দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

“তাঁর মূল্যবোধ দিয়েই তৈরি হয়েছে সংস্থা”; ঠাকুরমা’র স্মৃতিতে ট্যুইটারে পোস্ট উইপ্রো’র সভাপতির

“তাঁর মূল্যবোধ দিয়েই তৈরি হয়েছে সংস্থা”; ঠাকুরমা’র স্মৃতিতে ট্যুইটারে পোস্ট উইপ্রো’র সভাপতির

রিশদ প্রেমজি-র ঠাকুরমা গুলবানো প্রেমজি, সংস্থার সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন ১৯৬৬ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা, তাঁর স্বামী এম এইচ প্রেমজি।

  • Share this:

#কলকাতা: সম্প্রতি ৭৫ বছর পূর্ণ করেছে ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা উইপ্রো। সেই সূত্রেই, বর্তমান সভাপতি ট্যুইটারে শেয়ার করেছেন এই সংস্থার আদর্শের গল্প। নিজের ঠাকুরমা-কে তাঁর চেনা “সব থেকে উদার মনের মানুষ” হিসেবে স্মরণ করেছেন উইপ্রো সংস্থার সভাপতি রিশদ প্রেমজি। আজ সকালেই স্মৃতিচারণ করে ট্যুইটারে এমন একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন তিনি। রিশদ প্রেমজি-র ঠাকুরমা গুলবানো প্রেমজি, সংস্থার সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন ১৯৬৬ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা, তাঁর স্বামী এম এইচ প্রেমজি। রিশদ প্রেমজি নিজের ট্যুইটার পোস্টে লিখেছেন, “তাঁর উদারতা এবং মূল্যবোধের ভিত্তিতেই তৈরি হয়েছে আজকের সংস্থার আদর্শ।”

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালে, ডঃ গুলবানো প্রেমজি-র ছেলে আজিম প্রেমজি-র নাম উঠে এসেছে ভারতের সমস্ত পরোপকারী মানুষগুলির নামের তালিকায়। গত বছর, তিনি প্রতিদিন দান করেছেন প্রায় ২২ কোটি টাকা। শুধু রিশদ নয়, এর আগে আজিম প্রেমজি-ও মন্তব্য করেছিলেন, নিজের ধনসম্পদ কিভাবে বন্টন করবেন সে বিষয়ে তাঁর চিন্তা-ভাবনা সম্পূর্ণ রূপে তাঁর মায়ের দ্বারা প্রভাবিত। ২০১৯ সালেই আজিম প্রেমজি সভাপতির পদ ছেড়ে তাঁর আসনে বসান ছেলে রিশদ-কে।

নিজের ট্যুইটারের পোস্টে রিশদ শেয়ার করেছেন ঠাকুরমা-র একটি সাদা-কালো ছবি, সঙ্গে তাঁর বাবা এবং মা। ক্যাপশনে লিখেছেন, “আমার বাবা-মা’র সঙ্গে, ঠাকুরমা ডঃ গুলবানো প্রেমজি”। তিনি আরও লিখেছেন, “১৯৬৬ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত আমার ঠাকুরমা ছিলেন উইপ্রো’র সভাপতি। শুরুতে, কাজের ক্ষেত্রে তিনিই ছিলেন আমার বাবার প্রধান অবলম্বন। আমার জানা সব থেকে উদার মানুষ ছিলেন তিনি। তাঁর মূল্যবোধ দিয়েই তৈরি হয়েছে এই সংস্থার আদর্শ।” এই পোস্টে বর্তমান সভাপতি হ্যাশট্যাগ যোগ করেছেন, #দ্যস্টোরিঅফউইপ্রো এবং #৭৫ইয়ারসঅফউইপ্রো।

Published by: Antara Dey
First published: January 13, 2021, 9:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर