IAF Sukhoi 30 mki: আমিরাতের আকাশে ঝড় তুলতে তৈরি যুদ্ধবিমান

IAF Sukhoi 30 mki: আমিরাতের আকাশে ঝড় তুলতে তৈরি যুদ্ধবিমান

সুখোই -৩০ ভারতীয় বিমানবাহিনীর শিরদাঁড়া

‘ডেজার্ট ফ্ল্যাগ’ নামে এক মহড়ায় অংশ নিতে বুধবার অমিরাতে যাচ্ছে ভারতের বিমানবাহিনীর ছয়টি সুখোই -৩০ এমকেআই ও দু’টি সি-১৭ বিমান।

  • Share this:

    #দুবাই: দু'দিন আগেই বালাকোট বিমান হামলার দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি পালন করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। সেদিনের হামলা ঠিক কেমন ছিল  ড্রিলের মাধ্যমে দেখানোর চেষ্টা হয়েছে। সংবাদ সংস্থা এএনআই এক প্রতিবেদনে জানিয়েছেন, ‘ডেজার্ট ফ্ল্যাগ’ নামে এক মহড়ায় অংশ নিতে বুধবার অমিরাতে যাচ্ছে ভারতের বিমানবাহিনীর ছয়টি সুখোই -৩০ এমকেআই ও দু’টি সি-১৭ বিমান।ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্রসহ ওই মহড়ায় অংশ হবে ১০টি দেশ। প্রসঙ্গত, নরেন্দ্র মোদির জমানায় আরব দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত হয়েছে নয়াদিল্লির।

    গত বছর ফ্রান্স থেকে ভারতে আসার সময় রাফাল যুদ্ধবিমানগুলোতে মাঝ আকাশে জ্বালানি ভরে দেয় আমিরাতের বিমানবাহিনীর ট্যাঙ্কার বিমান। ফলে দুই দেশের কৌশলগত ও সামরিক সম্পর্ক অনেকটা মজবুত হয়।ভারতীয় বিমানবাহিনীর সবচেয়ে বড় ভরসা। সবচেয়ে বেশি সংখ্যক স্কোয়াড্রন। একই সঙ্গে একাধিক মিশন চালাতে দক্ষ। দেশের গর্ব, শত্রুদের দুঃস্বপ্ন। নাম সুখোই -৩০ এমকেআই। রাফাল যুদ্ধবিমান ভারতীয় বিমান বাহিনীর হাতে আসার আগে এই সুখোই ছিল সবচেয়ে আধুনিক।

    রাশিয়া থেকে কেনার পর ভারত বেঙ্গালুরুর হ্যালের হাত ধরে বিমানের ভারতীয় সংস্করণ নিজেরাই তৈরি করে আসছে গত কয়েক বছর ধরে। নিমেষের মধ্যে যেমন আকাশ থেকে মাটিতে শত্রু শিবির গুঁড়িয়ে দিতে পারে,তেমনই আকাশে শত্রু বিমানের সঙ্গে মোকাবিলাতেও জুড়ি মেলা ভার এই যুদ্ধবিমানের। রকেট, মিসাইল, বোম্ব বহন করা ছাড়াও শক্তিশালী জিপিএস এবং রাডার লাগানো রয়েছে এই বিমানে। ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রয়োজন অনুযায়ী বানানো হয়েছে এই বিমান। যেকোনও মিশন হোক, সুখোই -৩০ একশো শতাংশ সফল হয়।

    কয়েকদিন আগে ভারতীয় বিমানবাহিনী আবার আপগ্রেড করেছে বিমানটিতে। একইসঙ্গে চার বা তার বেশি টার্গেট লক্ষ্য করে এখন হামলা চালাতে পারে এই বিমান। রাফাল এবং সুখোই -৩০ বিমানের কম্বিনেশন গড়ে তোলাই লক্ষ ভারতীয় বিমানবাহিনীর। চিন এবং পাকিস্তানকে এর ফলে কড়া বার্তা পাঠানো যাবে মনে করছে সমর বিশেষজ্ঞরা।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর