ওয়াংশিংটনে ট্রাম্প ভক্তদের হিংসায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪, ট্রাম্পের দ্রুত অপসারণ চাইছে মার্কিন সেনেট

ওয়াংশিংটনে ট্রাম্প ভক্তদের হিংসায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪, ট্রাম্পের দ্রুত অপসারণ চাইছে মার্কিন সেনেট

ক্যু-এর চেষ্টায় ট্রাম্প ভক্তরা।

জো বাইডেনের প্রেসিডেন্ট পদে অভিষেকের আগে পর্যন্ত কড়া সামরিক পর্যবেক্ষণের অধীনে থাকবে মার্কিন রাজধানী। মুরিয়েলের ভয়, আবারও হামলা চালাতে পারেন ভোটের ফল মানতে না পার ট্রাম্পপন্থীরা।

  • Share this:

    #ওয়াশিংটন: সকালেই খবর এসেছিল একটি মৃত্যুর। বেলা গড়াতেই খবর মার্কিন রাজধানীতে ট্রাম্পপন্থীরদের হিংসার জেরে অন্তত চারজনের মৃত্যু হয়েছে। পরিস্থিতি বেসামাল দেখেই, ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বউজার ১৫ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করলেন। অর্থাৎ জো বাইডেনের প্রেসিডেন্ট পদে অভিষেকের আগে পর্যন্ত কড়া সামরিক পর্যবেক্ষণের অধীনে থাকবে মার্কিন রাজধানী। মুরিয়েলের ভয়, আবারও হামলা চালাতে পারেন ভোটের ফল মানতে না পার ট্রাম্পপন্থীরা।

    এখনও পর্যন্ত মৃতদের নাম পরিচয় সামনে আনেননি মার্কিন পুলিশ। তবে একটি যাচাই না করা ভিডিওতে দেখা গিয়েছে এক মহিলা রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়েছেন ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ের মেঝেতে। বুধবা ভাঙচুর চালানো হয়েছে মার্কিন হাউজ অব রিপ্রেসেন্টিটিভের স্পিকার ন্যান্সি পোলেসির অফিসেও।

    এই মুহুর্তে সেনেটের প্রতিনিধিরা বলছেন, ক্ষমতার শান্তিপূর্ণ ‌হস্তান্তরের কোনও শর্তই মানেনি ট্রাম্প। তাই নির্ধারিত সময় জানুয়ারির আগেই সংবিধানের ২৫ তম ধারাকে সামনে রেখে সরানো হোক ট্রাম্পকে। বাইডেন দায়িত্ব নেওয়া অবধি সেক্ষেত্রে কাজ করতে পারেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেনস।

    এবারের মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের ভাগ্যে জুটছে ২৩২টি ভোট আর বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬টি ভোট। অথচ যে দিন থেকে ভোটগণনা এবং নির্বাচনী ফলাফল সামনে এসেছে ট্রাম্প কারচুপির অভিযোগ তুলে এসেছেন। একাধিক মামলা করে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট খুব একটা কিছু করে উঠতে পারেননি। এর পরেই বুধবারের একটি জনসভায় ট্রাম্প জিগির তোলেন, আমরা পিছু হটব না। মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলি বলছে, এরপরেই রাস্তায় নেমে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। পরে অবশ্য তাদের শান্ত হওয়ার কথা বলেছিলেন ট্রাম্প ট্যুইটারে। ছোট ভিডিও শেয়ার করে তিনি লেখেন, গো হোম। ভক্তরা তাঁর কথা শোনেনি। কিছুতেই আটকানো যায়নি তাঁদের। ক্যাপিটাল বিল্ডিং আক্রমণের পর পরিস্থিতি সামাল লেগে গিয়েছে ৪ ঘণ্টা।

    Published by:Arka Deb
    First published: