করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা ভাইরাসের ঢেউয়ের দ্বিতীয় ধাক্কা, এপ্রিলের পর একদিনে সর্বাধিক সংক্রমণে চিনে!

করোনা ভাইরাসের ঢেউয়ের দ্বিতীয় ধাক্কা, এপ্রিলের পর একদিনে সর্বাধিক সংক্রমণে চিনে!
Representative image. (Reuters)

গত পর্বে চিনের বিভিন্ন অংশে কঠিনতম লকডাউন করে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোখা হয়েছিল জানুয়ারি মাসে

  • Share this:

#বেজিং:এপ্রিল মাসের পর ফের একদিনে সর্বাধিক সংক্রমণ চিনে! ফের চিনে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত! এ বার একেবারে রাজধানী বেজিংয়ের হোলসেল মার্কেট বা পাইকারি বাজারে করোনা আক্রান্ত মিলল৷ এরই জেরে রাজধানী বেজিংয়ের বেশ কিছু এলাকা লকডাউন ঘোষণা করে দিল চিন সরকার৷ রবিবার দিন একদিনে নতুন সংক্রমণের ৫৭ টি মামলা সামনে এসেছ ৷

গত পর্বে চিনের বিভিন্ন অংশে কঠিনতম লকডাউন করে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোখা হয়েছিল জানুয়ারি মাসে ৷ ন্যাশানাল হেলথ কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে রাজধানীতে ৩৬ টি ইনফেকশনের ঘটনা সামনে এসেছে ৷

এছাড়াও আরও দুটি ঘরোয়া সংক্রমণের ঘটনা সামনে এসেছে রবিবারই ৷ এটা পাওয়া গেছে উত্তর পূর্বের লিওয়ানিং প্রদেশে ৷ স্থানীয় আধিকারিকরা জানিয়েছেন বেজিংয়ের কেসের ওপর তারা নজর রেখেছেন ৷

নতুন  যে সংক্রমিতদের পাওয়া গেছে তাতে ১১ টি রেসিডেন্সিয়াল এলাকায় মানুষকে ঘর থেকে বেরোতে নিষেধ করা হয়েছে ৷ গত দু মাসে এগুলি বেজিংয়ে নতুন করোনা সংক্রমণের মামলা ৷ AFP জানিয়েছে রাস্তায় শত শত পুলিশ আধিকারিককে মাস্ক ও গ্লাভস পরা অবস্থায় রাস্তায় দেখা গেছে ৷ পুলিশ ছাড়াও প্যারা মিলিটারিদের নিয়োগ করা হয়েছে ৷

এক আগে বেজিং-এর ফেংতাই জেলার প্রশাসনিক আধিকারিক চু জুনওয়েই জানিয়েছেন, বেজিংয়ের শিনফাদি হোলসেল মার্কেটে ৫১৭ জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল৷ তার মধ্যে ৪৫ জনের নমুনায় করোনা ভাইরাস পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে৷ সঙ্গে সঙ্গে বেজিংয়ের সব খেলাধুলোর ইভেন্ট, আন্তঃপ্রদেশ পর্যটন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ শুক্রবার ৬ জন করোনা আক্রান্ত রোগী বেজিংয়ের শিনফাদি মার্কেট গিয়েছিলেন৷

এই ঘটনার পরে চিনে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রমাদ গোনা শুরু হয়ে গিয়েছে৷ গত ডিসেম্বরে উহানের সি-ফুড মার্কেটে প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দেখা দেয়৷ তারপর কিছুদিনের মধ্যেই তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে৷

শিনফাদি মার্কেটে এর আগে গরু ও খাসির মাংস বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল প্রশাসন৷ করোনা ভাইরাস আক্রান্তের খোঁজ মিলতেই গোটা বাজারটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ শুক্রবার ১৮ জনের দেহে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায় চিনে৷ তার মধ্যে ৭ জনের কোনও উপসর্গ নেই৷ এর মধ্যে ৬ জনই বেজিংয়ের৷

Published by: Debalina Datta
First published: June 14, 2020, 2:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर