West Bengl Election Results 2021: নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও বিজয় উৎসব! এফআইআরের নির্দেশ কমিশনের

West Bengl Election Results 2021: নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও বিজয় উৎসব! এফআইআরের নির্দেশ কমিশনের

ইতিমধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআরের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

ইতিমধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআরের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

  • Share this:

    #কলকাতা:

    করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল অবস্থা গোটা দেশের। করোনা মহামারীর মধ্যে অবশ্য দেশের পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে। আজ ভোট গণনার দিন নির্বাচন কমিশন আগে থেকেই সবরকম বিজয় মিছিলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। কিন্তু প্রিয় দলের জয়ের পর সমর্থকদের আবেগ ধরে রাখা মুশকিল। তাঁরা রাস্তায় নেমে পড়েছেন আনন্দ উৎসবের জন্য। সকাল থেকেই গণনা পর্ব যত এগিয়েছে, ভোটে এগিয়ে থাকা দলের কর্মী-সমর্থকদের রাস্তায় জমায়েত বেড়েছে ততই। তাতেই যাবতীয় বিতর্ক তৈরি হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও অসম, তামিলনাড়ু, কেরালায় বিধানসভা নির্বাচন হয়েছে। পাঁচ রাজ্যেই কোভিড বিধির তোয়াক্কা না করা কর্মী-সমর্থকদের কাণ্ড-কারখানা দেখে বেজায় চটেছেন নির্বাচন কমিশনের কর্তারা।

    ইতিমধ্যে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআরের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। চারটি রাজ্য ও একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মুখ্য সচিবদের অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআই করার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। কিছুদিন আগেই নির্বাচন কমিশনকে ভর্তসনা করেছিল মাদ্রাজ হাইকোর্ট। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় কমিশনের কর্তাদের তিরস্কার করে জানিয়েছিলেন, দেশের করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করার জন্য নির্বাচন কমিশন দায়ী। এমনকী কমিশনের কর্তাদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন মাদ্রাজ হাইকোর্টের এমন মন্তব্যের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। আদালতের এমন মন্তব্যকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে কমিশন। সেদিন মাদ্রাজ হাইকোর্টের তরফে নির্বাচন কমিশনকে সতর্ক করা হয়েছিল, ভোট গণনার দিন যেন কোনওভাবেই কোভিড বিধির দফারফা না হয়! কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল উল্টো চিত্র। বিভিন্ন জায়গায় বিজয়ী দলের কর্মী-সমর্থকদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। নিজেদের মধ্যে আবির খেললেন সমর্থকরা।

    অনেকেরই মুখে মাস্ক ছিল না। কারও কারও আবার মাস্ক থুতনির নিচে নেমে গিয়েছিল। গত ২৪ ঘন্টায় সারা দেশে করোনায় মৃতের হার রেকর্ড করেছে। এমন পরিস্থিতিতে বিজয়োৎসব হলে মহামারী আরো মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এই আশঙ্কায় আদালত কমিশনকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। গণনার দিন যাতে কোনোভাবেই কোনো বিজয়মিছিল বা জামায়াত না হয়, সেই ব্যাপারেও রীতিমতো বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল কমিশন। কিন্তু শেষমেশ গণনার দিনও নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা কাজে দিল না। আবেগ ধরে রাখতে পারলেন না বিজয়ী দলের কর্মী সমর্থকরা। ফলে আগামী দিনে এই আবেগের জন্য বড়সড় দাম দিতে হতে পারে সবাইকে।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর