রাত পোহালেই অন্তিম দফার নির্বাচন, জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের রওনা দিলেন ভোট কর্মীরা

রাত পোহালেই অন্তিম দফার নির্বাচন, জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের রওনা দিলেন ভোট কর্মীরা
  • Share this:

#জয়নগর: জয়নগর কেন্দ্রের রওনা হলেন ভোট কর্মীরা ৷ শনিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার জয়নগর(এসসি) লোকসভা কেন্দ্রের ক্যানিং থানার বঙ্কিম সরদার কলেজ ডিসিআরসি সেন্টার থেকে ভোটের সমস্ত সরঞ্জাম নিয়ে নিজেদের বুথ কেন্দ্রের দিকে রওনা দিলেন ভোট কর্মীরা। পাশাপাশি জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রে গত ১৭ মে গোসাবা(এসসি) বিধানসভার প্রত্যন্ত দ্বীপে ভোট করতে একদিন আগেই রওনা হয় ভোট কর্মীরা। এই কেন্দ্রে আগামী ১৯ মে নির্বাচন।ক্যানিং পূর্ব ও পশ্চিম, বাসন্তী, গোসাবা, কুলতলি, জয়নগর, মগরাহাট পূর্ব বিধানসভা গুলি নিয়ে গঠিত জয়নগর(এসসি) লোকসভা কেন্দ্রটি।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে এই লোকসভা কেন্দ্রে এবার ভোটার সংখ্যা ১৬,৪৫,২০৩ জন। আর পোলিং স্টেশন ১৮১০ টি। গত শুক্রবার গোসাবা বিধানসভায় ২৫৭ টি বুথে সুন্দরবনের প্রত্যন্ত দ্বীপে জলে পথে পৌঁছাতে হয় ভোট কর্মীদের। তাই একদিন আগে ভোট করতে রওনা দিলেন ভোট কর্মীরা জল পথে লঞ্চে ও ভুটভুটিতে, ছোট বোর্ডে করে। সুন্দরবনের আগাধ অরণ্য অসংখ্য নদী সংস্থান এই অঞ্চলকে সর্বত্র ভীষণ ও ভীতিপ্রদ করে রেখেছে।তারও চেয়ে ভয়ঙ্কর করে রেখেছে জলে কুমির ডাঙ্গায় বাঘ। ভারত ভূখন্ডের সুন্দরবনের ১০২ টি দ্বীপের মধ্যে বর্তমানে ৫৪ টি দ্বীপে গড়ে উঠেছে মানুষের বসবাস।আর এই দ্বীপ গুলিতে বর্তমানে ৫০ লক্ষ মানুষের বসবাস।৪৮ টি দ্বীপ সংরক্ষিত বনাঞ্চল হিসাবে সুন্দরবন তার নিজের অবস্থান ধরে রাখতে পেরেছে।৩৫০০ কিমি নদী বাঁধ ঘিরে রেখেছে সুন্দরবনকে। আর এই জয়নগর(এসসি) লোকসভা কেন্দ্রটি সুন্দরবন জুড়ে। এবারের নির্বাচনে এই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী প্রতিমা মন্ডল,বিজেপির আশোক কান্ডারি, আরএসপি সুভাষ নস্কর,কংগ্রেসের তপন মন্ডল।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিল তৃণমূলের প্রার্থী প্রতিমা মন্ডল। এবারে চতুর্থমুখী লড়াই।তাই জয়ের হাসিটা কে হাসবে তা সব জানা যাবে আগামী ২৩ মে। এদিকে সপ্তদশ লোকসভার ভোটের এই উৎসবে সুন্দরবনের জয়নগর লোকসভা কেন্দ্রের প্রত্যন্ত দ্বীপে ভোট করতে যাচ্ছেন ভোট কর্মীরা।তাই রওনা হলো ভোট কর্মীরা দল ভোট করতে রওনা হয়ে গেলেন।সুন্দরবনের গোসাবার কুমিরমারী, ছোটমোল্লাখালী ,আমতলি ,বালি,লাহিড়ীপুর, সোনাগাঁ, সাতজেলিয়া সহ এই লোকসভা কেন্দ্রে ১৮১০ টি বুথ।তবে এর মধ্য গোসাবায় ২৫৭ টি বুথ এক দিন আগে ভোট কর্মীরা না পৌঁছালে ভোট করা সম্ভব নয়।আর তাই গত ১৭ মে লঞ্চ, ভুটভুটি,ছোট বোর্ড সহযোগে ভোট কর্মীরা রওনা হয়েছেন যে যার নির্দিষ্ট বুথে। সুন্দরবনের গোসাবার ডিসিআরসি সেন্টারে ভোট কর্মীরা এলেন মগরাহাট, জীবনতলা সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ট্রেন করে।তারপর বাস এরপর নৌকায় করে নদী পেরিয়ে গোসাবায় পৌঁছাছেন।প্রখর তাপ আর রৌদ্র কে উপেক্ষা করে গনতন্ত্রের এই উৎসবে সামিল হয়েছেন তারা।কারোর হাতে ভিভিপ্যাড তো কারোর হাতে ভোটের অন্যান্য সামগ্রী। পরের দিন বঙ্কিমচন্দ্র সরদার কলেজের ডিসিআরসি সেন্টার থেকে ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে নির্দিষ্ট ভোট গ্রহণ কেন্দ্রের দিকে বাকী বুথ গুলিতে ভোট কর্মীরা রওনা দিলেন ।

First published: 03:57:07 PM May 18, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर