নিজে হাতে গড়েছিলেন লালকেল্লা হামলার নকশা! দিশা রবির গ্রেফতার নিয়ে মুখ খুলল দিল্লি পুলিশ

নিজে হাতে গড়েছিলেন লালকেল্লা হামলার নকশা! দিশা রবির গ্রেফতার নিয়ে মুখ খুলল দিল্লি পুলিশ
দিশা রবিকে নিয়ে বিস্ফোরক দিল্লি পুলিশ। ফাইল চিত্র

সম্প্রতি সেই মর্মে মুখ খুলেছে দিল্লি পুলিশ। জানিয়েছে, তাদের হাতে রয়েছে সুস্পষ্ট প্রমাণ- ২৬ জানুয়ারি লাল কেল্লা হামলার নকশা নিজের হাতে গড়েছিলেন দিশা!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ২২ বছরের তরুণী পরিবেশকর্মী দিশা রবির (Disha Ravi) গ্রেফতার নিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের একাংশে তৈরি হয়েছে ব্যাপক বিক্ষোভ, জনমতের অনেকটাই চলে গিয়েছে সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিপক্ষে। জানতে চাইছেন অনেকেই ঠিক কোন কারণে দিশাকে গ্রেফতার করল পুলিশ! সম্প্রতি সেই মর্মে মুখ খুলেছে দিল্লি পুলিশ। জানিয়েছে, তাদের হাতে রয়েছে সুস্পষ্ট প্রমাণ- ২৬ জানুয়ারি লাল কেল্লা হামলার নকশা নিজের হাতে গড়েছিলেন দিশা!

পুলিশ দাবি করেছে যে দিশা তাঁর তৈরি এই নকশা সুইডেনের এক পরিবেশসংস্থা এবং গ্রেটা থুনবার্গের (Greta Thunberg) সঙ্গেও শেয়ার করেছিলেন। এই কাজে তিনি বিদেশ থেকে মদত পেয়েছেন, সে কথা জানাতে ভোলেনি পুলিশ। পাশাপাশি, পুলিশ এটাও বলছে যে দিশা একা নন, তাঁর সঙ্গে এই কাজে সক্রিয় সহযোগিতা করেছেন পশ্চিম মুম্বইয়ের বাসিন্দা আইনজীবী নিকিতা জ্যাকব (Nikita Jacob) এবং শান্তনু (Shantanu) নামের এক ব্যক্তি। এই তিনজনে মিলেই নানা লিঙ্ক-সমৃদ্ধ এ অনলাইন ডকুমেন্ট তৈরি করেছিলেন যা কৃষকদের আন্দোলনকে আগ্রাসী হওয়ার লক্ষ্যে প্ররোচণা জুগিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দিল্লি পুলিশের তরফে প্রেম নাথ (Prem Nath) সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে তাঁরা অকারণে দিশাকে গ্রেফতার করেননি। তাঁর বক্তব্য অনুযায়ী দিশা যে নকশা তৈরি করেছিলেন, সেখানে কখন কী ভাবে হামলা চালানো হবে, তার বিশদ পরিকল্পনা করা রয়েছে। পুলিশ এই অনলাইন ডকুমেন্টটিকে টুলকিট (Toolkit) আখ্যা দিয়েছে। জানানো হয়েছে যে দেশের অজস্র Twitter অ্যাকাউন্ট থেকে এই টুলকিট ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি, ক্রমাগত হামলার জন্য উত্তেজিত করে তোলার চেষ্টা চালানো হয়েছিল। পুলিশের মতসাপেক্ষে এই বিপুল সংখ্যক ট্যুইটকে অনায়াসে ট্যুইট ব্যাঙ্কের সঙ্গে তুলনা করা যায়।


শুধু তাই নয়, দিল্লি পুলিশ এটাও জানিয়েছে যে শিখদের যে স্বঘোষিত স্বাধীন খালিস্তান নামের সংগঠন রয়েছে, তার সঙ্গেও প্রত্যক্ষ যোগাযোগ ছিল দিশা, নিকিতা এবং শান্তনুর। খালিস্তানি মতবাদে উদ্বুদ্ধ হয়েই এই হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলে পুলিশ দাবি করেছে। যদিও নিকিতার হয়ে আইনজীবী জানিয়েছেন যে তাঁর মক্কেল কোনও রকম উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি করতে চাননি, তিনি বরাবর শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পক্ষপাতী ছিলেন। অন্য দিকে, দিশার আইনজীবীর তরফ থেকে এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

-Written By: Anirban Chaudhury

Published by:Arka Deb
First published: