• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • খাস কলকাতায় Primary Teacher নিয়োগে Fraud-র পর্দাফাঁস, পর্ষদের নামে ভুয়ো কললেটার

খাস কলকাতায় Primary Teacher নিয়োগে Fraud-র পর্দাফাঁস, পর্ষদের নামে ভুয়ো কললেটার

সোমবার সেখানেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে (Job) জালিয়াতির (Fraud in name of giving job to Primary teachers) পর্দাফাঁস হয়।

সোমবার সেখানেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে (Job) জালিয়াতির (Fraud in name of giving job to Primary teachers) পর্দাফাঁস হয়।

সোমবার সেখানেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে (Job) জালিয়াতির (Fraud in name of giving job to Primary teachers) পর্দাফাঁস হয়।

  • Share this:

#কলকাতা:  প্রাথমিক শিক্ষক (Primary Teacher) নিয়োগে জালিয়াত (fraud) চক্রের পর্দাফাঁস। জাল কললেটার নিয়ে দফতরে হাজির হন ১৩ জন চাকরি প্রার্থী। যাচাই করতেই প্রকাশ্যে এল জালিয়াতি (Fraud)। ধরা পড়তেই পগাড়পার। দক্ষিণ ২৪ পরগনা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের ঘটনা। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের দফতর বালিগঞ্জে। সোমবার সেখানেই প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে (Job) জালিয়াতির (Fraud in name of giving job to Primary teachers) পর্দাফাঁস হয়।

এদিন দফতরে পৌঁছন ২০১৪ সালের ১৩ জন টেট উত্তীর্ণ চাকরি প্রার্থী। ১৩ প্রার্থীরই হাতে কাউন্সেলিংয়ের  কললেটার। ইমেল মারফত পাওয়া সেই কল লেটার নিয়ে সকাল থেকেই প্রত্যেকে হাজির হন বালিগঞ্জের জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ অফিসে।

তাঁরা দাবি করেন, কাউন্সেলিংয়ের  জন্য ডাকা হয়েছে তাঁদের। নিউজ এইট্টিন বাংলার হাতে ইমেল মারফৎ পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের লোগো লাগানো কাউন্সেলিংয়ের যে কললেটার  এসেছে তাতে উল্লেখ রয়েছে, সোমবার বালিগঞ্জের অফিসে কাউন্সিলিংয়ের বিষয়টি।

আরও পড়ুন - Panchang 9 November: পঞ্জিকা ৯ নভেম্বর: দেখে নিন নক্ষত্রযোগ, শুভ মুহূর্ত, রাহুকাল এবং দিনের অন্য লগ্ন

কিন্তু সোমবার কাউন্সেলিংয়ের  দিন না থাকায় প্রথমেই সন্দেহ হয় সংসদ কর্তৃপক্ষের।খোঁজ নিতে রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের দফতরে যোগাযোগ করা হয়। তখনই জানা যায়, ১৩ প্রার্থীরই কললেটার ভুয়ো। এরকম কোনও কল লেটারই কাউকে পাঠানো হয়নি। জালিয়াতি (Fraud) ধরা পড়তেই দ্রুত এলাকা ছাড়েন ওই ১৩ জন।  দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের  চেয়ারম্যান অজিত নায়েক বলেন, আমরা এই ধরনের কোনও চিঠি পাঠাইনি। কললেটার সম্পূর্ণ ভুয়ো। আমরা গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি'।

আরও পড়ুন - Maldah Crime: টাকা নিয়ে প্রতিবেশীর সঙ্গে প্রতিবেশীর ভয়ানক অশান্তি, রক্তারক্তি, তারপর...

অজিতবাবু এও বলেন, আমি তেরোজনের কাছেই  জানতে চাই যে, কোথা থেকে বা কার মাধ্যমে এই কললেটার পেয়েছেন। তবে  কেউই মুখ খোলেননি'। গোটা বিষয়টি উপর মহলে জানিয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়  সংসদ। জানা গেছে, যে ইমেল আইডি থেকে কাউন্সেলিংয়ের  কল লেটার গেছে, সেটির সম্পর্কে  তদন্ত শুরু হয়েছে। বিভাগীয় তদন্ত করে দেখা হচ্ছে এর সঙ্গে পর্ষদ বা সংসদের কেউ জড়িত কিনা।

এমনকি লেনদেনের কোনও ঘটনাও ঘটেছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এখন দেখার, এই ঘটনার নেপথ্যে আদৌ কোনও চক্রের হদিশ মেলে কিনা। সরকারি প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরির টোপ দিয়ে  যে মোটা টাকা হাতিয়ে এই কাণ্ড ঘটানো হয়েছে তা স্পষ্ট বলেই মনে করছেন অনেকে।  VENKATESWAR LAHIRI

Published by:Debalina Datta
First published: