• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • গাড়ি আটকে হেনস্থা জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়িকা ইমন চক্রবর্তীকে!

গাড়ি আটকে হেনস্থা জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়িকা ইমন চক্রবর্তীকে!

ইমন চক্রবর্তী ৷ ছবি: ফেসবুক ৷

ইমন চক্রবর্তী ৷ ছবি: ফেসবুক ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মেখলা দাশগুপ্ত, সোমলতা আচার্যের পর জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত গায়িকা ইমন চক্রবর্তী ৷ কৃষ্ণনগরে অনুষ্ঠান করতে গিয়ে হেনস্থার শিকার হলেন এই গায়িকা ৷ ঘটনাস্থল থেকে ফেসবুক লাইভ করে গোটা ঘটনাটি নিয়ে লাইভ করেন তিনি ৷

    ঠিক কী অভিযোগ গায়িকার ?

    গতকাল রবিরার রাতে কৃষ্ণনগর পুরসভার অনুষ্ঠান ছিল ইমন চক্রবর্তীর ৷ আর ওই পুরসভার বিরুদ্ধেই হেনস্থার অভিযোগ তুলেছেন তিনি ৷ যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কৃষ্ণনগর পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান অসীম সাহা। তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন মহকুমা শাসক।

    তাঁরা সকলেই পেশাদার গায়িকা। টাকার বিনিময়েই বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠান করেন। কিন্তু, তা বলে কি শিল্পীর ন্যূনতম কোনও সম্মান নেই? স্রেফ টাকা নিচ্ছেন বলেই কি গায়িকার সঙ্গে যা খুশি করা যায়? কৃষ্ণনগর থেকে অনুষ্ঠান করে ফেরার পথে ফেসবুকে লাইভে ক্ষোভ উগরে দিলেন গায়িকা ইমন চক্রবর্তী। কৃষ্ণনগর পুরসভার বিরুদ্ধে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি। প্রতি বছর শীতে শহরের পাবলিক লাইব্রেরির মাঠে জলসার আয়োজন করে কৃষ্ণনগর পুরসভা। মাঠে মেলাও বসে। রবিবার রাতে সেই অনুষ্ঠানেই গান গাইতে গিয়েছিলেন গায়িকা ইমন চক্রবর্তী। ফেসবুক লাইভে শিল্পীর অভিযোগ, সন্ধ্যায় যখন সহশিল্পীদের নিয়ে কৃষ্ণনগরে পৌঁছান তিনি, তখন আয়োজকদের কারও দেখা মেলেনি। শহরের একটি গেস্ট হাউসে ইমন ও তাঁর সঙ্গীদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু, সেখানে নিয়ে যাওয়া তো দূর অস্ত, গেস্ট হাউসে গায়িকাকে চা কিংবা জল দেওয়ারও কেউ ছিল না।

    গায়িকা ইমন চক্রবর্তীর দাবি, সন্ধ্যা ৮টা নাগাদ কৃষ্ণনগর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে অনুষ্ঠান মঞ্চে ওঠেন। প্রায় পৌনে দু’ঘণ্টা গানও গেয়েছেন। কিন্তু অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর অভব্য আচরণ করতে শুরু করেন আয়োজকরা। এমনকী, ইমন ও তাঁর সঙ্গীরা যাতে অনুষ্ঠানস্থল থেকে বেরোতে না পারেন, তারজন্য গেটও আটকে দেওয়া হয়। এরপরই গাড়িতে বসে ফেসবুকে লাইভ আসেন গায়িকা। বিপদের সময়ে অবশ্য ইমনের পাশে দাঁড়ান স্থানীয় বাসিন্দারা। ফেসবুক লাইভে তাঁরা জানান, গান শুনে তাঁরা খুশি। তাঁদের সব অনুরোধই রেখেছেন ইমন। শেষপর্যন্ত লোহার গেট ভেঙে তাঁর ফেরার ব্যবস্থা করেন শ্রোতারাই। কৃষ্ণনগরের সাধারণ মানুষই প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ৷ যে সময় গেট ভেঙে গায়িকাকে বাইরে বের করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে তখন ইমনের হাত ধরে কৃষ্ণনগরের বাসিন্দারা অনুরোধ করেন,‘‘দিদি আবার আসবেন ৷ কৃষ্ণনগরের মানুষ এই রকম না ৷ গুটিকতক মানুষের জন্য কৃষ্ণনগরের মানুষকে ভুল বুঝবেন না ৷’’

    গায়িকার পাশে দাঁড়য়েছেন বাংলা সঙ্গীতজগতের দিকপাল মানুষেরা ৷ ফেসবুকে এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন, সঙ্গীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্র, জয় সরকার ৷ এর পাশাপাশি ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী স্বপ্নিল সজীব, লোপামুদ্রা মিত্র, সোমলতা আচার্য ৷

    First published: