পদ্মশ্রী সম্মান পাচ্ছেন ‘বাঁটুল’, ‘হাঁদা-ভোঁদা’, ‘নন্টে-ফন্টে’র শ্রষ্ঠা নারায়ণ দেবনাথ

পদ্মশ্রী সম্মান পাচ্ছেন ‘বাঁটুল’, ‘হাঁদা-ভোঁদা’, ‘নন্টে-ফন্টে’র শ্রষ্ঠা নারায়ণ দেবনাথ
বাঙালির এই প্রিয় মানুষকেই দেওয়া হচ্ছে পদ্মসম্মান ৷

বাঙালির এই প্রিয় মানুষকেই দেওয়া হচ্ছে পদ্মসম্মান ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: বাঙালিদের ছোটবেলা মানেই সকাল-বিকেল-দুপুর হাঁদা-ভোঁদা, নন্টে-ফন্টে কিংবা বাঁটুল দ্য গ্রেটের কাণ্ডকারখানার চোখ ডুবিয়ে ৷ আজও নস্ট্যালজিয়ায় সেই কমিকসের পাতা ৷ সেই কেল্টুদা-র বজ্জাতি ৷ ছোটবেলার কথা উঠলে এসব মনে পড়তে বাধ্য ৷ এর সৃষ্টিকর্তার নাম বাঙালির মুখে মুখে ৷ হ্যাঁ, প্রবাদপ্রতীম নারায়ণ দেবনাথ ৷ বাঙালির এই প্রিয় মানুষকেই দেওয়া হচ্ছে পদ্মসম্মান ৷ এবছরে পদ্মশ্রী সম্মানে সম্মানিত হচ্ছেন লেখক-চিত্রশিল্পী  নারায়ণ দেবনাথ ৷

    নারায়ণ দেবনাথের পৈতৃক নিবাস ছিল বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জের বিক্রমপুরে। তবে তাঁর জন্ম ১৯২৫ সালে হাওড়া জেলার শিবপুরে ।  ভর্তি হন ইন্ডিয়ান আর্ট কলেজের চিত্রকলা বিভাগে। সময়টা ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ৷ আর এই টালমাটাল সময়ের কারণে শেষ পর্যন্ত পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি তিনি। কিন্তু তত দিনে অপার উৎসাহে রপ্ত করেছেন আঁকাআঁকির যাবতীয় কলাকৌশল আর দর্শন। কেরিয়ার শুরু  প্রসাধনসামগ্রীর লোগো, মাস্টহেড আর সিনেমা কোম্পানির বিভিন্ন লিফলেটের কাজ জুটতে লাগল টুকটাক করে। কাজের মান দেখে বাজারে নাম ছড়িয়ে পড়তে মোটেই দেরি হয় না তাঁর। কিন্তু এটুকুতে সাধ ভরছিল না তাঁর ৷ নতুন কিছু করার স্বপ্ন তাঁকে ভাবিয়ে চলছিল। ভাবতে ভাবতেই হঠাৎ হাতে এসে যায় শুকতারা পত্রিকা। ব্যস, সেখানেই প্রথম তাঁর হাত থেকে সৃষ্টি হয় বাঁটুল দ্য গ্রেট ৷ তারপর একে একে নন্টে-ফন্টে ও হাঁদা ভোঁদা ৷ যা কিনা বাঙালির ছোটবেলাকে এখনও মাতিয়ে রাখে ৷

    Published by:Akash Misra
    First published: