Home /News /north-bengal /
গ্রামে ঢোকে না অ্যাম্বুলেন্স, স্কুলে যেতে পারে না পড়ুয়ারা, বেহাল রাস্তায় হেঁটে চলায় দায় এখানে.....

গ্রামে ঢোকে না অ্যাম্বুলেন্স, স্কুলে যেতে পারে না পড়ুয়ারা, বেহাল রাস্তায় হেঁটে চলায় দায় এখানে.....

সাইকেল বা মোটরসাইকেল তো দূরের কথা বেহাল রাস্তায় পায়ে হেঁটে চলাচল করাও অত্যন্ত কঠিন।

  • Share this:

#মালদহ: বেহাল রাস্তায় গ্রামে ঢুকতে পারে না অ্যাম্বুলেন্স। সাইকেল বা মোটরসাইকেল তো দূরের কথা বেহাল রাস্তায় পায়ে হেঁটে চলাচল করাও অত্যন্ত কঠিন। মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লকের কুশিদা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত জয়বাংলা থেকে ভগবানপুর হয়ে বিজট গ্রাম পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরেই চলাচলের অযোগ্য।

স্থানীয়দের ক্ষোভ, বারবার স্থানীয় পঞ্চায়েতকে জানিয়েও কোনও কাজ হয়নি। ক্ষুব্ধ হয়ে এদিন হরিশ্চন্দ্রপুর - কুশিদা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন গ্রামবাসীরা। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এলাকায় একাধিক স্কুল রয়েছে। বেহাল রাস্তার জন্য ছাত্র-ছাত্রীরা নিয়মিত স্কুলে যেতে পারে না। বর্ষার মরশুমে রাস্তার হাল এতটাই খারাপ যে তাঁরা রেশন পর্যন্ত নিতে যেতে পারছেন না।এই রাস্তা দিয়ে প্রায় ১০টি গ্রামের লোকজন যাতায়াত করেন। প্রত্যেকেই প্রচন্ড অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন । এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে আন্দোলনে নামেন গ্রামবাসীরা।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, বেহাল রাস্তার জন্য অনেক প্রসূতি এবং মুমূর্ষ রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে। এরপরেও হেলদোল নেই পঞ্চায়েত প্রশাসনের। যদিও গ্রামবাসীদের ক্ষোভ নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি কুশিদা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান। অন্যদিকে হরিশ্চন্দ্রপুরের বাসিন্দা মালদহ জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মর্জিনা খাতুন বলেন, রাস্তার অবস্থা সত্যিই খারাপ। তবে বড় রাস্তা পঞ্চায়েতের পক্ষে করা সম্ভব হচ্ছে না। সমস্যার কথা জেলাশাসক এবং সভাধিপতিকে জানিয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজ করা হবে। গ্রামবাসীরা যাতে দ্রুত সমস্যা মুক্ত হন সেই চেষ্টা করা হবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Malda, Pathetic Road Condition, Protest

পরবর্তী খবর