বায়ুমণ্ডলে কার্বন কমাতে অভিনব উদ্যোগ বিল গেটসের, খাচ্ছেন কৃত্রিম মাংস!

বায়ুমণ্ডলে কার্বন কমাতে অভিনব উদ্যোগ বিল গেটসের, খাচ্ছেন কৃত্রিম মাংস!

বায়ুমণ্ডলে কার্বন কমাতে অভিনব উদ্যোগ বিল গেটসের, খাচ্ছেন কৃত্রিম মাংস!

বিল গেটসের শো চলাকালীন একজন প্রশ্ন করেন যে পৃথিবী থেকে কার্বন কম করতে কী করা উচিত?

  • Share this:

#ওয়াশিংটন: বিশ্বের অন্যতম সফল ও ধনী ব্যবসায়ী, সমাজসেবী এবং Microsoft-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস (Bill Gates) অনেক দিন ধরেই জলবায়ুর পরিবর্তন নিয়ে সরব হয়েছেন। তিনি বলেছেন যে ইতিমধ্যেই অনেকটা দেরি আমরা করে ফেলেছি, তাই এবার আর বেশি করে এই ব্যাপারে উদ্যোগী হওয়া উচিত। কিন্তু জলবায়ুর পরিবর্তন একটা বিশাল ও বিস্তৃত ব্যাপার। একার পক্ষে এই নিয়ে লড়াই করা সম্ভব নয়। কিন্তু একেক জন যদি অল্প করেও কিছু কাজ করে, তাহলে পরিবেশকে রক্ষা করা সম্ভব।

বিল গেটস এই বিষয়ে নিজের পরিকল্পনা ব্যক্ত করেছেন। Reddit-এ মাঝে মাঝেই আস্ক মি এনিথিং নামের একটি অনুষ্ঠান করেন তিনি। তাঁর সর্বশেষ শোয়ে তিনি বলেন যে জলবায়ুর পরিবর্তন নিয়ে তিনি একটি বই লিখেছেন। অনেকেই জানেন না যে সারা দিনের অত্যন্ত ব্যস্ত দিনপঞ্জি সামলেও গোগ্রাসে বই পড়েন বিল। তিনি বলেন যে বিগত ১৫ বছরে এনার্জি আর জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে প্রচুর পড়াশোনা করেছেন। কিন্তু এইবার সময় এসেছে সেই সব জ্ঞান বাস্তবে রূপায়িত করার যাতে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে খুব দ্রুত পৌঁছে যাওয়া যায়।

বিল গেটসের শো চলাকালীন একজন প্রশ্ন করেন যে পৃথিবী থেকে কার্বন কম করতে কী করা উচিত? বিলের স্পষ্ট উত্তর- সবার আগে জিনিসের ব্যবহার কম করা উচিত। কিন্তু বিল নিজে কী করেন? তিনিও কি এই ভাবে জিনিসের কম ব্যবহারের নীতি মেনে চলেন? এইবার জানা গেল তাঁর উত্তর! বিশ্বজয়ী বিল জানান যে, কার্বন কম করার জন্য তিনি বেশ কিছু দিন হল কৃত্রিম মাংস বা সিনথেটিক মাংস খাচ্ছেন। তিনি যে জ্বালানি কেনেন, সেটাও গ্রিন অ্যাভিয়েশন ফুয়েল। তিনি যে যানবাহন ব্যবহার করেন, সেগুলো সবই বিদ্যুৎচালিত। তাছাড়া তিনি নিজের বাড়িতে সোলার প্যানেলও বসিয়েছেন যাতে সূর্য থেকেই এনার্জি তৈরি করা যায় পরিবেশ দূষিত না করে।

Microsoft-এর কর্ণধার বলেছেন যে আমাদের জন্য দু'টো ভয়ঙ্কর সত্য গা ঢাকা দিয়ে লুকিয়ে আছে। একটি হল জলবায়ুর পরিবর্তন। এর জন্য অতিমারীর চেয়েও বেশি মানুষ প্রতি বছর মারা পড়বেন বলে অনুমান বিলের।

দ্বিতীয় আশঙ্কা হল বায়ো টেরোরিজম বা জৈব সন্ত্রাস। এর ফলে যে কোনও দেশের উপরে কোনও কৃত্রিম মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে যেতে পারে।

আপাতত বিশ্বের ধনী দেশগুলোকে ১০০% কৃত্রিম মাংস খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। এতে বেশ খানিকটা মিথেনের পরিমাণ কম হবে বলে গেটসের ধারণা।

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর