ISL 2020: ভারতীয় ফুটবলে ইতিহাস, আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে এস সি ইস্টবেঙ্গলকে ২-০ গোলে হারিয়ে জিতল এটিকে মোহনবাগান

ধুন্ধুমার আইএসএলের প্রথম ডার্বি৷ ২ টি ম্যাচের ২ টি জিতে লিগ টেবলের শীর্ষে এটিকে মোহনবাগান৷

ধুন্ধুমার আইএসএলের প্রথম ডার্বি৷ ২ টি ম্যাচের ২ টি জিতে লিগ টেবলের শীর্ষে এটিকে মোহনবাগান৷

  • Share this:

    #গোয়া : রয় কৃষ্ণার দুরন্ত গোলে আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে এগিয়ে গিয়েছিল এটিকে মোহনবাগান৷ আর মনভীরের গোলে সেই স্কোরলাইনকে ২-০ গোল করে দলকে এনে দিল জয় ৷ আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে ২-০ গোলে জিতল এটিকে মোহনবাগান৷ অন্যদিকে লড়েও হারল এসসি ইস্টবেঙ্গল৷

    কলকাতা ডার্বি এবার নতুন মোড়কে৷ চেনা মোহনবাগান বনাম ইস্টবেঙ্গলের লড়াইতে এখন অন্য নাম৷ এটিকে মোহনবাগান বনাম এসসি ইস্টবেঙ্গলের লড়াইতে এদিন অন্যরকম ছিল আরও অনেক কিছু ৷

    গোয়ার সাগর পাড়ে চেনা সম্মানের লড়াইতে মুখোমুখি হয়েছিল ATK Mohun Bagan এবং SC East Bengal ৷ মাঠে লক্ষ ফ্যানেদের উপস্থিতি গর্জন এগুলো কিছুই ছিল না৷ তবুও করোনা অতিমারির কালে ভারতীয় ফুটবলে এদিন রচিত হল নতুন ইতিহাস৷

    এই মরশুমে আগে থেকেই যেখানে ঠিক হয়ে গিয়েছিল এটিকে-র সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে খেলছে মোহনবাগান৷ কিন্তু ইস্টবেঙ্গলের খেলাটা অনেকটা অনিশ্চিত ছিল ৷ সেই অনিশ্চয়তা কাটিয়ে অবেশেষ নতুন মঞ্চে নতুন রূপে কলকাতা ডার্বি৷ এদিন শুরু থেকে আক্রমণাত্মক শুরু করেছিল ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান দুপক্ষই৷ প্রথম ম্যাচে জয় দিয়ে অভিযান শুরু করলেও এদিনের ম্যাচে তিনটি পরিবর্তন করেছিল মোহনবাগান৷

    রবি ফাউলারের ফুটবল মস্তিষ্ক বনাম অ্যান্তেনিও লোপেজ হাবাসের বুদ্ধির লড়াইতে হাবাস এদিন একটু রক্ষণাত্মক খেলায় জোর দিয়েছিলেন৷ অন্যদিকে ওপেন আক্রমণে ভরসা ছিল ইস্টবেঙ্গলের৷ এদিনে ম্যাচের আট মিনিটেই চমৎকার সুযোগ পেয়েছিলেন অ্যান্থনি পিলিংটন ৷ কিন্তু ভাগ্য সাথ না দেওয়ায় শট নেওয়ার মুহূর্তে পা আটকে যাওয়ায় তিনি অপূর্ব সুযোগকে গোলে কনভার্ট করতে পারেননি৷

    ১২ মিনিটে বাগানের প্রথম ফ্রি কিক কার্যকরী হয়নি এরপর প্রবীর দাসের দুরন্ত ক্রসকে প্রতিহত করেন লাল হলুদ গোলরক্ষক দেবজিৎ মজুমদার৷ এটা ছিল এদিনের দেবজিতের দুরন্ত পারফরম্যান্সের ট্রেলর৷ এরপর তিনি একের পর এক বাগান আক্রমণ প্রতিহত করেন৷ এদিন প্রথমার্ধে ইস্টবেঙ্গলের পাসিং ফুটবল চাপে রেখেছিল বাগানকে৷ নিখুঁত পাস ও একাধিক আক্রমণে তারা ছিল দারুণ ৷ কিন্তু এদিন বাগানের রক্ষণ যতটা ভালো তৈরি ছিল তাতে ইস্টবেঙ্গলের আক্রমণ মাঝমাঠেই বারেবারে প্রতিহত হয়ে যাচ্ছিল ৷

    খেলার ২২ মিনিটে বাগানের হ্যাভিয়ের ফার্নান্ডেজকে ট্যাকেল করার জন্য রেফারি বলবন্তকে হলুদ কার্ড দেখান৷ এদিন প্রথমার্ধে বাগানের হয়ে একাধিক আক্রমণ তৈরি করে দেন দারুণ ছন্দে থাকা প্রবীর দাস৷ অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গলের মশালের জ্যোতি দেখা যাচ্ছিল পিলকিংটনের পায়ে৷

    ৩৬ মিনিটে হার্নান্ডেজের জোরালো শট অসম্ভব দক্ষতায় আটকে দেন দেবজিৎ৷ দারুণ লড়াইতে প্রথমার্ধ শেষ হয় ইস্টবেঙ্গল বনাম মোহনবাগান প্রথম আইএসএল ডার্বি৷

    দ্বিতীয়ার্ধে নেমেই ৪৯ মিনিটে ডেডলক সিচুয়েশন ভাঙে মোহনবাগান৷ হাভি হার্নান্ডেজের বাড়ানো বল লাল হলুদ জালে জড়িয়ে দিতে কোনও ভুল করেননি রয়কৃষ্ণা৷ তিনি গোল করে দলকে এগিয়ে দেন৷ বাম পায়ের ইনস্টেপে গোল করে দেন তিনি ৷ ১-০ গোলে এগিয়ে যায় মোহনবাগান৷

    মোহনবাগান ম্যাচে এগিয়ে যাবার পরে খেলায় ঝাঁঝ ফেরায় ইস্টবেঙ্গল৷ একের পর এক আক্রমণ তুলে আনে তারা৷ তবে বাগান রক্ষণের বুদ্ধিদীপ্ত খেলায় সেভাবে চাপ পড়েনি বাগান গোলরক্ষক অরিন্দম ভট্টাচার্যের ওপর৷ কিন্তু ৮১ মিনিটে অ্যান্থনি পিলিংটনের  সুনির্দিষ্ট গোলার মতো শট আটকে দেন অরিন্দম৷ একদিকে যেখানে এদিন লালগলুদের দেবজিতকে অসংখ্য চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছিল সেখানে মোহনবাগানের অরিন্দম অনেক কম চ্যালেঞ্জে ওপেন হয়েছিলেন৷

    অন্যদিকে ঝটিতি ওঠা কাউন্টার অ্যাটাকে ৮৫ মিনিটে মনভীর দুরন্ত গোল করে মোহনবাগানকে ২-০ গোলে এগিয়ে দেন৷ এদিন ৬৪ মিনিটে তাঁকে পরিবর্ত হিসেবে নামিয়েছিলেন বাগান কোচ অ্যান্তোনিও হাবাস ৷ সেই মর্যাদার দাম দেন তিনি ৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: