• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • প্রিন্সেপ ঘাটে মদ্যপদের হাতে প্রহৃত পুলিশ

প্রিন্সেপ ঘাটে মদ্যপদের হাতে প্রহৃত পুলিশ

প্রিন্সেপ ঘাটে মদ্যপদের হাতে প্রহৃত পুলিশ

প্রিন্সেপ ঘাটে মদ্যপদের হাতে প্রহৃত পুলিশ

প্রিন্সেপ ঘাটে মদ্যপদের হাতে প্রহৃত পুলিশ

  • Share this:

    #কলকাতা: প্রিন্সেপঘাটে মত্তদের হাতে মার খেল পুলিশ। মত্ত অবস্থায় প্রিন্সেপঘাটে গন্ডগোল করায় দুই তরুণী ও এক ব্যক্তিকে বাধা দেন দুই পুলিশকর্মী। এর জেরেই উর্দি ছিঁড়ে গালিগালাজ করে মারধর করা হয় তাঁদের। পুলিশকর্মীকে পেটানোর অভিযোগে ধৃত তিনজনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে ব্যাঙ্কশাল আদালত। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে তাঁদের গাড়ি।

    ফের শহরে আক্রান্ত পুলিশ। রবিবার রাতে প্রিন্সেপঘাটে মত্তদের হাতে আক্রান্ত সাউথ পোর্ট থানার এসআই এস কে মিত্র ও এক কনস্টেবল। রাতভর সাউথ পোর্ট থানায় চলল মদ্যপদের বিশৃঙ্খলা।

    রাত একটা দশ। প্রিন্সেপঘাটে একটি গাড়িতে করে মত্ত অবস্থায় আসে দুই তরুণী ও এক ব্যক্তি। তিতাস বন্দ্যোপাধ্যায়, ঈপ্সিতা সেনগুপ্ত ও তপন নন্দী নামে ওই তিনজন এক পুলিশকর্মীর কাছে প্রিন্সেপঘাটের ভিতরে শৌচালয়ের চাবি চায় । পুলিশকর্মী জানান, শৌচালয়টি পুরসভার হওয়ায় তাঁরা চাবি দিতে পারবেন না। তাতেই গন্ডগোলের সূত্রপাত।

    সাউথ পোর্ট থানার এসআই এস কে মিত্রের উর্দি ছিঁড়ে দেয় তিতাস ও ঈপ্সিতা। ঘটনাস্থলে থাকা এক কনস্টেবলকে হেনস্থা করা হয়। পরে পুলিশকর্মীরা পুরসভার সঙ্গে যোগাযোগ করে শৌচালয়ের চাবি খুলে দেয়। তাতেও থামেনি মদ্যপদের তাণ্ডব। অগত্যাতাঁদের আটক করে সাউথ পোর্ট থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। থানায় গিয়েও গালিগালাজ করে ওই তিনজন। চাকরি থেকে বরখাস্ত করার হুমকিও দেওয়া হয়।

    সোমবার সকালে গ্রেফতার করা হয় ওই তিনজনকে। ধৃতদের বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ ৷ পুলিশ পিটিয়ে মামলা -সরকারি কাজে বাধাদান -সরকারি কর্মীকে নিগ্রহ - (মত্ত অবস্থায় গাড়ি চালানোয়) মোটর ভেহিক্যালস অ্যাক্টে মামলা (দায়ের করা হয়েছে) মত্ত তিতাস বন্দ্যোপাধ্যায়, ঈপ্সিতা সেনগুপ্ত ও তপন নন্দীর গাড়িও বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। ধৃতদের দু’দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে ব্যাঙ্কশাল আদালত।

    First published: