৪ শহরে নাইট কারফিউ ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত! করোনা মোকাবিলায় নির্দেশ জারি গুজরাত সরকারের

৪ শহরে নাইট কারফিউ ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত! করোনা মোকাবিলায় নির্দেশ জারি গুজরাত সরকারের
প্রতীকী ছবি।

গুজরাত সরকার জানিয়েছে, কেবলমাত্র আহমেদাবাদ, সুরাত, বরোদা এবং রাজকোট এই চারটি শহরে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাত ১১টা থেকে ভোর ৬টা অবধি পুনরায় নাইট কারফিউ চালু করা হচ্ছে।

  • Share this:

    #বরোদা: কোভিড মোকাবিলায় লকডাউন এবং নাইট কারফিউ বেশ কার্যকরী, পূর্বেই তা প্রমাণিত। তবে লকডাউন নয়,পুনরায় চালু হচ্ছে নাইট কারফিউ। সে কথা আজ শনিবার জানালো রাজ্য সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মচারী। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাত ১১টা থেকে ভোর ৬টা অবধি ওই রাজ্যের চারটি বড় শহর আহমেদাবাদ, সুরাত, বরোদা এবং রাজকোট চলবে নাইট কারফিউ।গুজরাটের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব (স্বরাষ্ট্র), পঙ্কজ কুমার আজ এই ঘোষণার সময় বলেছিলেন যে কোভিড১৯ থেকে সুস্থতার হার দিনে দিনে বেড়ে চলেছে। দেশে আপাতত কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। কিন্তু "করোনা থেকে সতর্ক, সজাগ এবং  মারণ ভাইরাসটি সম্পূর্ণরূপে নির্মূল করার জন্য এই কৌশলটি মেনে চলা দরকার রয়েছে"।গুজরাট সরকার ইতিমধ্যে রাজ্যে বিয়ের সময় অতিথির সংখ্যা ১০০ থেকে বাড়িয়ে ২০০ করেছে। এই প্রেক্ষিতে পঙ্কজ কুমার আরও বলেছেন যে, বড় বড় সমাবেশ, বিবাহ-অনুষ্ঠান, উপাসনালয়, মল, রেস্তোঁরা, হোটেল, সিনেমা হল, সুইমিং পুল, জিম, প্রদর্শনী স্কুল, কলেজগুলিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যাতে চলা হয় সেই দিকটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরও যোগ করেন যে, রাজ্য প্রশাসনের তরফে ট্রেন, বিমান ভ্রমণ এবং মেট্রো ট্রেনেও যাত্রীদের চলাচলকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে।


    গতবছর দীপাবলির পর করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে তখন নাইট কারফিউ জারি করা হয়েছিল ওই চারটি শহরে রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত। গুজরাট সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের মতে জানানো হয়েছে, এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনায় সক্রিয়ভাএ আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৫৮৯। ওই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৬০ হাজার ৯০১ এবং মৃতের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত মোট ৪ হাজার৩৮৫।

    Published by:Somosree Das
    First published: