গড়িয়াহাটে বৃদ্ধা খুনে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, গ্রেফতার বড় বউমা ও নাতনি

গড়িয়াহাটে বৃদ্ধা খুনে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, গ্রেফতার বড় বউমা ও নাতনি
বৃদ্ধা ফ্ল্যাট দিতে রাজি না হওয়ায় খুন

বৃদ্ধা ফ্ল্যাট দিতে রাজি না হওয়ায় খুন। খুনে জড়িত বউমার প্রেমিকও।

  • Share this:

Sujay Pal

#কলকাতা: ফ্ল্যাট-সহ সম্পত্তি লিখিয়ে নিতে বারবার চাপ। সুযোগ বুঝে খাবারে মেশানো হয় ঘুমের ওষুধ। গলা কেটে বাকি কাজটা করে প্রেমিক। গোটা পরিকল্পনা রিচি রোডের ফ্ল্যাটে বসে পরিচালনা করেন বড় বউমা। ২৪ ঘণ্টার মধ্য়ে গড়িয়াহাটে বৃদ্ধা খুনের কিনারা করে দাবি গোয়েন্দাদের। গ্রেফতার ঊর্মিলা ঝুন্ডের বড় বউমা ডিম্পল ও নাতনি কনিকা। বউমার প্রেমিককে খুঁজতে পঞ্জাবে কলকাতা পুলিশ।

গড়িয়াহাটে বৃদ্ধা খুনের চাঞ্চল্যকর তথ্য এলো পুলিশের কাছে। আততায়ী এতটাই নৃশংস ছিল যে বৃদ্ধা উর্মিলা ঝুন্ড (৭০)-এর হৃদযন্ত্র সচল থাকাকালীনই তাঁর গলা কেটে শরীর থেকে আলাদা করে দিয়েছিল। যে কারণে ফিনকি দিয়ে রক্ত বেরিয়ে সারা ঘরে ছড়িয়ে পরে। তারপরও শান্ত হয়নি আততায়ী। একই অস্ত্র দিয়ে পেট ফেড়ে দেয়। তারপর শরীরের একাধিক জায়গায় প্রায় ২০ বার কোপানো হয়।

বৃহস্পতিবার গড়চা ফার্স্ট লেনের এই বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয়েছিল বছর সত্তরের ঊর্মিলা ঝুন্ডের ক্ষতবিক্ষত দেহ। পুলিশের দাবি...

বুধবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ ঠাকুমাকে খাবার দিতে গড়চায় যান বড়ছেলে মনদীপের মেয়ে কনিকা। গোয়েন্দাদের দাবি, খাবারে মেশানো ছিল ঘুমের ওষুধ। একবার নয়, দু’বার ওই বাড়িতে ঢোকেন কনিকা। মূলত ঘুমের ওষুধে ঊর্মিলা কাবু হয়েছেন কিনা, তা নিশ্চিত হতেই দ্বিতীয়বার বাড়িতে ঢুকেছিলেন কনিকা। আততায়ীর জন্য দরজা খোলা রেখেই পাশের ঘরে চলে যান। গোয়েন্দাদের দাবি, সুযোগ বুঝে ঘরে ঢোকে আততায়ী। কাজ শেষ করে দু’জনেই চলে যায়।

এদিন দফায় দফায় জেরার পর গোয়েন্দাদের দাবি, রিচি রোডের ফ্ল্যাট থেকে শাশুড়ি খুনে নির্দেশ দিয়েছিলেন বউমা ডিম্পল। পুলিশ প্রাথমিক ভাবে নিশ্চিত, ঊর্মিলাকে কুপিয়ে ছিল ডিম্পলের প্রেমিক। কিন্তু কেন খুন ?

লালবাজারের দাবি, পারিবারিক ব্যবসার সব টাকা থাকত ঊর্মিলার কাছে। ব্যবসা ছিল দুই ছেলে মনদীপ এবং বলরাজের নামে। বছর খানেক আগে মারা যান মনদীপ। সিদ্ধান্ত হয় ব্যবসার আয়ের একটা অংশ পাবেন ডিম্পল। কিন্তু ডিম্পল আরও টাকা দাবি করেন। রিচি রোডের ফ্ল্যাটও ছিল দুই ভাইয়ের নামে। সেই ফ্ল্যাটের মালিকানাও দাবি করেন।

পুলিশের দাবি, গত কয়েক মাস আগে পঞ্জাবের এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় ডিম্পলের। বারে ঘনিষ্ঠতা। গড়িয়াহাটে বৃদ্ধা খুনের ঘটনায় গোয়েন্দারা প্রাথমিক ভাবে মনে করছেন, মাস খানেক আগেই ঊর্মিলা খুনে ছক তৈরি হয়েছিল। মেয়ে এবং প্রেমিকাকে নিয়েই শাশুড়িকে খুনের ছক কষেছিলেন ডিম্পল।

সেই সুযোগ চলে আসে বুধবার রাতে। ফাঁকা বাড়িতেই আক্রমণ করা হয় বৃদ্ধার উপর। লুঠ করা হয় কিছু গয়না এবং টাকার বান্ডিল। শনিবারই আদালতে তোলা হচ্ছে এই ঘটনায় ধৃত ডিম্পল এবং কনিকাকে। তাদের বিরুদ্ধে খুন,ষড়যন্ত্র এবং লুঠের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

First published: 07:57:07 PM Dec 13, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर