চাকদহে যুবক খুনে রাজনৈতিক টানাপোড়েন, বাড়ি থেকে ডেকে গুলি করে খুন

চাকদহে যুবক খুনে রাজনৈতিক টানাপোড়েন, বাড়ি থেকে ডেকে গুলি করে খুন
  • Share this:

#চাকদহে: চাকদহে সন্তু ঘোষের খুনের ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিজেপি-তৃণমূল দু’ দলেরই দাবি, সন্তু তাদের কর্মী ছিলেন। দাবি পালটা দাবির মধ্যেই খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ। ভোটের ফল প্রকাশের পর বিভিন্ন জেলায় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক সংঘর্ষ। এর মধ্যেই চাকদহে খুন হলেন সন্তু ঘোষ। চাকদহের ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের তপোবন এলাকার বাসিন্দা সন্তু পেশায় স্বর্ণশিল্পী। শুক্রবার রাতে বাড়ি থেকে ডেকে তাঁকে খুন করে দুষ্কৃতীরা।

খবর প্রকাশ্যে আসতে শুক্রবার রাতেই চাকদহ থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মীরা। শনিবার সকাল থেকেই ঘটনার প্রতিবাদে দফায় দফায় চাকদহ স্টেশনে রেল অবরোধ করে বিজেপি। ১ ঘণ্টারও বেশি সময় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন বিজেপি সমর্থকরা। ঘেরাও করা হয় চাকদহ থানাও। দোষীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে ওঠে অবরোধ। বিজেপির তরফ থেকে থানায় স্থানীয় তৃণমূল নেতা সাধন বিশ্বাস ও তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বিজেপির হয়ে নির্বাচনে কাজ করার জন্যই খুন হলেন সন্তু। এমনটাই দাবি বিজেপি নেতৃত্বের।যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, নিহত যুবক তাদের কর্মী ছিল। রাজনৈতিক দলের টানাপোড়েনের মধ্যেই সন্তুর পরিবারের দাবি, রাজনীতির সঙ্গে কোনও সম্পর্ক ছিল না সন্তুর। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে পৌঁছাল কেন্দ্রীয় বাহিনী।

First published: May 26, 2019, 4:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर