• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • SOUTH24 FORMER PANCHAYAT CHIEF SEVERELY REPRIMANDED ARABUL ISLAM IN BHANGAR

ভাঙরে আরাবুলকে তীব্র ভৎসনা প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধানের

ভাঙরে আরাবুলকে তীব্র ভৎসনা প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধানের

"ভাঙড়ে দলের হার হয়েছে আরাবুলের কারণেই" আরাবুলকে তীব্র ভৎসনা প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধানের

  • Share this:

    রুদ্র নারায়ন রায়, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: \"ভাঙড়ে দলের হার হয়েছে আরাবুলের কারণেই। আরাবুলই আই এস এফের সাথে যোগসাজস করে রেজাউল করিমকে হারিয়েছেন।\" এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন দলেরই এক স্থানীয় নেতৃত্ব।

    কিছুদিন আগে ভাঙড়ের তৃণমূল প্রার্থী রেজাউল করিমকে বাক্যবাণে আক্রমন করেছিলেন আরাবুল ইসলাম। তারই পাল্টা হিসাবে রেজাউলকে মঞ্চে বসিয়ে পাল্টা আরাবুলকে আক্রমন করলেন ভাঙড়ের প্রাক্তন এক পঞ্চায়েত প্রধান। ভাঙড় বিধানসভার বেওতা এক গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন প্রধান পাচুগোপাল মণ্ডল। দলীয় কর্মী সভা থেকে তিনি তীব্র আক্রমন করেন আরাবুলকে।

    তৃণমূলের পক্ষ থেকে  বেঁওতা এক গ্রাম পঞ্চায়েতের সুকপুকুর স্কুল মাঠে দলীয় এক কর্মীসভার আয়োজন করা হয়। ওই জনসভায় উপস্থিত ছিলেন ভাঙড় বিধানসভার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা তথা পরাজিত তৃণমূল প্রার্থী রেজাউল করিম, ভাঙড় ২ ব্লক এর কার্যকরী সভাপতি আব্দুর রহিম, ভাঙড় ২ পঞ্চায়েত সমিতির শিক্ষার কর্মাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সহ অন্যান্যরা। গত কয়েকদিন ধরে ভাঙড় বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ১৩ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ১০ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় দলীয় কর্মীসভা করছে আরাবুলের বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর তৃনমূল নেতারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক তৃণমূল নেতা বলেন, আরাবুলকে বাদ দিয়ে ভাঙড়ে দলের সাংগঠনিক শক্তি কতটা তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

    সম্প্রতি ভাঙড় দুই ব্লক তৃণমূলের সভাপতি ওহিদুল ইসলাম ও জেলা পরিষদ সদস্য নান্নু হোসেন মারা যান। ভাঙড় দুই ব্লক তৃণমূলের সভাপতি কে হবেন তা নিয়ে আবারও নতুন করে শুরু হয়েছে দড়ি টানাটানি। সেই কারণে আরাবুলকে বাদ দিয়ে তার বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর নেতারা একত্রিত হয়ে দলের সাংগঠনিক শক্তির পরীক্ষায় নেমেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

    এদিন ওই জনসভায় বেঁওতা এক গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন প্রধান তথা এলাকার তৃণমূল নেতা সত্যজিৎ মণ্ডল ওরফে পাঁচু মণ্ডল আরাবুল ইসলামকে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, আরাবুল ইসলাম যেহেতু নিজে টিকিট পাননি সেই কারণে চক্রান্ত করে দলীয় প্রার্থী রেজাউল করিমকে হারিয়ে দিয়েছেন। তিনি নিজে বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে আইএসএফ ও বিজেপি প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার কথা বলেন। এর আগেও তিনি রেজ্জাক মোল্লাকে হারানোর জন্য চক্রান্ত করেছিলেন। তিনি নিজে একজন তোলাবাজ । বাসন্তী হাইওয়ের উপর গরুর গাড়ি থেকে টাকা তুলছে।

    যদিও পাঁচু মণ্ডলের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে আরাবুল ইসলাম বলেন, ‘পাঁচু আমাদের দলের কেউ নয়। ও বেঁওতাতে আমাদের দুই জন দলীয় কর্মী খুনের আসামি। জেল খেটে বাড়ি ফিরেছে। দল সবটাই জানে। আমার বদনাম করতে মিথ্যে কথা বলছে। মানুষ এর বিচার করবে।‘

    তৃণমূল নেতা রেজাউল করিম বলেন,’ ভাঙড়ে আমাকে হারানোর ক্ষেত্রে দলের ভেতরে অন্তর্ঘাত করা হয়েছিল। দল পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। তবে আমি চাই সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে চলতে।‘

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: