Gaganyaan Mission: রাশিয়ায় ট্রেনিং শেষ, অন্তরীক্ষে যাওয়ার দিন গুনছেন চার ভারতীয় যাত্রী

Gaganyaan Mission: রাশিয়ায় ট্রেনিং শেষ, অন্তরীক্ষে যাওয়ার দিন গুনছেন চার ভারতীয় যাত্রী

কেন্দ্রীয় সরকার গগনযান প্রোজেক্টের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে।

কেন্দ্রীয় সরকার গগনযান প্রোজেক্টের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:

    তাঁরা গগনযানে চেপে অন্তরীক্ষে পাড়ি দেবেন। কিন্তু কাজটা তো আর এত সহজ নয়। পৃথিবী পেরিয়ে অন্তরীক্ষে যাওয়ার আগে সেখানকার পরিবেশ, পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য প্রশিক্ষণ জরুরি। তাই চারজন ভারতীয় যাত্রী গিয়েছিলেন রাশিয়ায়। সেখানে এক বছর থেকে তাঁরা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। তাঁদের ট্রেনিং হয়তো আরও আগেই শেষ হয়ে যেতে পারত। কিন্তু কোভিডের জন্য এতটা দেরি হল। শেষমেশ অন্তরীক্ষে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি অনেকটাই সেরে ফেললেন চারজন ভারতীয় যাত্রী।

    ২০১৯ সালে রাশিয়ার একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি করেছিল ইসরো। এই চারজন যাত্রীকে ট্রেনিং দেওয়ার দায়িত্ব নিয়েছিল ওই সংস্থা। চারজনের মধ্যে একজন ভারতীয় বায়ুসেনার গ্রুপ ক্যাপ্টেন। বাকি তিনজন উইং কমান্ডার। এবার দেশেই ট্রেনিং নেবেন তাঁরা। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো তাঁদের জন্য ট্রেনিং মডিউল ডিজাইন করেছে। সেখানেই প্রশিক্ষণ হবে তাঁদের। ভারতে প্রশিক্ষণের তিনটি ভাগ থাকবে। একটি মডিউল চালক দলের সদস্যদের জন্য। অন্যটি ফ্লাইট হার্ডওয়ার ও সফটওয়ার-এর উপর একটি মডিউল। এছাড়া পুরো প্রোজেক্ট-এর উপরও হবে প্রশিক্ষণ। তার পর ওই চারজনকে গগনযানের মাধ্যমে পাঠানো হবে অন্তরীক্ষে।

    রাশিয়ায় এই চারজন ভারতীয় যাত্রী অন্তরীক্ষের বিভিন্ন পরিবেশ, পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য ট্রেনিং নিয়েছেন। গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে শুরু হয়েছিল সেই ট্রেনিং। কিন্তু করোনা মহামারীর জেরে ট্রেনিং মাঝপথে থামাতে বাধ্য হয়েছিল সেই রূশ সংস্থা। ইসরোর আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ভারতের মডিউল স্পেশাল ট্রেনিং পর্ব শেষ হলেই ওই চারজন যাত্রী অন্তরীক্ষে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়ে যাবেন। কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই গগনযান প্রোজেক্টের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে। গগনযান এর মাধ্যমে চার যাত্রীকে অন্তরীক্ষে পাঠানোর এই মিশন ইসরোর কাছেও খুব গুরুত্বপূর্ণ। তাই ওই চার ভারতীয় যাত্রীর প্রশিক্ষণের ব্যাপারে কোনো খামতি রাখতে চাইছে না ইসরো।

    Published by:Suman Majumder
    First published: