• Home
  • »
  • News
  • »
  • features
  • »
  • ৮৪ বছরের নস্ট্যালজিয়া ‘মেট্রো’ সিনেমা এখন শুধুই ঝাঁ চকচকে শপিং মল

৮৪ বছরের নস্ট্যালজিয়া ‘মেট্রো’ সিনেমা এখন শুধুই ঝাঁ চকচকে শপিং মল

চুরাশির বৃদ্ধ মেট্রো যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলে গেল শপিং মলে। কিছুদিন পর এখানেই চালু হবে মাল্টিপ্লেক্স।

চুরাশির বৃদ্ধ মেট্রো যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলে গেল শপিং মলে। কিছুদিন পর এখানেই চালু হবে মাল্টিপ্লেক্স।

চুরাশির বৃদ্ধ মেট্রো যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলে গেল শপিং মলে। কিছুদিন পর এখানেই চালু হবে মাল্টিপ্লেক্স।

  • Share this:

    #কলকাতা: পুরোন মেট্রোয় নতুনোর ছোঁয়া। চুরাশির বৃদ্ধ মেট্রো যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বদলে গেল শপিং মলে। কিছুদিন পর এখানেই চালু হবে মাল্টিপ্লেক্স। শহরের নতুন প্রজন্ম পেল আর একটা শপিং ডেস্টিনেশন। আর পুরোনদের গলায় শুধুই নস্ট্যালজিয়া। ১৯৩৫। প্রথম ছবি WAYOUT WEST এর হাত ধরে মেট্রো সিনেমার পথচলা শুরু। মার্কিন প্রোডাকশন হাউস MGM তাদের ছবি ব্রিটিশ শাসিত কলকাতায় তাদের ছবি পৌঁছে দিতেই চালু করেছিল এই সিনেমা হল। দেশ স্বাধীন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ইংরেজি ছবির পাশাপাশি সুপারহিট হিন্দি ছবিও জায়গা করে নিল এই প্রেক্ষাগৃহে। মালিকানায় হাতবদল হয়েছে বেশ কয়েকবার। শেষ পর্যন্ত ধুঁকতে থাকা এই হলকে আর বাঁচানো গেল না কোনওভাবেই। হল পরিণত হল মলে। তবে ১৯৩৫ সালে মার্কিন-স্কটিশ আর্কিটেক্ট থমাস ল্যাম্ব, আর্ট-ডেকো আর্কিটেকচারের ধাঁচে যেভাবে তৈরি করেছিলেন সিনেমা হলের অন্দরমহল, তাতে বদল না করে রঙের প্রলেপ ও পালিশের মাধ্যমে নতুন করে তোলা হয়েছে। সবটা না থাকলেও চেনা মেট্রো সিনেমার কিছুটা তো আছে! সেটাই বোধহয় কোথাও একটা ভাল লাগার জায়গা।

    First published: