Harris Holi : "ভেদাভেদ ভুলে এক হওয়ার আহবান", হ্যারিসের হোলি বার্তা ট্যুইটারে!

Harris Holi : "ভেদাভেদ ভুলে এক হওয়ার আহবান", হ্যারিসের হোলি বার্তা ট্যুইটারে!

হ্যারিসের হোলি-বার্তা Photo - File Photo

অতিমারি আবহে রঙের উৎসব এক সদর্থক বার্তা বয়ে আনে বলেও মন্তব্য করেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস।

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন: হোলি উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা জানালেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস৷ ট্যুইটারে হোলির শুভেচ্ছা জানিয়ে সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷ অতিমারি আবহে রঙের উৎসব এক সদর্থক বার্তা বয়ে আনে বলেও মন্তব্য করেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস। দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় হিসেবে তিনিই আমেরিকার প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট।

    নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে হ্যারিস লেখেন, "শুভ হোলি! বন্ধুবান্ধব ও প্রিয়জনের সঙ্গে রং নিয়ে আনন্দে মেতে ওঠার উৎসব হোলি৷ সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে একত্রিত হওয়ার বার্তা দেয় এই রঙের উৎসব ৷ সারা বিশ্বে করোনা কালের মত কঠিন পরিস্থিতিতে এই সদর্থক বার্তা নিয়ে এসেছে এই উৎসব যা গোটা পৃথিবীকে একত্রিত হতে শেখায়৷"

    হোলি প্রধানত হিন্দুদের উৎসব হলেও, সকলে বিশ্বাসের সঙ্গে এই উৎসব পালন করে ৷ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যখন বসন্তের নতুন ফসল ঘরে ওঠে তখনই এই হোলি পালন করা হয় ৷ মিষ্টি মুখ, ঠান্ডাই খাওয়া থেকে শুরু করে আবির, রং জলে গুলে, রঙিন জলের বেলুন দিয়ে হোলি খেলায় মেতে ওঠেন নারী-পুরুষ-শিশুরা৷ মূলত ভারতীয় এই উৎসবে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্টের এই ট্যুইটার বার্তা তাঁকে যেন আরও খানিকটা কাছের করে দিল ভারতীয়দের কাছে।

    প্রসঙ্গত, ভারতের সঙ্গে তাঁর নাড়ির যোগ বরাবরই উষ্ণতার সঙ্গে ভারতীয়দের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন হ্যারিস। ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে শপথ নেওয়ার পরেও তাঁর সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল থেকে তিনি বলেন "তরুণী বয়সে দক্ষিণ ভারত থেকে আমেরিকা পাড়ি দিয়েছিলেন তাঁর মা, ক্যানসার গবেষক শ্যামলা। একটা সময়ে প্রায় একা হাতেই দুই মেয়েকে মানুষ করেছেন তিনি। শিখিয়েছিলেন ভারতীয় ঐতিহ্য। কমলার কথায়, ‘‘আমাদের দুই বোনকেই মা শিখিয়েছিলেন, আমরা প্রথম হতে পারি, কিন্তু আমাদের পরে কোনও কিছু যেন থেমে না থাকে। ’’  ঐক্যবদ্ধভাবে আমেরিকার পুনর্গঠনের কথাও বার বার বলেছেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট।  দলেও তাঁর গলায় শোনা গেল সেই সুর।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: