অলিগলিতে লকডাউন মানা হচ্ছে কিনা দেখতে সিসিটিভি বসাচ্ছে লালবাজার

অলিগলিতে লকডাউন মানা হচ্ছে কিনা দেখতে সিসিটিভি বসাচ্ছে লালবাজার

পুলিশ সূত্রে খবর, এবার কলকাতার প্রত্যেকটি থানা এলাকার অলিগলিতে নজর রাখতে অতিরিক্ত সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এবার কলকাতার প্রত্যেকটি থানা এলাকার অলিগলিতে নজর রাখতে অতিরিক্ত সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রশাসনিক কড়াকড়ির পর শহরের বড় রাস্তা গুলিতে মানুষের চলাচল আগের থেকে বেশ কিছুটা কমেছে। কিন্তু পুলিশের উদ্বেগ অলিগলি নিয়েই। কারণ, কলকাতার অজস্র অলিগলিতে এখনও সাধারণ মানুষ কোনও নিয়ম কানুন মানছে না বলে অভিযোগ। অলিগলি ঘুরলেই ধরা পড়ছে লোক সমাগমের ভয়ঙ্কর ছবি। তাই অলিগলিতে কারা বেরচ্ছে সেদিকে নজর রাখতে কলকাতা পুলিশের ভরসা এখন সিসিটিভি ক্যামেরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, এবার কলকাতার প্রত্যেকটি থানা এলাকার অলিগলিতে নজর রাখতে অতিরিক্ত সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ড্রোন উড়িয়ে যে সমস্ত এলাকাগুলিকে চিহ্নিত করা হয়েছে, পাশাপাশি প্রশাসনের তরফে যে এলাকাকে হটস্পট বলে চিহ্নিত করা হয়েছে, সেই এলাকার অলি-গলিতে নজর রাখার জন্যই বাড়তি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু হয়েছে কলকাতায়।

সোমবার থেকেই শুরু হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর কাজ। প্রাথমিকভাবে বউবাজার থানা এলাকার অলিগলিতে সিসিটিভি বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর, বউবাজার থানা এলাকাতেই অতিরিক্ত ১২টি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হচ্ছে। যে এলাকায় আগে সিসিটিভি ক্যামেরা ছিল না সেই এলাকাগুলিতেও বসছে সিসিটিভি ক্যামেরা। তবে তার মধ্যে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে হটস্পট এলাকার অলিগলি।

সিসিটিভি ক্যামেরা মনিটরিং করা হবে প্রত্যেক থানা থেকে। থানায় বসে অফিসারেরা সিসিটিভির মাধ্যমে নজর রাখবেন গলির রাস্তায় কে বা কারা নিয়ম মানছে না, কিংবা গলিতে কারা অযথা ভিড় জমাচ্ছে। তাদেরকে সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে লালবাজারের তরফ।

কলকাতার বেশকিছু এলাকাকে হটস্পট ঘোষণা করার পর ইতিমধ্যেই সেই এলাকার গলির রাস্তাগুলি সিল করে দেওয়া হয়েছে পুলিশের তরফে। তারপরও বহু জায়গায় সাধারণ মানুষ গলির ভিতর অযথা ঘোরাঘুরি করছে বলে অভিযোগ। কারা ঘুরছে তাদের চিহ্নিত করে ঘরে রাখার জন্যই সিসিটিভির উপর ভরসা রাখছে লালবাজার।

কলকাতা পুলিশের এক অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার বলেন, "প্রাথমিকভাবে বউবাজার এলাকাতেই গলিতে নজর রাখার জন্য বারোটি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। পরবর্তীতে অন্য থানা এলাকাতেও এই ধরনের সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর ব্যাপারে ভাবা হচ্ছে।"

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: