কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পেঁয়াজের পর এবার দাম বাড়ছে সরষের তেলের ! দুশ্চিন্তায় কপালে ভাজ মধ্যবিত্তের

পেঁয়াজের পর এবার দাম বাড়ছে সরষের তেলের ! দুশ্চিন্তায় কপালে ভাজ মধ্যবিত্তের

২০২০ সাল ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। সাধারণ মানুষ খাদ্য জোগাড়ে হিমশিম খাচ্ছে

  • Share this:

#কলকাতা: হেঁসেল নিয়ে সমস্যায় পড়েছে সাধারণ মানুষ। দিনের পর দিন রান্না ঘরের অত্যাবশকীয় জিনিসের দাম নিয়ে সমস্যায় জেরবার বাঙালী। তেল দেওয়ার দিন শেষ হয়ে আসছে। কারণ ভোজ্য তেলের দাম বাড়ছে দিনের পর দিন।

বরাবরই শীত কালে সরষের তেলের চাহিদা বাড়ে। কারণ শীতের মরশুমে মানুষ ভাজা খেতে বেশ পছন্দ করে। বহু মানুষ আছেন যারা শীতে রুক্ষ ত্বকের জন্য,শরীরে সরষের তেল মাখেন। উপরন্তু শীত কালে পাম, রাইস, ইত্যাদি তেল জমে যাওয়ার জন্য, সরষের তেলের চাহিদা বেড়ে যায়।

কলকাতার সরিষার তেলের কারবারিদের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর সরিষার চাষ অনেকটা দেরিতে শুরু হয়েছে,প্রাকৃতিক কারণে। উপরন্তু পঙ্গপাল এসে পঞ্জাব, হরিয়ানা, রাজস্থানে সরিষার ক্ষেতের বিপুল পরিমাণে শস্যের ক্ষতি করে দিয়ে গেছে। যার ফলে সরিষার যোগান অনেক কম এই বছরে। ফলে সরিষার দামও বেশ খানিকটা বেড়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি মাস না এলে কেউ বলতে পারছে না, এই ভোজ্য তেলের দাম কোথায় গিয়ে পৌঁছাবে!

বাজারে এমনি খুচরো দোকানে গত এক মাস আগে সরিষার দাম ছিল,৭০-৮০ টাকা কেজি। এখন সেই সরিষা ১৩০-১৪০ টাকা কেজি।বিশুদ্ধ সরষের তেল গত এক মাস আগে দাম ছিল ১১৫ টাকা কেজি।এখন সেই সরষের তেলের দাম হয়ে গেছে,১৪০-১৫০ টাকা কেজি।

এই সরিষার তেলের দাম বাড়ার পেছনে ব্যবসায়ীরা, পরিবহনের জ্বালানী তেলের দাম বাড়া, ও শ্রমিকের মজুরি বেড়ে যাওয়াকে অনেকটা দায়ী করছেন। পোস্তা বাজারের তেলের মার্চেন্ট দের বক্তব্য,- 'সরিষার যোগানের সঙ্গে সঙ্গে, তেলের দাম আরো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্যাকেট জাত সরিষার তেলের দাম ,খুচরো তেলের থেকে অনেকটা বেশি ছিল।সেই প্যাকেট জাত তেলের দাম এখন অনেকেরই লিটার ২০০ টাকার কাছ কাছি।তবে বিশুদ্ধ তেল খেতে গেলে,সাধারণ মানুষকে যে নাকের জল চোখের জল ফেলতে হবে, সেটা বলার অপেক্ষা থাকেনা।

সাধারণ মানুষের মধ্যে বাজারের প্রতিটা নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম নিয়ে ক্রমাগত অসন্তোষ সৃষ্টি হচ্ছে।প্রত্যেকেই বাজার দর ঊর্ধ্বমুখী হওয়া নিয়ে,দুই সরকারকেই দুষছে। মানুষের নিত্যদিনের জীবন জীবিকা নিয়ে রাজনৈতিক সক্রিয়তার ফলে,নিম্ন বিত্ত ও মধ্যবিত্তরা বিপাকে পড়ছেন। কিছু মানুষের আরো দাবী,খেতে পায়না,সাধারণ ১৫০-২০০ টাকা রোজ আয়ের কোনো নেতা নেই। সবকিছুর মধ্যে দুর্নীতির গন্ধ পাচ্ছে সবাই। তবে হেঁসেলের পাঁচন নিয়ে ধন্দে সবাই।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: November 24, 2020, 5:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर