• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • ৩ মাস ধরে নদীতে ভেসে আসছে মূল্যবান সোনা-রুপোর গয়না! হুলস্থুল গ্রামবাসীদের মধ্যে

৩ মাস ধরে নদীতে ভেসে আসছে মূল্যবান সোনা-রুপোর গয়না! হুলস্থুল গ্রামবাসীদের মধ্যে

বহু গ্রামবাসী দাবি করেছেন তাঁরা নদী থেকে মূল্যবান অলঙ্কার পেয়েছেন । যা বিপুল দামে বাজারে বিক্রি করেছেন তাঁরা ।

বহু গ্রামবাসী দাবি করেছেন তাঁরা নদী থেকে মূল্যবান অলঙ্কার পেয়েছেন । যা বিপুল দামে বাজারে বিক্রি করেছেন তাঁরা ।

বহু গ্রামবাসী দাবি করেছেন তাঁরা নদী থেকে মূল্যবান অলঙ্কার পেয়েছেন । যা বিপুল দামে বাজারে বিক্রি করেছেন তাঁরা ।

  • Share this:

    #ভেনিজুয়েলা: ২০২০ সালটা অবশ্যই অন্যরকম । কিছুটা খাপছাড়া, কিছুটা শকিং, কিছুটা ঘেঁটে ঘ, আবার খানিকটা রহস্যজনকও । এ বছর এমন অনেক ঘটনা ঘটেছে যা আগে কখনও বিশ্ববাসী কল্পনাও করতে পারেনি । তেমনই ক্যারাবিয়ান সাগর দিয়ে ঘেরা ভেনিজুয়েলার গুয়েকা নামের এই ছোট্ট গ্রামের বাসিন্দারাই কী ভেবেছিলেন, তাঁদের গ্রামের নদীতে ভেসে আসবে বহু মূল্যবান সোনা-রূপোর সব গয়না!

    তবে গত তিন মাস ধরে এমনটাই হচ্ছে গত সেপ্টেম্বর মাস থেকে । ভেনিজুয়েলার একটি জেলেদের গ্রামে প্রতিনিয়ত ঘটে চলা এমন ঘটনায় তাজ্জব বনে গিয়েছেন গ্রামবাসীরাও । আর খুব স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি নিয়ে হুলস্থুল পড়ে গিয়েছে । গ্রামবাসীরা নদীতে নেমে গয়না সংগ্রহে ব্যস্ত । এই আজব কান্ড দেখতে আশেপাশের এলাকা থেকেও ভিড় জমাচ্ছেন অনেকে । কেউ কেউ আবার গয়নার খোঁজে দিনরাত এক করে নদীর জলে দাঁড়িয়ে রয়েছেন ।

    সেপ্টেম্বর মাসে প্রথম নদীর জল থেকে একটি সোনার মেডেলের মতো জিনিস হাতে পান ২৫ বছরের ইয়লমান লারেন নামের গ্রামেরই এক মহিলা । ওই টুকরোয় মাদার মেরির প্রতিকৃতি খোদাই করা ছিল । নিজের ভাগ্যকে বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না লারেন । সোনার মেডেলটি হাতে নিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন তিনি । নিউ ইয়র্ক টাইমস’কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে লারেন বলেন, জীবনে এই প্রথম তাঁর সঙ্গে এত ভাল কিছু ঘটল । সংবাদপত্রে খবরটি ছাপা হতেই বিষয়টি জানাজানি হয় । নিমেষের মধ্যে ওই গ্রামে লোক সংখ্যা বাড়তে থাকে । অনেকেই ঘন্টার পর ঘন্টা জলে দাঁড়িয়ে নিজেদের ভাগ্য পরীক্ষা করতে শুরু করেন । এমনকি ডজন খানেক গ্রামবাসী দাবি করেছেন তাঁরা নদী থেকে মূল্যবান অলঙ্কার পেয়েছেন । যা বিপুল দামে বাজারে বিক্রি করেছেন তাঁরা ।

    কিন্তু সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয়, কোথা থেকেই এই সোনা-রূপোর গয়না নদীর জলে আসছে তা এখনও জানা যায়নি । এ সম্বন্ধে কোনও ধারনা নেই গ্রামবাসীদেরও ।

    Published by:Simli Raha
    First published: