'হার্ড ল্যান্ডিং'-ই করেছিল চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রম, জানাল নাসা

'হার্ড ল্যান্ডিং'-ই করেছিল চন্দ্রযান ২-এর ল্যান্ডার বিক্রম, জানাল নাসা

ভোরের আলোয় এই ছবিগুলি তোলা হয়েছে আর আমাদের বিজ্ঞানীরা ল্যান্ডারকে খুঁজে পাননি, জানাল নাসা

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: ৬ সেপ্টেম্বর চাঁদের মাটি ছুঁতে গিয়ে -ই করেছিল চন্দ্রযান ২ (Chandrayaan 2)-এর ল্যান্ডার বিক্রম (Vikram), জানাল নাশ্যানাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিসট্রেশন (নাসা)। আর সেই কারণেই ইসরোর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে বিক্রম। এই প্রসঙ্গে চাঁদের মাটির কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে নাসা। ছবিতে দেখা যাচ্ছে যে যেখানে বিক্রমের নামার কথা ছিল, চাঁদের সেই জমি যথেষ্ট এবড়োখেবড়ো ও গর্তে ভর্তি। এই কারনেই সফ্ট ল্যান্ডিং করতে ব্যর্থ হয়েছিল বিক্রম।

“চাঁদের জমিতে সিমপেলিয়াস এম এবং মানজিনাস সি ক্রেটারের মাঝে অবস্থিত সমতল ভূমিতে ‘হার্ড ল্যান্ডিং’-এর চেষ্টা করেছিল বিক্রম,” জানিয়েছে নাসা। ১৭ সেপ্টেম্বর, এই ছবিগুলি তুলেছিল নাসার লুনার রেকোনাইসাঁ অরবিটার (এলআরও) । নাসা আরও জানিয়েছে, “ভোরের আলোয় এই ছবিগুলি তোলা হয়েছে আর আমাদের বিজ্ঞানীরা ল্যান্ডারকে খুঁজে পাননি।”

সঙ্গে তাঁরা এটাও জানিয়েছে যে চাঁদের মাটিতে বিক্রমকে খুঁজে বের করার জন্য অক্টোবরে ফের একবার কাজে নামবে এলআরও।

ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন জানিয়েছেন বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা সম্ভব না হলেও একটি সুখবর রয়েছে ৷ চন্দ্রযান ২ অরবিটার খুব ভাল কাজ করছে ৷ অরবিটারে রয়েছে ৮টি ইনস্ট্রুমেন্ট রয়েছে এবং প্রত্যেকই ঠিকঠাক কাজ করছে ৷

Loading...

২১ তারিখ থেকে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে, যেখানে বিক্রমের পৌঁছনোর কথা, সেখানে রাত শুরু হয়েছে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন চাঁদে অন্ধকার এতটাই হয় যে তার মধ্যে কোনও কিছু দেখা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে ৷ এর জেরে শুধু ইসরো নয় পৃথিবীর কোনও স্পেস এজেন্সি বিক্রমের ছবি নিতে পারবে না ৷ চাঁদে এই অন্ধকার আগামী ১৪ দিন পর্যন্ত থাকবে ৷ আগামী ১৪ দিন ল্যান্ডার বিক্রমকে এই ভাবেই থাকতে হবে চাঁদের মাটিতে ৷ এরকম পরিস্থিতিতে বিক্রমের অক্ষত অবস্থায় থাকা প্রায় অসম্ভব বলে মনে করা হচ্ছে ৷

এই মুহূর্তে বিক্রম চাঁদের যে জায়গায় রয়েছে সেখানে আগামী ১৪ দিন সূর্যের আলো পৌঁছবে না ৷ এর জেরে চাঁদের তাপমাত্রা কমে মাইনাস ১৮৩ ডিগ্রি সেলসিয়ায় হয়ে যাবে ৷ এই তাপমাত্রায় বিক্রমের পক্ষে অক্ষত থাকা সম্ভব নয় ৷ এত কম তাপমাত্রায় বিক্রমের বেশ কিছু ইনস্ট্রুমেন্ট নষ্ট হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে ৷ বিক্রমে রেডিওআইসোটোপ থাকলে তাহলে ল্যান্ডার নিজেকে বাঁচিয়ে রাখতে পারত ৷ চাঁদে যে পরিস্থিতি হতে চলেছে তাতে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা প্রায় অসম্ভব বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা ৷

৭ সেপ্টেম্বর রাত ১:৫০ টার সময় চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছনোর আগে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায় ৷ সেই সময় চাঁদে সূর্যের আলো পড়া শুরু হয় ৷ চাঁদের এক দিন অথার্ৎ পৃথিবীর ১৪ দিন ৷

First published: 09:40:53 AM Sep 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर