• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • তমলুক আরপিএফের তৎপরতায় জীবন ফিরে পেল গৃহবধূ চন্দনা বাগদী, দেখুন ভিডিও...

তমলুক আরপিএফের তৎপরতায় জীবন ফিরে পেল গৃহবধূ চন্দনা বাগদী, দেখুন ভিডিও...

মাস্ক ছাড়া কোন যাত্রীকে গাড়িতে না তোলেন নির্দেশ প্রশাসনের। ভগবানপুর নতুন রাস্তার মোড়ের সমস্ত টোটো ও অটোতে লাগানো হল নো মাস্ক,  নো সার্ভিস পোস্টার।

মাস্ক ছাড়া কোন যাত্রীকে গাড়িতে না তোলেন নির্দেশ প্রশাসনের। ভগবানপুর নতুন রাস্তার মোড়ের সমস্ত টোটো ও অটোতে লাগানো হল নো মাস্ক, নো সার্ভিস পোস্টার।

মাস্ক ছাড়া কোন যাত্রীকে গাড়িতে না তোলেন নির্দেশ প্রশাসনের। ভগবানপুর নতুন রাস্তার মোড়ের সমস্ত টোটো ও অটোতে লাগানো হল নো মাস্ক, নো সার্ভিস পোস্টার।

  • Share this:

    তমলুক রেল পুলিশের তৎপরতায় এক মহিলা উদ্ধার হল।

    তমলুক আরপিএফের তৎপরতায় গৃহবধূ চন্দনা বাগদী জীবন ফিরে পেল। দঃ ২৪ পরগনার জয়নগর থানা এলাকার এক গরীব বাড়ির গৃহবধূ চন্দনা বাগদী সর্দার। স্বামী-স্ত্রী দুজনেই কলকাতার সল্ট লেকে একটি কারখানায় দিন মজুরের কাজ করত কিন্তু লক ডাউনের ফলে গত বছর কাজ খুইয়ে বাড়ীতে কোনওরকমে দিন কাটত। এই নিয়ে প্রতিদিন পরিবারে অশান্তি লেগে থাকত। বাড়ির সাথে ঝগড়া করে গত সোমবার দিন একলা বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসে। জয়নগর থেকে মাল গাড়িতে বারইপুর পর্যন্ত আসার পর বারইপুর থেকে অন্য গাড়ি ধরে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়া পৌছায়। পাঁশকুড়া থেকে হলদিয়া গামী মালগাড়িতে উঠে পড়ে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যে নাগাদ পাঁশকুড়া হলদিয়া শাখার রাজগোদা স্টেশানে নেমে পড়ে। স্টেশান সংলগ্ন একটি ঝোপের আড়ালে রাত্রি কাটায়।

    পরদিন সকাল বেলায় রেল পুলিশের নজরে এলে রেল পুলিশ তাকে উদ্ধার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারে সে পরিবারের সাথে ঝগড়া বিবাদ করে বেরিয়ে এসেছে, সে মরতে চায়। বছর ত্রিরিশের এই মহিলার সাথে একটি ব্যাগে জামা কাপড় আধার ও রেশন কার্ড ছিল। মহিলা পুলিশ সেগুলি স্যানিটাইজ করে উদ্ধার করে বাড়ির সাথে যোগাযোগ করলে বাড়ির লোক আর্থিক সংকট ও ঐ এলাকায় লকডাউনের ফলে আসতে না পারায় তমলুক মহকুমা শাসক জেলা সমাজ কল্যান আধিকারিকের নির্দেশে নিমতৌড়ী তমলুক উন্নয়ন সমিতির হোমে সুরক্ষিত অবস্থায় আশ্রয় হয় চন্দনা বাগদীর।

    হোমের কাউন্সিলার কাউন্সিলিং করে জানতে পারে নিঃসন্তান এই মহিলা কোলকাতা সল্টলেকে দিন মজুরের কাজ করার সময় আলাপ হয় জয়নগরের বাসিন্দা রবীন সর্দারের সঙ্গে, তারপর বিবাহ ও লক ডাউনে গত বছর কাজ হারিয়ে সাংসারিক আশান্তি।

    হোমের সাধারন সম্পাদক যোগেশ সামন্ত জানান রেল পুলিশের এই তৎপরতায় একজন গৃহবধূ সুরক্ষিত অবস্থায় আমাদের হোমে ঠাঁই পেল সেই জন্য তমলুক পুলিশ কে ধন্যবাদ জানাই। বর্তমান নিমতৌড়ী তমলুক উন্নয়ন সমিতির হোম আসোলেশনে রয়েছে।স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে, তমলুক ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে করোনা পরীক্ষা করা হয়। বাড়ির লোকের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। বাড়ির লোক এলে আইনপদ্ধতি মেনে বাড়ির লোকের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

    নো মাস্ক, নো সার্ভিস পোস্টার লাগানো হল টোটো, অটো ও বাসে।

    ভগবানপুর, পূর্ব মেদিনীপুর:   করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ ভারতবর্ষ জুড়ে ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঢুকতে তৎপর কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের নির্দেশে পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি জেলার প্রশাসন তৎপর করোনাভাইরাস এর  সংক্রমণ রোধ করতে। রাজ্য সরকারের যারা বিভিন্ন নির্দেশিকা প্রতিটি জেলায় লাগু হয়েছে। বন্ধ হয়েছে  গণপরিবহনের অন্যতম মাধ্যম লোকাল ট্রেন। কিন্তু চলছে বাস টোটো অটো সহ অন্যান্য পরিবহন মাধ্যম।

    পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর ১ ব্লকের ভগবানপুর পঞ্চায়েত তৎপদ কোন যাত্রী মাছ ছাড়া বাস টোটো অটো সহ অন্যান্য গণপরিবহন মাধ্যমেেে যাতায়াত না করে। তাই বিভিন্ন বাস স্টপেজ দাঁড়িয়ে থাকা বাস টোটো অটোতে প্রশাসনের তরফ থেকে লাগানো হয়েছে নো মাস্ক নো সার্ভিসের পোস্টার।

    মাস্ক ছাড়া কোন যাত্রীকে গাড়িতে না তোলেন নির্দেশ প্রশাসনের। ভগবানপুর নতুন রাস্তার মোড়ের সমস্ত টোটো ও অটোতে লাগানো হল নো মাস্ক,  নো সার্ভিস পোস্টার। ভগবানপুর গ্রাম পঞ্চায়েত ও ভগবানপুর ব্লক প্রশাসনের উদ্যোগে হয় এই অভিযান। পুরো কর্মসূচির নেতৃত্ব দেন ভগবানপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সচিব সুকুমার রায় সহ সরকারি আধিকারিক সুরজিৎ সরকার ও দেবাশীষ কালী। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ব্লকের গ্রামীণ সম্পদ কর্মী লক্ষীকান্ত শীট, সীমা মন্ডল, গীতিকা ভট্টাচার্য। ছিলেন ভিসিটি শঙ্কর সিং ও গ্রামীণ সম্পদ কর্মীদের সুপারভাইজার দিলীপ কুমার মাইতি।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: