corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিমান-যাত্রীদের কোন রাজ্যে কত দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে ? জেনে নিন

বিমান-যাত্রীদের কোন রাজ্যে কত দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে ? জেনে নিন
Representational Image

কেন্দ্র প্রথমেই জানিয়ে দিয়েছিল, কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন নেই। কিন্তু অধিকাংশ রাজ্যেরই তাতে সায় নেই।

  • Share this:

#কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকার গত ২৫ মে থেকে দেশ জুড়ে আংশিক ভাবে বিমান পরিষেবা শুরুর অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু অনুমতি দিলেই তো হবে না, ইতিমধ্যেই বিমান-যাত্রা নিয়ে নানা ধন্দ তৈরি হয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ধন্দ তৈরি হয়েছে গন্তব্যে পৌঁছনোর পরে আদৌ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে কি না এবং থাকতে হলে কত দিন, কোথায় থাকতে হবে।

কেন্দ্র প্রথমেই জানিয়ে দিয়েছিল, কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন নেই। কিন্তু অধিকাংশ রাজ্যেরই তাতে সায় নেই। তারা ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে, অন্য রাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইনের মধ্য দিয়েই যেতে হবে। একমাত্র চণ্ডীগড় এবং বিহার কেন্দ্রের রাস্তায় হেঁটে জানিয়ে দিয়েছে, কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন নেই।

তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কেরল, ছত্তীশগড়, পঞ্জাব, হরিয়ানা, মহারাষ্ট্র বাড়িতে অথবা প্রাতিষ্ঠানিক কিংবা সরকারি জায়গায় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা ঘোষণা করেছে। গুজরাতও জানিয়েছে, বাড়িতে বা কোনও প্রতিষ্ঠানে কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন থাকতে হবে বিমানে আসা যাত্রীদের। উত্তরাখণ্ড এবং হিমাচল প্রদেশের যাত্রীদের ১০ এবং ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

মধ্যপ্রদেশে এবং রাজস্থানে একমাত্র যাঁদের শরীরে কোভিডের লক্ষণ  আছে, তাঁদেরই কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। রাজস্থানে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বয়স্ক যাত্রীদেরও। তেলেঙ্গনায় আবার রোগের লক্ষণ থাকলে সরাসরি হাসপাতালে পাঠানো হবে। তা না থাকলে যাত্রীরা তাঁদের বাড়িতে বা গন্তব্যে সরাসরি যেতে পারবেন। উত্তরপ্রদেশে  এমনিতে যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে বাড়িতে থাকতে হবে। তবে ব্যবসা বা অফিসের কাজে যাঁরা আসবেন, তাঁদের ছাড় দেওয়া হবে। কিন্তু তাঁদের সাত দিনের মধ্যে ফেরত যেতে হবে। ওড়িশাতে আবার অফিস বা ব্যবসার কাজে আসা যাত্রীরা তিন দিনের বেশি থাকতে পারবেন না। বাকিদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইন বরাদ্দ হয়েছে।

কর্ণাটকে যে সব বিমান যাত্রী যাবেন, তাঁরা মহারাষ্ট্র, গুজরাত, তামিলনাড়ু, দিল্লি, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ থেকে এলে ৭ দিনের হোম অথবা ইনস্টিটিউশনাল কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন। বাকিরা বাড়িতে থাকলেই হবে। তবে কর্ণাটকে অন্তঃসত্ত্বা মহিলা, মুমূর্ষু রোগী, ৮০ বছর বা তার বেশি বয়সী এবং ১০ বা তার কম বয়েসীদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না।

অসমে যাঁরা দিনের দিনে কাজ সেরে ফেরত আসবেন, তাঁদের কোনও কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে না। বাকিদের ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। গোয়ায় অবশ্য কোভিড নেগেটিভ শংসাপত্র থাকলে ছাড় পাওয়া যাবে। না হলে গাঁটের ২০০০ টাকা খরচ করে পরীক্ষা করাতে হবে। পরীক্ষার ফল না আসা পর্যন্ত থাকতে হবে বাড়িতে। আর যদি পরীক্ষা কেউ না করাতে চান, তবে তাঁকে ১৪ দিন পৃথক ভাবে বাড়িতেই থাকতে হবে।

কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের এক কর্তা বলেন, "আমরা বিষয়টি রাজ্যগুলির হাতে ছেড়ে দিয়েছি। তবে আমাদের ধারণা, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যগুলিও নিয়ম ধীরে ধীরে শিথিল করবে।"

Shalini Datta

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 27, 2020, 9:22 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर