২৪ বছরের যমজ ভাই, ঘণ্টার হেরফেরে করোনা কেড়ে নিল প্রাণ, মর্মান্তিক

Joefred and Ralphred Gregory were born in 1997, just three minutes apart.

নিয়তির বিধিলিপি এ কেমন মর্মান্তিক!

  • Share this:

    #কলকাতা: জোফ্রেড ও রালফ্রেড জর্জে ২৩ এপ্রিল ১৯৯৭ তে তিন মিনিটের হেরফেরে জন্মেছিলেন৷ এই বছর এপ্রিল মাসে নিজেদের ২৪তম জন্মদিনের পরের দিনেই কোভিড পজিটিভ হয়েছিলেন৷ তাঁরা দু‘জনেই এক ঘণ্টার এদিক ওদিকে মারা গেলেন এক সপ্তাহ আগে৷  উত্তরপ্রদেশের মীরাটে হাসপাতালে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে৷

    রালফ্রেড একই হাসপাতালে ছিলেন৷ তিনি হাসপাতাল থেকে নিজের মা-কে ফোন করেন৷ জানতে চান কেমন আছেন তাঁর যমজ ভাই৷ কারণ জোফ্রেডকে দিল্লির হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল৷ তাঁকে কথাটা জানানো হয় তিনি বলেন, ‘‘মা তুমি মিথ্যা কথা বলছ’’তিনি পরের দিনেই মারা যান , জানিয়েছে টাইমস অফ ইন্ডিয়া৷

    ভারতে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে একাধিক দুঃখের খবর সামনে এসেছে৷ করোনা ভাইরাস দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় যে সব করুণ কাহিনী সামনে এসেছে তারমধ্যে এটা অন্যতম ভয়ানক৷ একাধিক মানুষ অক্সিজেনের অভাবে ধুঁকতে ধুঁকতে মারা গেছেন, সে দৃশ্য রোজ দেখছে ভারত৷

    এই দুই যমজ ভাইয়ের পুরোটাই মিল৷ তাঁদের দুজনের ৬ ফুট উচ্চতা৷ তাঁরা একসঙ্গে কলেজে যেতেন৷ তাঁরা কোয়েম্বাটুরে বি টেক শেষ করেন৷ জোফ্রেড Accenture-এ এবং রালফ্রেড Hyundai Mubis Company কাজ করতেন৷ তাঁরা একসঙ্গে বিদেশ যাওয়ার কথা ভেবেছিলেন৷

     ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবর অনুযায়ি জোফ্রেড মীরটে বাস করতেন৷ তিনি বাড়ি থেকে কাজ করতেন৷ রালফ্রেড নিজের হায়দরাবাদের অফিস থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন৷ কারণ তাঁর হাতে একটা চোট হয়েছিল৷ তাঁদের একটা বড় ভাই রয়েছে৷

    নিজের জন্মদিনের পরেই তাঁদের জ্বর হয়৷ কয়েকদিন তাঁদের বাড়ি রেখেই চিকিৎসা চলছিল৷ অক্সিমিটার কেনা হয়েছিল, ওষুধ খাওয়া চলছিল৷ তাঁদের পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছিল৷ তাঁদের মে মাসের ১ তারিখে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷

    ১০ মে তাঁরা দুজনেই নেগেটিভ হন৷ তাঁরা অত্যন্ত খুশি হয়ে যান৷ কিন্তু ৩ দিন বাদে হঠাৎই প্রথমে জোফ্রেড মারা যান, এরপরেই পরিবারের মনে হয়েছিল যে রালফ্রেডও বাঁচতে পারবে না৷ কারণ ওঁদের কখনও আলাদা করা যেত না৷ ’’ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছেন মিস্টার রাপহেল৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: