Firhad Hakim at KMC: কাটল বন্দিদশা, পুরসভায় এসেই পুরনো মেজাজে ফিরহাদ

কলকাতা পুরসভায় ফিরহাদ হাকিম৷

নারদ কাণ্ডে (Narada Case) গ্রেফতারি এবং তার পর গৃহবন্দি থাকার জেরে প্রায় দু' সপ্তাহ পর এ দিন পুরসভায় আসেন ফিরহাদ (Firhad Hakim)৷

  • Share this:
#কলকাতা: শুক্রবারই কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে কেটেছিল গৃহবন্দি দশা৷ আর শনিবার সকাল থেকেই কলকাতা পুরসভায় এসে পুরোদমে কাজ শুরু করে দিলেন ফিরহাদ হাকিম৷ এ দিন ফের পুরনো মেজাজেই পাওয়া গেল কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের প্রধান এবং রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রীকে৷

এ দিন সকালে বাড়ি থেকে বেরিয়ে প্রথমে চেতলার মেয়র্স ক্লিনিকে চলে যান ফিরহাদ৷ সেখানে করোনার টিকাকরণ নিয়ে খোঁজখবর নেন তিনি৷ এর পর সোজা চলে আসেন কলকাতা পুরসভায়৷

নারদ কাণ্ডে গ্রেফতারি এবং তার পর গৃহবন্দি থাকার জেরে প্রায় দু' সপ্তাহ পর এ দিন পুরসভায় আসেন ফিরহাদ৷ প্রতি শনিবারই পুরসভায় 'টক টু কেএমসি' অনুষ্ঠানে অংশ নেন ফিরহাদ৷ টেলিফোনে সাধারণ মানুষের বিভিন্ন অভাব অভিযোগের কথা শোনেন তিনি৷ এ দিন অবশ্য নির্দিষ্টসময়ের এক ঘণ্টা পর সেই অনুষ্ঠান শুরু হয়৷ টিকা না পাওয়ার অভিযোগ থেকে শুরু করে বাড়ির সামনে জমা জলের সমস্যা, সব অভিযোগই ধৈর্য ধরে শুনে নির্দিষ্ট সমাধানের আশ্বাস দেন তিনি৷ গত দু' সপ্তাহ এই অনুষ্ঠান করা যায়নি৷ ফলে, এ দিন আমজনতার ফোনের সংখ্যাও ছিল কিছুটা বেশি৷

গ্রেফতারির পর প্রথমে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছিল৷ বাড়িতে থেকেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে পুরসভার কাজকর্মের উপর নজর রাখছিলেন ফিরহাদ৷ কলকাতায় ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় কী প্রস্তুতি নেওয়া হবে, তার তদারকিও বাড়িতেই বসেই সারতে হয় তাঁকে৷ এ দিন অবশ্য ফিরহাদ বলেন, 'বাড়িতে থাকলেও আমার হৃদয়টা পুরসভাতেই পড়েছিল৷'

এ দিন পুরসভায় এসে বেশ কিছু জরুরি বৈঠকও সারেন ফিরহাদ৷ কলকাতার প্রতিটি মানুষকে যাতে টিকা দেওয়া যায়, সেটা নিশ্চিত করাই তাঁর লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন তিনি৷ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, কলকাতায় যে সমস্ত বাড়িতে স্থায়ী ভাবে পরিচারক-পরিচারিকারা থাকেন, তাঁদেরও টিকাকরণের ব্যবস্থা করা চেষ্টা করা হচ্ছে৷

গত ১৭ মে নারদ কাণ্ডে সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার হতে হয়েছিল ফিরহাদ হাকিম সহ চার নেতাকে৷ প্রায় দু' সপ্তাহ পর শুক্রবার তাঁদের অন্তর্বর্তী জামিনের নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চ৷

Paradip Ghosh
Published by:Debamoy Ghosh
First published: