• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • HEALTH COMMISSION WANTS PRIVATE HOSPITALS OF BENGAL TO LEARN FROM CMC VELLORE DMG

Private Hospitals in Bengal: ভেলোরে চিকিৎসার খরচ কম কীভাবে? রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে শিখতে বলল কমিশন

ভেলোরের সিএমসি হাসপাতালের থেকে রাজ্যের হাসপাতালগুলিকে শেখার পরামর্শ স্বাস্থ্য কমিশনের৷

স্বাস্থ্য কমিশনের এই অভিযোগ এবং সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করা হয়েছে অ্যাসোসিয়েশন অফ হসপিটালস অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার তরফে (Private Hospitals in Bengal)৷

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের নামজাদা বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে দীর্ঘমেয়াদী চিকিৎসা করানো মানেই রোগীর পরিবারের সর্বস্বান্ত হওয়ার অবস্থা৷ এমন অভিযোগ বহু ক্ষেত্রেই ওঠে৷ অতিরিক্ত বিল করার অভিযোগ বন্ধ করতে ভেলোরের ক্রিশ্চান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে শিক্ষা নিক রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলি৷ এমনই মত রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের৷ জটিল চিকিৎসাতেও রোগীর পরিবারের উপর চাপ না বাড়িয়ে কীভাবে বিল নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, সেই শিক্ষা দিতে রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে ভেলোরের ওই নামজাদা হাসপাতালের বিলও পাঠানো হচ্ছে স্বাস্থ্য কমিশনের তরফে৷ যদিও স্বাস্থ্য কমিশনের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নয় রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালদের সংগঠন৷

গত এপ্রিল মাসে বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন উত্তর চব্বিশ পরগণার ব্যারাকপুরের বাসিন্দা বিকাশ চন্দ্র মণ্ডল৷ ৪৭ বছর বয়সি বিকাশ চন্দ্র মণ্ডলকে প্রথমে ব্যারাকপুরের সরকারি বি এন বসু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ সেখান থেকে প্রথমে বারাসতের নারায়ণা এবং তার পর ই এম বাইপাসের ধারে ফর্টিস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় ওই ব্যক্তিকে৷ বিকাশবাবুর পরিবারের অভিযোগ, দশ দিনে ফর্টিস হাসপাতালে বিল দাঁড়ায় ৪ লক্ষ ৯৭ হাজার টাকা৷ বিকাশবাবুর চোটগ্রস্ত পায়ে গ্যাংগ্রিনও হয়ে যায়৷ এমন কি, পা বাদ দিতে হতে পারে বলে পরিবারকে জানানো হয় হাসপাতালের তরফে৷

এর পরই হাসপাতালে মুচলেকা দিয়ে বিকাশবাবুকে ফর্টিস হাসপাতাল থেকে ছাড়িয়ে ভেলোরে নিয়ে যায় তাঁর পরিবার৷ সেখানে ক্রিশ্চান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে৷ ১৯ দিন ভেলোরের ওই হাসপাতালে চিকিৎসার পর অনেকটাই সুস্থ হয়ে ওঠেন বিকাশ চন্দ্র মণ্ডল৷ ১৯ দিনে হাসপাতালের মোট বিল দাঁড়ায় ১ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা৷ কলকাতার হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে বিপুল ব্যয় এবং প্রত্যাশিত ফল না পাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে স্বাস্থ্য কমিশনের নজরে আনে বিকাশবাবুর পরিবার৷ এই ঘটনার উদাহরণকে সামনে রেখেই রাজ্যের বড় বড় বেসরকারি হাসপাতালগুলির অতিরিক্ত বিল তৈরির প্রবণতায় রাশ টানতে উদ্যোগী হয়েছে কমিশন৷ ভেলোরের ওই হাসপাতাল বিকাশবাবুর চিকিৎসার খরচ বাবদ যে বিল তাঁর পরিবারকে দিয়েছে, তারই কপি এবার রাজ্যের সব বড় বড় বেসরকারি হাসপাতালে পাঠাচ্ছে কমিশন৷ স্বাস্থ্য কমিশন চায়, কীভাবে জটিল চিকিৎসার বিলও নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব, তা ভেলোরের ক্রিশ্চান মেডিক্যাল কলেজের থেকে শিখুক এ রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলি৷

যদিও স্বাস্থ্য কমিশনের এই অভিযোগ এবং সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করা হয়েছে অ্যাসোসিয়েশন অফ হসপিটালস অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার তরফে৷ সংগঠনের তরফে সভাপতি রূপক বড়ুয়া বিবৃতি দিয়ে দাবি করেছেন, ভেলোরের সিএমসি হাসপাতাল চালায় একটি ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে চলে৷ ফলে কর্পোরেট হাসপাতালের সঙ্গে তাদের আর্থিক কাঠামোর ফারাক রয়েছে৷ বেসরকারি হাসপাতাগুলির সংগঠনের আরও দাবি, দক্ষিণ ভারত বা ভারতের অন্যান্য অংশের বেসরকারি হাসপাতালগুলির তুলনায় এ রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার খরচ অনেকটাই কম৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে রোগীদের থেকে অতিরিক্ত বিল আদায়ের অপপ্রচার চলছে, যা মানুষের মধ্যে রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে নিয়ে ভ্রান্ত ধারণা তৈরি করছে৷ রোগীর পরিবারের আস্থা বৃদ্ধিতে পাল্টা সরকারি কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চেয়েছে বেসরকারি হাসপাতালগুলির এই সংগঠন৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: