‘আমার ২০ বছরের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে উঠেপড়ে লেগেছে’, টাইম ম্যাগাজিনের ‘ডিভাইডার ইন চিফ’ প্রচ্ছদ নিয়ে মোদির মন্তব্য– News18 Bengali

‘আমার ২০ বছরের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে উঠেপড়ে লেগেছে’, টাইম ম্যাগাজিনের ‘ডিভাইডার ইন চিফ’ প্রচ্ছদ নিয়ে মোদির মন্তব্য

News18 Bangla
Updated:May 15, 2019 06:17 PM IST
‘আমার ২০ বছরের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে উঠেপড়ে লেগেছে’, টাইম ম্যাগাজিনের ‘ডিভাইডার ইন চিফ’ প্রচ্ছদ নিয়ে মোদির মন্তব্য
News18 Bangla
Updated:May 15, 2019 06:17 PM IST

#নয়াদিল্লি: টাইম ম্যাগাজিনের ‘ডিভাইডার ইন চিফ’ প্রচ্ছদ নিয়ে অবশেষে প্রথমবার মুখ খুললেন মোদি ৷ বুধবার News18 -কে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে উঠে এল টাইম ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদ প্রসঙ্গ ৷ উত্তরে মোদি বলেন, ‘এসবই তাঁর ভাবমূর্তিকে নষ্ট করার কুরুচিকর চেষ্টা ৷ যারা দিবা-রাত্র আমার ইমেজ নষ্ট করার চেষ্টা করে চলেছে, এসবে তাদেরই হবি খারাপ হচ্ছে ৷’

মার্কিন সংবাদ মাধ্যম টাইম ম্যাগাজিনের ২০ মে’র সংস্করণের প্রচ্ছদে ছাপানো হয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি। শিরোনামে লেখা, ‘ভারতের বিভাজনের প্রধান’(India's Divider in Chief)।  প্রচ্ছদ নিবন্ধে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ‘বিষাক্ত ধর্মীয় জাতীয়তাবাদ’ ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে ৷ লোকসভা নির্বাচনের মাঝেই এহেন কভার স্টোরিতে শুরু হয় বিতর্ক ৷ এই প্রচ্ছদকেই হাতিয়ার করে রাজনীতির প্রচারমঞ্চে নেমে পড়েন বিরোধীরা ৷

তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘টাইম পত্রিকা একদম ঠিক কথাই বলেছে ৷ দাঙ্গা আর গোরক্ষার মতো ধর্মান্ধ বিষয় ছাড়া আর কিছুই বোঝেন না মোদি ৷’ কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা টুইটে বলেন, ‘ভাগ করে শাসন করার নীতি মোদীরও। কংগ্রেস ব্রিটিশ শাসকদের তাড়িয়েছে, এ বার মোদির শাসনকেও তাড়াবে।’

শত প্রশ্ন সত্ত্বেও মুখ কোলেননি মোদি ৷ অবশেষে নীরবতা ভেঙে News18 -কে মোদি বলেন, ‘আমার ২০ বছর ধরে কষ্ট করে গড়ে তোলা ইমেজ নষ্ট করতে গিয়ে এখন এদের নিজেদেরই ভাবমূর্তি নষ্ট হওয়ার যোগাড় ৷ আমার এদের উপর দয়া হয় ৷’ এখানেই না থেমে তিনি আরও বলেন, ‘আমাকেই এখন প্রথমে বুঝতে হবে বিভাজনটা কেমন? উলম্ব না আনুভূমিক? আদৌ কি তার অস্তিত্ব রয়েছে ৷ যদি ভারতে বিভাজনের অস্তিত্ব থাকলে আজ ভারতে মেরুকরণ হয়ে যেত ৷ আজ যদি ভারতের কোনও ব্যক্তি আমার মধ্যে নিজের ছবি দেখেন তাহলে তাতে দুঃখ পাওয়ার কি আছে? এখন গরীবরা শুধু নিজেদের নয়, দেশের ভালও করতে চান না ৷ দেশের দরিদ্র মানুষেরা জাতপাত ছেড়ে যদি নিজেদের সন্তানের ভবিষ্যত নিয়ে ভাবে, তাহলে তো আমাদের গর্ব করা উচিত ৷ ’

মোদি বলেন, গত ৭০ বছরে ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতিতে যারা জড়িত তারা মুসলিমদের হুমকি দেয় এদিকে, সেই দোষ অন্যের ঘাড়ে চাপায় ৷ লোকসভা ভোটের অন্তিম দফার আগে টাইম ম্যাগাজিনের বিতর্কিত প্রসঙ্গ নিয়ে মোদি স্পষ্ট করলেন নিজের অবস্থান ৷

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৫ সালের ১৮ মে সংখ্যাতেও নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে প্রচ্ছদ কাহিনী ছেপেছিল টাইম। সেই প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিলো, মোদি কি পারবেন?, ‘ক্যান মোদী ডেলিভার?’। আগামী পাঁচ বছরের বহু স্বপ্নের কথা সেই পত্রিকাকে বলেছিলেন মোদি।

First published: 06:15:41 PM May 15, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर