম্বর ৯।

    সানিয়া জানিয়েছেন তিনি সন্তানের মা হয়েছেন, তাছাড়াও চোট থেকে সেরে ওঠার জন্য তিনটি অস্ত্রোপচার হয়েছে। আর টেনিসের মত খেলায় বয়স বাড়লে প্রভাব পড়ে। কিন্তু নিজের শরীরকে ভাল করে চেনেন তিনি। বেশ ঝরঝরে মনে হচ্ছে নিজেকে। তবে কোর্টে নেমে নিজেকে আরও ভাল করে বুঝতে পারবেন। এটাই তাঁর শেষ অলিম্পিকস। আর শেষ অলিম্পিকেই নিজের প্রথম পদকের জন্য লড়বেন সানিয়া।

    উল্লেখ্য কয়েকদিন আগেই সম্মানজনক আরব আমিরাতের গোল্ডেন ভিসা পেয়েছেন সানিয়া। শাহরুখ খান এবং সঞ্জয় দত্তের পর তিনি ভারত থেকে তৃতীয় ব্যক্তিত্ব। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, নোভাক জোকোভিচ এবং ফ্রান্সের পল পোগবার কাছে রয়েছে এই ভিসা।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: