• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • প্রজনন জারি , জুন মাসের পর আরও হাজার হাজার পঙ্গপাল জন্মাবে, আক্রমণ থেকে বাঁচতে ভারতের নয়া পদক্ষেপ

প্রজনন জারি , জুন মাসের পর আরও হাজার হাজার পঙ্গপাল জন্মাবে, আক্রমণ থেকে বাঁচতে ভারতের নয়া পদক্ষেপ

Photo-File

Photo-File

আনন্দের খবর ঝাঁসি জেলায় প্রচুর পরিমাণে কীটনাশক স্প্রে করায় তাদের দলের একটা বড় অংশ বুধবার মারা গেছে ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাস আক্রমণে সারা দেশের অর্থনীতি একেবারে ভেঙে পড়েছে ৷ তারওপর মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা মারাত্মক পঙ্গপালের হানা ৷ গত ২৭ বছরের সবচেয়ে বড় পঙ্গপালের হানা শুরু হয়েছে ভারতের এক বড় অংশ জুড়ে ৷ এখনও অবধি রাজস্থান, পঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাত, মহারাষ্ট্র ইতিমধ্যেই বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে এই হানায় ৷ প্রাথমিকভাবে পাকিস্তান থেকে রাজস্থানে পৌঁছয় এই পঙ্গপালের দল ৷

    একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন এই পঙ্গপালদের দমন করতে ব্রিটেন থেকে দু সপ্তাহের মধ্যে ১৫ টি স্প্রেয়ার আনা হবে ৷ এরপর ৪৫ টি আরও স্প্রেয়ার কেনা হবে ৷

    উঁচু গাছ ও দুর্গম এলারায় কীটনাশক ছড়ানোর জন্য ড্রোন ব্যবহার করা হবে ৷ কোথাও কোথাও প্রয়োজন হলে হেলিকপ্টারের সাহায্যেও কীটানুনাশক ছড়ানো হবে ৷

    Representational Image Representational Image

    এখনও অবধি মধ্যপ্রদেশের মন্দসোর, নীমচ, উজ্জয়িনী, রতলামস দেবাস, আগর মালবা, ছতপুর, সতনা, গোয়ালিয়র , রাজস্থানের জয়সলমের, শ্রীগঙ্গানগর, যোধপুর, বারমের, নাগৌর, আজমের, পালি, বিকানীর, ভীলবাড়া. সিরোহি, জালোর, উদয়পুর, প্রতাপগড়, চিতোরগড়, দৌসা, চুরু, সীকর, ঝালাবাড়, জয়পুর, করৌলী এবং হনুমানগড়, গুজারাতের বনাসাকান্ঠা, আর কচ্ছ, উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসী, আর পঞ্জাবের ফাজিল্কা,জেলার ৩৩৪ জায়গায় ৫০,৪৬৮ হেক্টর জমিতে এই পঙ্গপাল উড়ে গিয়েছে ৷

    পঙ্গপালের হামলা থেকে বাঁচার জন্য রাজস্থান , মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র ও উত্তরপ্রদেশে সরকারি কর্মচারীরা কীটানুনাশক ছড়িয়ে তাদের সরানোর চেষ্টা করছে ৷ অন্যদিকে সাধারণ মানুষ থালা বাজিয়ে ও জোরে গান বাজিয়ে পঙ্গপালদের উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে ৷

    দিল্লি, হরিয়াণা, হিমাচল প্রদেশ, তেলেঙ্গানা ও কর্ণাটকে সরকার পঙ্গপাল আসার রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ৷ বৃহস্পতিবার দুপুরে পূর্ব মহারাষ্ট্র হয়ে মধ্যপ্রদেশের বালাঘাট জেলায় ঢোকে এই পঙ্গপালের দল ৷ পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের ভান্ডারাতেও ঢুকে গেছে এই পঙ্গপাল ৷

    সংযুক্ত রাষ্ট্রের খাদ্য ও কৃষি বিভাগের অনুসারে পঙ্গপালে ঝাঁক এরপর বিহার ও ওড়িশাতেও পৌঁছে যেতে পারে ৷ তবে দক্ষিণ ভারতে এই পঙ্গপাল পৌঁছনোর সম্ভবনা বেশ কম ৷

    পাকিস্তানের সীমা বরাবর রাজস্থান দিয়ে পঙ্গপালের দল ঢুকে ৯০ হাজার হেক্টর এলাকায় প্রভাব ফেলেছে ৷ এই পঙ্গপালরা প্রতি ঘণ্টায় ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটার গতিতে  একদিনে ১৫০ কিমি পথ পাড়ি দিতে পারে ৷ তবে এই বার যে পথ পঙ্গপাল পেরোচ্ছে তাতে ক্ষেতে কম ফসল থাকায় তারা গাছের পাতা ও অন্যান্য জিনিস খাচ্ছে ৷

    আনন্দের খবর ঝাঁসি জেলায় প্রচুর পরিমাণে কীটনাশক স্প্রে করায় তাদের দলের একটা বড় অংশ বুধবার মারা গেছে ৷ এদিকে জুন মাস থেকে ইথিওপিয়া, কেনিয়া, সোমালিয়ার মরুভূমিতে প্রজনন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ায় হাজার হাজার নতুন পঙ্গপাল তৈরি হবে ৷ তারপর তার গতি হবে দক্ষিণ সুদান ৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: