পুজোর ছুটি বাতিল মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কর্মীদের! জোর তৎপরতা মাধ্যমিক পরীক্ষার

পুজোর ছুটি বাতিল মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কর্মীদের! জোর তৎপরতা মাধ্যমিক পরীক্ষার
প্রত্যেক বছর ফেব্রুয়ারি মাসেই সাধারণত মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়ে থাকে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে ২০২১ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষা পিছনোর জল্পনা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।

প্রত্যেক বছর ফেব্রুয়ারি মাসেই সাধারণত মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়ে থাকে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে ২০২১ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষা পিছনোর জল্পনা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: মাধ্যমিকের পরীক্ষা কি নির্ধারিত সময়েই? নজিরবিহীনভাবে পর্ষদের বেশ কয়েকটি বিভাগের কর্মীদের পুজোর ছুটি বাতিল করেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। অন্তত এমনটাই খবর রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সূত্রে। জানা গিয়েছে, পর্ষদের প্রশ্নপত্র সংক্রান্ত বিভাগ-সহ কয়েকটি বিভাগের কর্মীদের পুজোর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। বিশেষত যারা পরীক্ষার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত রয়েছে। আর তার জেরেই জল্পনা বেড়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষার সময়সীমা নিয়ে।

প্রত্যেক বছর ফেব্রুয়ারি মাসেই সাধারণত মাধ্যমিক পরীক্ষা হয়ে থাকে। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে ২০২১ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষা পিছনোর জল্পনা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। বিধানসভা ভোটের পর মাধ্যমিক হওয়ার সম্ভাবনার জল্পনা সম্প্রতি বাড়িয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। যদিও পর্ষদের কর্মীদের পুজোর ছুটি বাতিলের হওয়ার পর জল্পনা বাড়ছে তাহলে কি ফেব্রুয়ারিতেই ২০২১-এর মাধ্যমিক হবে?  এমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না পর্ষদের আধিকারিকরা।

স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর সম্প্রতি স্কুল শিক্ষা সচিবের তরফে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদকে ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসেই পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি কার্যত নিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। যদিও এই বিষয় নিয়ে দুই বোর্ডের কোন আধিকারী কি মন্তব্য করতে রাজি নন। যদিও কতটা সিলেবাসের ওপর ২০২১ সালের ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত নির্দিষ্টভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের জানানো যায়নি স্কুল শিক্ষা দফতর ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে। তবে ৩০ থেকে ৩৫  শতাংশ সিলেবাসও গত মার্চ মাস পর্যন্ত স্কুল হওয়ায় শেষ করা গেছে যা ইতিমধ্যেই স্কুল শিক্ষা দফতরকে জানিয়েছে পর্ষদ। শুধু তাই নয়, আগামী বছর কতটা সিলেবাসের উপর মাধ্যমিক হতে পারে সে বিষয়ে এক প্রশ্নের রিপোর্ট জমা পড়েছে রাজ্য শিক্ষা দফতরের কাছে। সিলেবাস কমিটি এবং মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফের জমা করা রিপোর্টে বলা হয়েছে ২০ থেকে ২৫ শতাংশ সিলেবাসও কাটছাঁট করা যেতে পারে ২০২১-এর মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য।


সে ক্ষেত্রে নভেম্বর মাসের পর অর্থাৎ কালী পূজার পরে রাজ্যের স্কুলগুলি খুলবে নাকি বা দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের আবার নতুন করে স্কুল খুলে ক্লাসরুমে ক্লাস নেওয়া হবে নাকি সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। যদিও সম্প্রতি স্কুল শিক্ষা সচিবের সঙ্গে হয়ে যাওয়া বৈঠকে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ ক্লাস চালুর পক্ষে সওয়াল করা হয়েছে। সে ক্ষেত্রে স্কুল চালু বা ক্লাসরুমে ক্লাস চালুর বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন বলে দুই বোর্ডকে জানিয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরের সচিব। তবে সেক্ষেত্রে প্রস্তাবিত সিলেবাসের ওপরেই যাতে মাধ্যমিক নেওয়া যেতে পারে সেই বিষয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদকে ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি একপ্রকার নিতে বলা হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে ৷ এমনটাই সূত্রের খবর। যদিও ফেব্রুয়ারি মাসে মাধ্যমিক এবং মার্চ মাসে উচ্চমাধ্যমিক নেওয়া অসম্ভব বলেই দুই বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছিল স্কুল শিক্ষা দফতরকে। অন্যদিকে বুধবার অথবা বৃহস্পতিবার এবছরের মাধ্যমিকের রিভিউ ও স্ক্রুটিনির ফল প্রকাশ হতে পারে বলেই পর্ষদ সূত্রের খবর।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: