Home /News /explained /
Explained: Agnipath Scheme: অগ্নিপথের বিক্ষোভের আগুনে পুড়ছে দেশ, কেন এই প্রতিবাদ-আন্দোলন? পড়ুন

Explained: Agnipath Scheme: অগ্নিপথের বিক্ষোভের আগুনে পুড়ছে দেশ, কেন এই প্রতিবাদ-আন্দোলন? পড়ুন

বিহারে শুরু হওয়া বিক্ষোভ এখন উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা এবং তেলঙ্গানায় ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকী বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা হওয়ার পরেই অগ্নিগর্ভ গোটা দেশ। প্রতিবাদের আগুন ছড়িয়ে পড়েছে দেশের বিভিন্ন অংশে। নয়া এই নিয়োগ প্রকল্পের আওতায় অগ্নিপথ রিক্রুটমেন্ট স্কিম (Agnipath Scheme) বাহিনীতে স্বল্পমেয়াদের ভিত্তিতে আরও বেশি সংখ্যক সেনা অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা করেছে। এই প্রকল্পের অধীনে প্রার্থীরা প্রতিরক্ষা বাহিনীতে যোগদান করবেন। তবে শুধুমাত্র চার বছরের জন্যই তাঁরা কাজে নিযুক্ত থাকবেন। এমনকী মহামারীর জেরে নিয়োগ না-হওয়ার কারণে সরকার এই প্রকল্পের অধীনে নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সের উর্ধ্বসীমা ২১ বছর থেকে বাড়িয়ে ২৩ বছর করেছে। কিন্তু এই নিয়োগ প্রকল্প নিয়ে ক্ষোভের আগুন (Protest) এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে। বিহারে শুরু হওয়া বিক্ষোভ এখন উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা এবং তেলঙ্গানায় ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকী বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। উত্তেজিত জনতা রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়ে কয়েক ডজন রেলওয়ে কোচ, ইঞ্জিন এবং স্টেশনে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। এছাড়াও আগুন ধরানো হয়েছে বিজেপি অফিস, যানবাহন এবং অন্যান্য সম্পত্তিতেও।

‘অগ্নিপথ’ প্রকল্প:

অগ্নিপথ প্রকল্পের অধীনে যুবকরা প্রশিক্ষণের সময়কাল-সহ চার বছরের জন্য 'অগ্নিবীর' হিসেবে সশস্ত্র বাহিনীতে চাকরির সুযোগ পাবেন। এই প্রকল্পের আওতায় কেন্দ্রীয় সরকার দেশের তিন সশস্ত্র বাহিনী– সেনাবাহিনী, নৌ-বাহিনী এবং বায়ুসেনার নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন আনতে চলেছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী, বিজেপি নেতা এবং সামরিক বিভাগের প্রধানরা এই প্রকল্পকে স্বাগত জানিয়েছেন। কয়েকটি বিজেপি শাসিত রাজ্য আবার ঘোষণা করেছে যে, অগ্নিবীর প্রকল্পের মাধ্যমে যাঁরা সেনাবাহিনীতে নিজেদের চার বছরের চাকরির মেয়াদ পূর্ণ করবেন, তাঁরা সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন। অনেকেই মনে করছেন যে, এই প্রকল্পটি আসলে সরকারের ব্যয়ভার হ্রাস করার অন্যতম উদ্দেশ্য। এই প্রকল্পের অধীনে যুবকদের (পুরুষ ও মহিলা উভয়) সরাসরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বা নিয়োগ সমাবেশের মাধ্যমে নিয়োগ করা হবে। যুবকদের চার বছরের চুক্তিতে কাজে নিযুক্ত করা হবে। যেখানে তাঁদের ৬ মাসের কঠোর প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা এবং ৩.৫ বছরের সক্রিয় পরিষেবা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। চার বছর পূর্ণ হওয়ার পরে মাত্র ২৫ শতাংশ নিযুক্ত সশস্ত্র সেনার চাকরি থাকবে। আর অন্যান্য প্রার্থীদের দেওয়া হবে সার্টিফিকেট এবং সেই সঙ্গে এককালীন ১১ লক্ষ টাকাও দেওয়া হবে।

প্রতিবাদের কারণ:

দেশ জুড়ে হাজার হাজার যুবক-যুবতী অগ্নিপথের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন। আন্দোলনকারীরা রেলপথ এবং সড়ক পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। এমনকী এই নয়া নিয়োগ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে টায়ার জ্বালিয়েও বিক্ষোভ-অবরোধ করেছেন আন্দোলনকারীরা। তাঁদের বক্তব্য, আগের নিয়মে অবসর গ্রহণের পর সেনাকর্মীরা পেনশন পেতেন। এখন এই নতুন ব্যবস্থায় পেনশন তো থাকছেই না, উল্টে নিয়োগের সীমা কমিয়ে মাত্র ৪ বছর করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদকারীরা এই স্কিমটিকে অন্যায্য বলে দাবি করেছেন এবং আশঙ্কা করেছেন যে, এতে দেশে বেকারের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পাবে।

First published:

Tags: Agnipath Scheme

পরবর্তী খবর