বোমা বিস্ফোরণে পা খুইয়েও ডাক্তার হওয়ার স্বপ্নপূরণ আসনার

দিনটা ছিল ২০০০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ৷ নির্বাচনের লড়াইয়ে তখন কন্নর জুড়ে ব্যাপক উত্তেজনা ৷ ভয়ে বাড়ি থেকে বেরোতেন না স্থানীয় বাসিন্দারা ৷

Sarmita Bhattacharjee | News18 Bangla
Updated:Mar 26, 2018 02:39 PM IST
বোমা বিস্ফোরণে পা খুইয়েও ডাক্তার হওয়ার স্বপ্নপূরণ আসনার
Asna, a 24 -year-old girl from Kannur, braved odds to become a doctor, 18 years after losing her leg.
Sarmita Bhattacharjee | News18 Bangla
Updated:Mar 26, 2018 02:39 PM IST

#তিরুঅনন্তপুরম: দিনটা ছিল ২০০০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ৷ নির্বাচনের লড়াইয়ে তখন কন্নর জুড়ে ব্যাপক উত্তেজনা ৷ ভয়ে বাড়ি থেকে বেরোতেন না স্থানীয় বাসিন্দারা ৷ কিন্তু রাজনীতির এই ভয়াবহ ছবি সম্পর্কে অবগত ছিল না বছর পাঁচেকের আসনা ৷ আর রাজনীতির রোষে ডান পা খুইয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয় সে ৷ কিন্তু শারিরীক প্রতিকূলতা তাকে রুখতে পারেনি ৷ অদম্য সাহস আর মানসিক শক্তিকে ভর করে আজ সে জীবনে প্রতিষ্ঠিত ৷ ছোটবেলার স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়ার ৷ সেই স্বপ্নই আজ সফল হয়েছে আসনার ৷

আরও পড়ুন:   সিঙ্গাপুরে তথ্য পাচার করছেন রাহুল গান্ধি, দাবি বিজেপির

কি হয়েছিল সেদিন ? ১৮ বছর আগের সেই স্মৃতি বলতে গিয়ে আবেগবিহ্বল আসনা ৷ তিনি বলেন, সেদিন ভাইয়ের সঙ্গে বাড়ির উঠোনে তখন খেলায় মগ্ন পাঁচ বছরের আসনা ৷ কিন্তু আচমকাই প্রবল বিস্ফোরণ ৷ কেঁপে উঠল গোটা এলাকা ৷ আর সেই বিস্ফোরণেই গুরুতর আহত হন আসনা ৷ ডানদিকের পা অপারেশন করে বাদ দেওয়া হয় তাঁর ৷

আরও পড়ুন: শিশু চোর সন্দেহে বৃদ্ধাকে মারধরের অভিযোগ

সেই ঘটনার পর বেশ কয়েকমাস হাসপাতালেই কেটেছে আসনার ৷ সেই সময়ই সে স্থির করেন যে, বড় হয়ে সে ডাক্তার হবে ৷ অবশেষে, কালিকট মেডিকেল কলেজ থেকে ডাক্তারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হল আসনা ৷ আজ সে জীবনে প্রতিষ্ঠিত ৷ নিজের ইচ্ছে পূরণে সফল হয়েছে সে ৷ কারণ সেই দুর্ঘটনা তার মনের ইচ্ছে দমিয়ে দিতে পারেনি ৷ প্রবল মনের জোরেই একের পর এক বাধা পেরিয়ে এগিয়ে গিয়েছে আসনা ৷ আজ সে ডাক্তার ৷

Loading...

আরও পড়ুন:  ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্কুলের গাড়িতে আটকে মৃত্যু হল ছ’বছরের শিশুর

নির্বাচনের লড়াইয়ে তখন রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে ৷ আরএসএস কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে বামপন্থীদের লড়াই চরমে পৌঁছেছে ৷ নির্বাচনে বিঘ্ন ঘটাতে নির্বাচনী কেন্দ্র লক্ষ্য করে ক্রমাগত বোমা বর্ষণ ৷ সেদিন এমনই একটি ঘটনার সাক্ষী ছিল আসনা ৷ তিনি বলেন, তাদের বাড়ির সামনেই নির্বাচনের বুথ ছিল ৷ সেই বুথ লক্ষ্য করেই আরআরএসের কর্মীরা বোমা ছোঁড়ে ৷ কিন্তু লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় তাদের বাড়িতে এসে পড়ে বোমাটি ৷

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের এই হামলায় ১৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয় কেরল হাইকোর্ট ৷

First published: 02:36:32 PM Mar 26, 2018
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर