Lunar Eclipse 2021 & Super Moon & Blood Moon: পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ-সুপারমুন, আজই রাতের আকাশে চাঁদকে ঘিরে ২ মহাজাগতিক ঘটনা! নেপথ্যে কোন রহস্য?

প্রায় ছয় বছরে সুপারমুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসঙ্গে হয়নি। আজ কী ঘটতে চলেছে?

প্রায় ছয় বছরে সুপারমুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসঙ্গে হয়নি। আজ কী ঘটতে চলেছে?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ২৬ মে হতে চলেছে চলতি বছরের প্রথম চন্দ্রগ্রহণ। শুধু তাই নয়, এ দিন চন্দ্রের পূর্ণ গ্রহণ দেখা যাবে। সঙ্গে আরও একটি দুর্লভ মহাজাগতিক দৃশ্য সংঘটিত হতে চলেছে। পৃথিবীর সব চেয়ে কাছে চলে আসায় চাঁদ হবে ২০২১ সালের সব চেয়ে নিকটস্থ এবং সর্ববৃহৎ পূর্ণচন্দ্র (Full Moon) বা সুপারমুন (Supermoon)।

২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসের পর আজ আবারও বিরল মহাকাশ দৃশ্যের সাক্ষী থাকবে পৃথিবীবাসী। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, প্রায় ছয় বছরে সুপারমুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসঙ্গে হয়নি।

*সুপারমুন কী?

আসলে চাঁদ যে পথে পৃথিবীর চারপাশে ঘোরে, তা পুরোপুরি গোলাকার নয়, অনেকটা দেখতে উপবৃত্তাকার। ফলে পৃথিবীর চারিদিকে ঘুরতে ঘুরতে চাঁদ কখনও পৃথিবীর কাছে চলে আসে, আবার কখনও পৃথিবীর থেকে দূরে চলে যায়। পৃথিবীকে আবর্তের চাঁদের কক্ষপথে একটা সময় এমন আসে যখন চাঁদ ও পৃথিবীর মধ্যে গড় দূরত্ব কমে হয় ৩৬০,০০০ কিমি, যাকে জোর্তিবিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয় পেরিজি (Perigee)। অন্য দিকে, যখন এই দুই গ্রহ ও উপগ্রহের মধ্যে সব চেয়ে বেশি দূরত্ব বেড়ে হয় ৪০৫,০০০ কিমি, তখন তাকে বলা হয় অ্যাপোজি (Apogee)। এবার চাঁদের কক্ষপথে চাঁদ যখন পৃথিবীর খুব কাছে চলে আসে এবং একইসঙ্গে পূর্ণ চাঁদ থাকে তখন পৃথিবী থেকে চাঁদকে শুধু উজ্জ্বলই দেখায় না, স্বাভাবিক পূর্ণ চাঁদের তুলনায় অনেক বড়ও দেখায়। NASA-র সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৯৭৯ সালে জোর্তিষী রিচার্ড নোল্লে সুপারমুন কথাটির প্রচলন করেন। একটি সাধারণ বছরে, দু'টি থেকে চারটি পূর্ণ সুপারমুন থাকতে পারে। প্রায় এক মাস আগে ২৬ এপ্রিল, আরও একটি পূর্ণিমা ছিল, তবে আজ যে সুপারমুনটি দেখা যাবে তা পৃথিবীর সঙ্গে ০.০৪ শতাংশের ব্যবধানে কাছাকাছি থাকবে।

*তাহলে ২৬ মে ঠিক কী হতে চলেছে?

২৬ মে, দু'টি মহাজাগতিক ঘটনা একসঙ্গে ঘটবে। সুপারমুনের সঙ্গে হবে পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ যেখানে চাঁদ ও সূর্য পৃথিবীর বিপরীত দিকে থাকে। পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণের কারণে, যেহেতু পৃথিবী, চাঁদে সূর্যের আলো পৌঁছাতে বাধা দেয় এবং পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল সূর্যের আলো পরিস্রুত করে, তাই চাঁদকে গোলাপি আভায় লাল দেখায়।

বুধবার সকালে, চাঁদ পৃথিবীর বিপরীত দিকে থাকবে এবং পুরো আলোকিত হবে। কেন্দ্রীয় দিবালোকের সময় (CDT)-এর সকাল ৬ টা ১৩ মিনিটে অর্থাৎ ভারতীয় স্ট্যান্ডার্ড সময় (IST)-তে ভোর ৪ টের সময়ে ঘটনাটি ঘটবে৷ আকাশ পরিষ্কার থাকলে সমগ্র পৃথিবীর মানুষ সারা রাত ধরে সুপারমুন দেখতে পারবে৷ যা গভীর রাতে বা ভোরের দিকেই সব চেয়ে ভালো দেখা যাবে।

*চন্দ্রগ্রহণ কোথা থেকে দেখা যাবে?

NASA জানিয়েছে, চন্দ্রগ্রহণ প্রত্যক্ষ করা খুব একটা সহজ হবে না। তবে চাঁদ যখন পৃথিবীর ছায়ায় চলবে অর্থাৎ আংশিক চন্দ্রগ্রহণ, সেটা কিছু কিছু জায়গায় দেখা যাবে। ভারত, নেপাল, পশ্চিম চিন, মঙ্গোলিয়া এবং রাশিয়ার পূর্ব দিকে সন্ধ্যায় আকাশে চাঁদ ওঠার ঠিক পরে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ লক্ষ্য করা যেতে পারে।

Published by:Shubhagata Dey
First published: