corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আতঙ্ক: দোল ফাগুনে ফাগ উড়ল না শিল্পশহর দুর্গাপুরে

করোনা আতঙ্ক: দোল ফাগুনে ফাগ উড়ল না শিল্পশহর দুর্গাপুরে

রাস্তায় পিচকারি তাক করে থাকা শিশু কিশোরদের দেখা নেই।

  • Share this:

#দুর্গাপুর: দোল ফাগুনে ফাগ উড়ল না শিল্প শহর দুর্গাপুরে। দেখা গেল না রঙের বাহুল্য। রাস্তায় পিচকারি তাক করে থাকা শিশু কিশোরদের দেখা নেই। নেই জল বেলুন, জল রঙ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বসন্তকে আবাহন করলেন দুর্গাপুরের বাসিন্দারা। দুর্গাপুরের প্রান কেন্দ্র সিটি সেন্টার, এ জোন, বি জোন সর্বত্র একই চিত্র। লোক না আসায় অনেক জায়গায় দোলের উৎসব বাতিলও করা হয়েছে। অনেক জায়গায় তা পালিত হল নমো নমো করে। তবে জমজমাট অনুষ্ঠান হল চতুরঙ্গের। ওরে ভাই ফাগুন লেগেছে বনে বনে কিংবা ফাগুন হাওয়ায় হাওয়ায় গানে গলা মেলালেন অনেকেই। সবশেষে হল সমবেত নৃত্য। রাঙিয়ে দিয়ে যাও যাও যাওয়ার আগে। তাতে মন রঙিন হল ভাবে। আবির তখনও প্রায় ব্রাত্যই রইলো। এ শহরে এবার দোল ফাগুনের আতিশয্যে থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সচেতনতার প্রচার চলছে মোবাইলের রিং টোনে, ফ্লেক্স, ব্যানার, লিফলেটে। সেসবের জেরে মারণ করোনা ভাইরাসের বিষয়ে কম বেশি সতর্ক সকলেই। সেই সতর্কতার জন্যই আবির এবং জল রঙকে দূরে সরিয়ে রাখলেন দুর্গাপুরের বাসিন্দারা। বাড়ির বাইরে পা রাখলেন না অনেকেই। ছোটদের হাতেও এবার উঠলো না পিচকারি। মুখোসের আড়াল থেকে জল বেলুন ছোঁড়ার আনন্দ এবার মাটি হল ছোটদের।

বাসিন্দারা বলছেন, এই সুগন্ধি বাহারি আবির আসছে চিন থেকে। রঙ পিচকারি সবই সেখানে তৈরি। তার সঙ্গে যে করোনা ভাইরাস মিশে নাই কে বলতে পারে। তাই এবার আবির বা রঙের ব্যবহার থেকে দূরে থাকা। বেঁচে থাকলে আগামী দিনে অনেক রঙ খেলা যাবে। তবে বসন্তের এই দিনে নিজেদের গৃহবন্দি করে যাখতে চাননি অনেকেই। তাঁরা যোগ দিয়ে ছিলেন চতুরঙ্গেয বসন্ত উৎসবে। নানান রঙের পোশাকে সেজে মাঠে এসেছিলেন অনেকেই। উঠলো দেদার সেলফি। একের পর এক বসন্ত বরণের নাচে গানে কবিতায় পালিত হল দোল ফাগুন। ফাগ থাকলো। তবে তা থাকলো নিমিত্ত হয়েই। কেউ কপালে আঁকলেন আবিরের তিলক। কেউ আলতো ভাবে ঠেকিয়ে দিলেন গালে। আবিরের ব্যবহার বলতে এটুকুই। এবার এটুকুতেই মাত্রা টানলো দুর্গাপুর। শুধু দুর্গাপুর শহর নয়, বেনাচিতি মুচিপাড়া, ভিড়িঙ্গি মোড়, পানাগড় বাজার সর্বত্রই এক ছবি। রাস্তা ঘাট ফাঁকা। ঘর থেকে বের না হয়ে আবির এড়ালেন অনেকেই। অন্যান্যবার পথ চলতি বাসিন্দাদের রাঙিয়ে দেওয়ার হিড়িক পড়ে যায়। সবার রঙে রঙ মেশানোর সেই উন্মাদনার চির পরিচিত ছবির বাইরেই থেকে গেল এবারের দোল ফাগুন।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: March 9, 2020, 4:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर