প্রায় এক লক্ষ মানুষ আসেন নামাজ পড়তে, রমজান মাসেই মালদহে বন্ধ হয়ে গেল সুজাপুর নয়মৌজার অন্যতম বৃহৎ নামাজ পাঠ

মালদহের সুজাপুর এর ঈদের নামাজ অত্যন্ত ঐতিহ্যবাহী। দূর দূরান্ত থেকেও প্রচুর ধর্মপ্রাণ মুসলিম এখানে নামাজ পাঠে অংশ নিতে হাজির হন।

মালদহের সুজাপুর এর ঈদের নামাজ অত্যন্ত ঐতিহ্যবাহী। দূর দূরান্ত থেকেও প্রচুর ধর্মপ্রাণ মুসলিম এখানে নামাজ পাঠে অংশ নিতে হাজির হন।

  • Share this:

#মালদহ:- করোনা সতর্কতাই রাজ্যের অন্যতম বৃহৎ নামাজপাঠ এ বছরের মতো বন্ধ করে দেওয়া হল। রবিবার দীর্ঘ  বৈঠকের পর একথা ঘোষণা করল সুজাপুরের নয়মৌজা ঈদগাহ কমিটি। মালদহের সুজাপুরের নয়মৌজা মাঠের এই নামাজ রাজ্যের অন্যতম  বৃহৎ।

প্রায় এক লক্ষ মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষ একসঙ্গে নামাজ পড়েন সুজাপুরে। ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কেও নামাজের  ভিড় জমে। এমনকি সুষ্ঠুভাবে নামাজ পাঠের জন্য ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে ওই সময় যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রাখা হয়। এবছর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ঈদের নামাজ পাঠ হবে না।রবিবার ঈদগাঁও কমিটির বৈঠক শেষে এ কথা জানান কমিটির সম্পাদক হামিদুর রহমান।

 শুধু যে নয়মৌজা মাঠে নামাজ বাতিল হচ্ছে তা নয়, এবছর এলাকার অন্যান্য মসজিদেও দলবেঁধে নামাজপাঠ না করার জন্য ঈদগাঁও  কমিটির এই সিদ্ধান্তের কথা বিভিন্ন মসজিদে  লিখিতভাবে জানিয়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মালদহের সুজাপুর এর ঈদের নামাজ  অত্যন্ত ঐতিহ্যবাহী। দূর দূরান্ত থেকেও প্রচুর ধর্মপ্রাণ মুসলিম এখানে নামাজ পাঠে অংশ নিতে হাজির হন। সাধারণভাবে সুজাপুর, বামনগ্রাম  মোসিমপুর, গয়েশবাড়ি অসংখ্য মানুষ এইখানেই নামাজ পড়েন। পাশাপাশি জালালপুর, মোথাবাড়ি, কালিয়াচক এমনকি মালদহ শহর থেকেও অনেকে এই নামাজে অংশ নেন। এবার ঈদগাঁও কমিটির বৈঠকে সকলেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে নামাজ বন্ধ রাখার পক্ষে সওয়াল  করেন। কমিটির সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে জেলা পুলিশ ও প্রশাসনকে।

Sebak Deb Sharma

Published by:Elina Datta
First published: