মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কালোবাজারি! অভিযানে করোনা টাস্ক ফোর্স 

মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কালোবাজারি! অভিযানে করোনা টাস্ক ফোর্স 

আগামী দিনে চাহিদা বাড়বে ধরে নিয়ে কেউ কেউ মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার মজুত রাখছেন। অভিযানে তাঁদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক যত বাড়ছে ততই বাজারে অমিল হয়ে যাচ্ছে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার। করোনা সতর্কতায় মাস্ক পেতে হন্যে হয়ে ঘুরছেন বাসিন্দারা। মিলছে না হ্যান্ড স্যানিটাইজারও। এই দু’টি সামগ্রীকে ইতিমধ্যেই অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী ঘোষণা করেছে সরকার। কিন্তু তারপর তা যেন বাজার থেকে উধাও হয়ে গিয়েছে। করোনা থেকে বাঁচতে সাধারণ মাস্কই চড়া দামে কিনতে বাধ্য হচ্ছেন বাসিন্দারা। বাজারে চাহিদা আরও বাড়বে ধরে নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী তা চড়া দামে বিক্রির জন্য মজুত করে রাখছেন বলে অভিযোগ। অনেকে তা কালোবাজারি করছেন বলেও অভিযোগ। সেই সব অভিযোগের ভিত্তিতেই এ দিন অভিযানে নামে জেলা পুলিশ ও প্রশাসন।

মঙ্গলবার বর্ধমানের কল্যাণী মার্কেটে পাইকারি ওষুধ বাজারে অভিযানে যায় জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের দুর্নীতি দমন শাখা। তাঁরা দোকানে দোকানে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের স্টক মিলিয়ে দেখেন। গোডাউনে মজুত থাকা সত্ত্বেও তা কেন বিক্রি করা হচ্ছে না তা জানতে চান তাঁরা। অনেক ব্যবসায়ীকে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার মজুত করে তা খুচরো বাজারে পাঠাতেও বলা হয়। জেলা শাসক বিজয় ভারতী বলেন, জেলায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক মাস্ক নেই।  দ্রুত তা পাঠাতে রিকুইজিশন পাঠানো হয়েছে।

অভিযানে যাওয়া আধিকারিকরা জানিয়েছেন, আগামী দিনে চাহিদা বাড়বে ধরে নিয়ে কেউ কেউ মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার মজুত রাখছেন। অভিযানে তাঁদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। অনেকের কাছে এই দুই সামগ্রী নেই। তাঁদের দ্রুত তা আনাতে বলা হয়েছে। বাসিন্দারা যাতে সঠিক দামে এবং সহজেই মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার পায় তা নিশ্চিত করাই অভিযানের উদ্দেশ্য। আপাতত বিভিন্ন মার্কেট ওষুধের দোকানে ধারাবাহিক অভিযান চালানো হবে। জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় জানান, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশের আধিকারিকদের নিয়ে বিশেষ টাস্ক ফোর্স গঠন করা হয়েছে। এই টাস্ক ফোর্স মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, প্যারাসিটামলের কালোবাজারি রুখতে জেলা জুড়ে অভিযান চালাচ্ছে।

First published: March 17, 2020, 6:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर